শেরপুরে কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের প্রমাণ মিলেছে

October 30, 2010, 5:22 PM, Hits: 3211

শেরপুরে কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের প্রমাণ মিলেছে

হ-বাংলা নিউজঃ শেরপুর থেকেঃ শেরপুরের নালিতাবাড়ীর সোহাগপুরে মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত দল।

জামায়াতের এ শীর্ষ নেতা বর্তমানে কারাবন্দি রয়েছেন।
শনিবার তদন্ত কাজ শেষে নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ হলরুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দেন তদন্ত দলের প্রসিকিউটর জেয়াদ-আল মালুম।
তিনি বলেন, জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের নির্দেশে তার অধীনস্ত স্থানীয় আল-বদর ও রাজাকারদের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় ১৯৭১ সালের ২৫ জুলাই সোহাগপুর গ্রামে ১৮৬ জনকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। তখন গ্রামটি পুরুষশূন্য হয়ে পড়ে। এরপর থেকে গ্রামটি সোহাগপুর বিধবাপল্লী হিসেবে পরিচিতি লাভ করে।
তিনি বলেন, এ ঘটনায় জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানসহ নালিতাবাড়ী উপজেলার গোবিন্দনগরের আব্দুর রহমান ও আকরাম হোসেন, বড়জানি গ্রামের আব্দুল কাদির, গেড়াপচা গ্রামের হাসান আলী, নালিতাবাড়ী বাজারের মৃত আজগর আলী খান ও মৃত KamruZamman_-_SaKiL_-_29রফিজ দেওয়ানের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে।
জেয়াদ জানান, তদন্ত দলের নিকট আজ দুটি লিখিত অভিযোগ ছাড়াও ৪০ জন সাক্ষ্য প্রদান করেছেন। তাদের এ তদন্ত কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।
এরআগে তদন্ত দল নালিতাবাড়ী উপজেলার সোহাগপুর বিধবাপল্লীসহ বিভিন্ন স্থানের বধ্যভূমি ও গণহত্যার এলাকা পরিদর্শন করে।
উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত দল শুক্রবার রাতে দুদিনের সফরে শেরপুরে আসে।
পাঁচ সদস্যের এই তদন্ত দলে রয়েছেন- ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর  অ্যাডভোকেট জেয়াদ-আল মালুম, প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট মোখলেসুর রহমান বাদল, তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মো. আব্দুর রাজ্জাক খান, পুলিশ পরিদর্শক জেডএম আলতাফুর রহমান ও পুলিশ পরিদর্শক মো. ওবায়দুল্লাহ।

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ