মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বাংলাদেশী শ্রমিকদের জন্য নতুন শঙ্কা

June 26, 2011, 8:13 AM, Hits: 1835

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বাংলাদেশী শ্রমিকদের জন্য নতুন শঙ্কা


আমানুর রহমান : মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট (এমআরপি) না থাকায় মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে কর্মরত বাংলাদেশী দক্ষ-অদক্ষ অর্ধ কোটির বেশি শ্রমিক সমস্যার মুখে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। সরকার এখনই এ ব্যাপারে দ্রুত কূটনৈতিক পদক্ষেপ না নিলে মধ্যপ্রাচ্যের মতো বৃহৎ শ্রমবাজার থেকে বাংলাদেশী শ্রমিক ফেরত আসার আশঙ্কা দেখা দিতে পারে। এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে দেশের অর্থনীতি ও রেমিট্যান্স প্রবাহের ওপরও বিরূপ প্রভাব পড়বে। যার ত্বরিত সমাধান কারো হতেই থাকবে না। সম্প্রতি সৌদি আরব সরকার পাকিস্তানি কর্মীদের ক্ষেত্রে পুরনো রীতিতে হাতে লেখা পাসপোর্ট গ্রহণে বিধিনিষেধ আরোপ করায় সেখানকার বাংলাদেশী কর্মীদের মধ্যে আশঙ্কা দেখা দেয়। কারণ সৌদি আরবে অবস্থানরত বাংলাদেশী শ্রমিকদের কারোই মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট নেই। সম্প্রতি মালেয়শিয়া সরকার সে দেশে কর্মরত বৈধ-অবৈধ সব বাংলাদেশী শ্রমিকের জন্য মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট বাধ্যতামূলক করেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশ সরকারকে এখন হিমশিম খেতে হচ্ছে।


সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের একাধিক দেশের বাংলাদেশ দূতাবাস পররাষ্ট্র ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে এ ব্যাপারে লিখিত পত্র দিয়ে অবহিত করেছে। এ পত্রের অনুলিপি স্বরাষ্ট্র, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়কে দেয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এ চিঠি নিয়ে সম্প্রতি আন্তঃমন্ত্রণালয়ের একাধিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। কয়েক দফা বৈঠকে সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়েছে। সমস্যা সমাধানের সম্ভাব্য কৌশল কী হতে পারে তা নিয়ে আরো উচ্চপর্যায়ে মতামত প্রদান ও সিদ্ধান্তের আলোকে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণের সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে সূত্র জানায়। তবে দূতাবাসগুলোকে সার্বক্ষণিক তথ্য সংগ্রহ ও অবহিত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে। সংশ্লিষ্ট দেশ যেন আকস্মিক কোনো পদক্ষেপ না নেয় সে ব্যাপারে সজাগ থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে দূতাবাসগুলোকে। মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট সংক্রান্ত জটিলতা দেখা দিয়েছে এমন দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে কূটনৈতিক তৎপরতার মাধ্যমে সমাধান খঁুজতে এবং মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট না দেয়া পর্যন্ত সময় নিতে বলা হয়েছে।


এ ব্যাপারে কর্মসংস্থান ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. জাফর আহমেদ খানের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি নয়া দিগন্তকে বলেন, শিগগিরই বাংলাদেশী শ্রমিকদের পাসপোর্ট জটিলতার অবসান হচ্ছে। মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট প্রস্তুত ও প্রদানের কাজ শুরু হয়েছে। আগামী ২০১৫ সালের মধ্যে সবার জন্য মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট করার ঘোষণা সরকারের রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে সব কিছু সমাধান হয়ে যাবে।


তিনি জানান, সৌদি আরবের বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। ঢাকায় কর্মরত সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতেরা এ বিষয়ে পরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ইতিবাচক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।


প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজারের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরবসহ গোটা মধ্যপ্রাচ্য। বর্তমানে মধ্যপ্রাচ্যে প্রায় অর্ধ কোটির বেশি বাংলাদেশী দক্ষ-অদক্ষ শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন। এর মধ্যে শুধু সৌদি আরবে ২৫ লাখ ৭৩ হাজার ১২৮ জন বাংলাদেশী চাকরি করছেন। মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশের মধ্যে কুয়েতে পাঁচ লাখ ৪৮ হাজার ৫৭১ জন, ওমানে চার লাখ ৮০ হাজার ৫২৪ জন, কাতারে দুই লাখ ৫৫ হাজার ৭২৩ জন, বাহরাইনে এক লাখ ৯১ হাজার ৩৮১ জন, লেবাননে ২০ হাজার, জর্ডানে ২৪ হাজার ৭৬৯ জন, লিবিয়ায় ২২ হাজার ৮৪২ জন, সুদানে সাত হাজার ৭৪৮ জন। ইতোমধ্যে এদের কারো কারো ভিসার মেয়াদও শেষ হয়ে গেছে। এ পরিসংখ্যান সরকারি দফতরের। এর বাইরেও অবৈধভাবে অথবা অন্যান্য উপায় আরো কয়েক লাখ শ্রমিক রয়েছে মধ্যপ্রাচের দেশগুলোতে। এরাই সবচেয়ে সমস্যায় পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।


সূত্র জানায়, প্রতিদিন গড়ে এক হাজার থেকে প্রায় ১৩ শ’ বাংলাদেশী কর্মী মধ্যপ্রাচ্যের দেশেগুলোতে যাচ্ছেন চাকরির সন্ধানে। এক পরিস্যংখ্যান অনুযায়ী গত ৩ মাসে (মার্চ-এপ্রিল-মে) প্রায় সোয়া লাখ শ্রমিক চাকরি নিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশেগুলোসহ এর আশপাশের দেশে গেছেন। এর মধ্যে শুধু সংযুক্ত আরব আমিরাতে গেছেন প্রায় ২০ হাজারের বেশি। তবে তারা নতুন এমআরপি পাসপোর্টেই বিদেশে গেছেন বলে জানা গেছে।


মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট তৈরি প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে মেশিন রিড্যাবল পাসপোর্ট (এমআরপি) তৈরি ও বিতরণের কাজ অব্যাহত রয়েছে। নতুন প্রযুক্তিতে কাজ করায় স্বল্পসময়ের মধ্যে অত্যধিক চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে আগামী ২০১২ সালের শেষ সময় পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত সব বাংলাদেশীর পাসপোর্ট এমআরপিতে রূপান্তরিত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

 


 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ