পাখি গালিও দেয় !

June 21, 2011, 10:13 AM, Hits: 1921

পাখি গালিও দেয় !


হ-বাংলা নিউজ : লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে : মানুষের মতো পাখিরও রাগ আছে। অখুশি হওয়ার বা বিরক্তিরও কারণ আছে। আর কোনো কারণে রেগে গেলে বা বিরক্ত হলে তারা মানুষের মতো গালিও দেয় বা খিস্তি-খেউর করে। পাখিকে অনেকেই নির্বোধ মনে করেন। কিন্তু ঢালাওভাবে এমন মনে করা যে ঠিক নয়, তা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে। যেমন, এমন পাখিও আছে যারা ঠিক ঠিক চিনে রাখতে পারে 'শত্রু' মানুষটিকে। নিজেদের নিরাপত্তার বিষয়টি তাদের কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, ম্যাগপাই পাখি তাদের বাসায় বা আশপাশে অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে কোনো মানুষের আসা-যাওয়াকে সন্দেহের দৃষ্টিতে দেখে। যদি কোনো ব্যক্তি একবার গাছে ম্যাগপাইর নীড়ের দিকে উঠে থাকে বা বিরক্ত করে, তবে ম্যাগপাইরা তাকে ঠিক চিনে রাখে। যখন ওই ব্যক্তি দ্বিতীয়বার একই কাজ করার চেষ্টা করে, তখন তারা চেঁচামেচি শুরু করে। আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে। বিশেষ ধরনের এ চেঁচামেচিকে বিজ্ঞানীরা বকাঝকা বা গালি হিসেবেই দেখছেন। দক্ষিণ কোরিয়ার বিজ্ঞানীদের গবেষণায় বিষয়টি বেরিয়ে এসেছে।


দক্ষিণ কোরিয়ার সিউল ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির গবেষকরা এ বিষয়টি নিয়ে কাজ করেছেন। তাঁদের গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে 'অ্যানিমেল কগনিশন' সাময়িকীতে।
গবেষকদের একজন স্যাঙ্গ-ইম লি জানান, ম্যাগপাই নিয়ে তাঁদের গবেষণার সূচনা অনেকটা আকস্মিকভাবে। ২০০৯ সালে প্রজনন মৌসুমে একদিন নৈমিত্তিক কাজ হিসেবে নীড় পরীক্ষা করতে গিয়ে ম্যাগপাইদের 'বকাঝকার' মুখে পড়েন তিনি। ম্যাগপাইরা বিরক্তি প্রকাশ করে বিচিত্র কিচিরমিচির বা চেঁচামেচি শুরু করে। পাখিগুলো তাঁকে দেখে বিরক্তিসূচক শব্দ করতে থাকে। তাঁকে লক্ষ্য করে আক্রমণাত্মক আচরণ ও শব্দ করতে থাকে।


ম্যাগপাইগুলোর এ অদ্ভুত আচরণে গবেষকদলের সদস্যরা কিছুটা আশ্চর্য হন। একপর্যায়ে পাখিদের এ আচরণ নিয়ে শুরু করেন পর্যবেক্ষণ। তাঁরা এ জন্য বেশ কয়েকটি পরীক্ষা চালান। তাঁদের গবেষণার অন্যতম বিষয় ছিল একজন অপরিচিত ব্যক্তির প্রতি ম্যাগপাই পাখির আচরণ বা প্রতিক্রিয়া। এ জন্য তাঁরা ১১ জোড়া ম্যাগপাই পাখির ওপর পরীক্ষা চালান। তাঁরা বুঝতে চেষ্টা করেন, মানুষের আচরণের প্রতিক্রিয়ায় ম্যাগপাইগুলো কী আচরণ করে। পরে গবেষকরা দেখতে পান, ম্যাগপাইরা তাদের বাসায় অপরিচিতের আগমনের বিষয়টি বুঝতে পারে। বিষয়টিকে তারা বিপজ্জনক, কখনো বা বিরক্তিকর মনে করে খিস্তি-খেউর করে। সোজা কথায় গালি দেয়। স্যাঙ্গ-ইম লির মতে পাখি মানুষের মুখমণ্ডলের বৈশিষ্ট্য বা পরিবর্তন দেখে তাদের মনোভাব বুঝতে পারে। তবে এ বিষয়ে আরো বিস্তারিত গবেষণা দরকার।


প্রসঙ্গত, ম্যাগপাই হচ্ছে পাখির তৃতীয় প্রজাতি, যা মানুষের আচরণগত মনোভাব বুঝতে পারে। অন্য দুটি প্রজাতি হচ্ছে আমেরিকান কাক এবং নর্দান মকিংবার্ড। সূত্র : বিবিসি অনলাইন।

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ