চির নিদ্রায় পপগুরু আজম খান

June 6, 2011, 1:47 PM, Hits: 1705

চির নিদ্রায় পপগুরু আজম খান


Azam-Khan-SaKiL_335হাজারো ভক্ত-অনুরাগীর শ্রদ্ধা ও অশ্রুজলে চিরবিদায় নিলেন পপগুরু আজম খান। চির নিদ্রায় শায়িত হলেন মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে। সোমবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে পপগুরুর দাফন সম্পন্ন হয়। এ সময় কবি, শিল্পী, সাহিত্যিক, সংস্কৃতি কর্মী ও সর্বস্তরের হাজারো মানুষ অশ্রুজলে তাকে চির বিদায় জানান।
এর আগে সকাল ৮টায় ঢাকা সেনানিবাসের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল থেকে আজম খানের লাশ নেয়া হয় তার কমলাপুরের বাসভবনে। সেখানে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানান স্থানীয় বাসিন্দাসহ অগণিত ভক্ত। এ সময় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের পক্ষ থেকে তাকে 'গার্ড অব অনার' দেয়া হয়।
সেখান থেকে আজম খানের লাশ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেয়া হয়। সেখানে পপগুরুকে গার্ড অব অনার দেয়া হয়। হাজারো ভক্ত জনতা তার কফিনে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকেও পপগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। শেষ শ্রদ্ধা জানাতে সকাল থেকেই শহীদ মিনারে জড়ো হতে থাকেন সর্বস্তরের মানুষ।
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আজম খানের কফিনে রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের পক্ষে তার একান্ত সচিব ফজলুল হক, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে বিশেষ সহকারী আবদুস সোবহান ও ব্যক্তিগত সহকারী সাইফুজ্জামান শিখর, আওয়ামী লীগের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, বিএনপির পক্ষে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা তৌফিক ই এলাহি চৌধুরী, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।



http://www.sheershanews.com/admin/photo_gallery/image_1414.jpg এছাড়া জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, গণফোরাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মেসবাহ উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এবিএম তাজুল ইসলাম, অভিনেতা টেলিসামাদ, কণ্ঠশিল্পী আব্দুল জব্বার, ফকির আলমগীর, আইয়ূব বাচ্চু, কুদ্দুস বয়াতী, মুনির খানসহ সর্বস্তরের মানুষ পপগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
আজম খানের প্রথম জানাজে নামাজ কমলাপুর স্থানীয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। বাদ যোহর দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে।
এদিকে বাদ জোহর জাতীয় বায়তুল মোকাররমে জানাজা শেষে দাফনের জন্য বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে নেয়া হয় আজম খানের লাশ। সেখানে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আরেক দফা জানাজা হয়।

http://www.sheershanews.com/admin/photo_gallery/image_1416.jpg

আজম খানের প্রতি সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা

হাজারো ভক্ত-অনুরাগীর ফুলেল শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় বিদায় নিচ্ছেন পপ সম্রাট আজম খান। কবি, সাহিত্যিক, শিল্পী, সংস্কৃতি কর্মীসহ হাজারো মানুষ কফিনে ফুল দিয়ে আজম খানের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকেও পপগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এ শিল্পীর লাশ আজ সোমবার সকাল ১০টার দিকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নিয়ে আসা হয়। সেখানে হাজারো মানুষ ভিড় জমায় আগে থেকেই। গতকাল সোমবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন আজম খান।


এর আগে সকাল ৮ টায় সিএমএইচ থেকে আজম খানের লাশ নেয়া হয় তার কমলাপুরের বাসভবনে। সেখানে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে স্থানীয় বাসিন্দাসহ অগণিত ভক্ত। এ সময় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের পক্ষ থেকে তাকে 'গার্ড অব অনার' দেয়া হয়।

http://www.sheershanews.com/admin/photo_gallery/image_1417.jpg
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আজম খানের কফিনে ফুল দিয়ে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানান দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, বিএনপি'র পক্ষে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, গণফোরাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকী ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মেসবাহ উদ্দিন। মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের পক্ষে কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এবি তাজুল ইসলাম। রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের একান্ত সচিব ফজলুল হক, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী আবদুস সোবহান ও ব্যক্তিগত সহকারী সাইফুজ্জামান শিখর, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা তৌফিক ই এলাহি চৌধুরী, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে আজম খানের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনও মরহুম এ শিল্পীর প্রতি শ্রদ্ধা জানান। অভিনেতা টেলিসামাদ, কন্ঠশিল্পী আব্দুল জব্বার, ফকির আলমগীর, আইয়ুব বাচ্চু ও কুদ্দুস বয়াতী, মুনির খান প্রমুখ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মরহুম পপ গুরুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
আজম খানের প্রথম জানাজার নামাজ কমলাপুর স্থানীয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বাদ যোহর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে। পরে তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হবে।

http://www.sheershanews.com/admin/photo_gallery/image_1415.jpg

পপগুরুর দাফন নিয়ে জটিলতা


পপগুরু আজম খানের দাফন নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। বুদ্ধিজীবী কবরস্থান কর্তৃপক্ষ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নির্ধারিত স্থানে দাফন না করে সাধারণের জন্য নির্ধারিত স্থানে দাফন করার সিদ্ধান্ত নেয়। এতে আজম খানের পরিবার ও তার শুভাকাঙ্ক্ষীরা তা মেনে নেয়নি। এতে বাদ জোহর জানাজা শেষে দাফনের কথা থাকলেও বিকেল ৪টা পর্যন্তও দাফন হয়নি পপগুরুর।
আজম খানের মেয়ে ইমা খান শীর্ষ নিউজ ডটকমকে জানান, কর্তৃপক্ষের ঝামেলার কারণে এখনো বাবার দাফন সম্পন্ন হয়নি।
এদিকে বাদ জোহর জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে জানাজা শেষে দাফনের জন্য বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে নেয়া হয় আজম খানের লাশ। সেখানে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আরেক দফা জানাজা হয়।



 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ