আবার নাটকীয় সৌরঝড়

June 9, 2011, 8:44 AM, Hits: 2211

আবার নাটকীয় সৌরঝড়


Sun_-_SaKiL_-_8567সূর্যে প্রতিনিয়ত চলছে হাইড্রোজেন গ্যাসের দহন। এই নিরন্তর দহন-সমুদ্রে প্রায়ই সৃষ্টি হয় অগি্নঝড়ের। তবে গত মঙ্গলবার নাসার 'সোলার ডাইনামিকস অবজারভেটরি' যে সৌরঝড় ক্যামেরাবন্দি করেছে তা সচরাচর দেখা যায় না। নাসা কর্তৃপক্ষ জানায়, ২০০৬ সালের পর সূর্যের উপরিভাগে এটাই সবচেয়ে বড় বিস্ফোরণ। এই অগি্নঝড়ের কারণে পৃথিবীর বিদ্যুৎকেন্দ্র ও কৃত্রিম উপগ্রহগুলোতে যান্ত্রিক গোলযোগের আশঙ্কা দেখা দেয়। মেরু অঞ্চলের কাছাকাছি এলাকায় কিছু বিমান চলাচলের গতিপথ পরিবর্তনেরও প্রয়োজন হতে পারে। তবে ভূ-চৌম্বকীয় স্তর ভেদ করে পৃথিবীর ওপর এ ধরনের সৌরঝড়ের প্রতিক্রিয়ার সম্ভাবনা থাকে সাধারণত ১২ থেকে ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত।


'সোলার ফিলামেন্ট' বা 'সৌরশিখা' হলো ঘন গ্যাসের প্লাজমা_যা সূর্যের উপরিভাগে ঝুলে থাকে। সে কারণে মহাশূন্যের অন্ধকার ক্যানভাসে সূর্যের শীর্ষধারে এসব সর্পিল সৌর-ফিতা দৃষ্টিনন্দন হয়ে ওঠে। সূর্যের চারপাশে যে জ্যোতির্বলয় রয়েছে সে তুলনায় এসব 'ফিতা' অনেক শীতল হয়ে থাকে বলে এগুলোকে কিছুটা অন্ধকার দেখায়। গত বছর আগস্ট ও ডিসেম্বরে 'সোলার ডাইনামিকস অবজারভেটরি'সহ বেশ কিছু স্যাটেলাইট থেকে একটি শীতল গ্যাসীয় ফিলামেন্ট সূর্যের উত্তর গোলার্ধ ও এবং দক্ষিণাঞ্চল বরাবর মহাশূন্যে বিস্ফোরিত হওয়ার দৃশ্য রেকর্ড করা হয়। সে সময় এ বিস্ফোরিত সূর্যশিখা 'সোলার সুনামি' সৃষ্টি করতে পারে বলে আশঙ্কা জেগেছিল। বিজ্ঞানীদের মতে, নতুন এই সৌর-ফিতার দুটি সম্ভাবনা রয়েছে_এটি হয় সৌরঝড়ের আকার ধারণ করবে, নয়তো আবার সূর্যগর্ভে ফিরে যাবে। সূত্র : এএফপি।

 


 
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ