যুক্তরাষ্ট্রে ‘Harold Love Award’ জয় ঢাবি ছাত্রের

May 23, 2016, 1:32 AM, Hits: 2106

যুক্তরাষ্ট্রে ‘Harold Love Award’ জয় ঢাবি ছাত্রের

নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে : যুক্তরাষ্ট্রের ইস্ট টেনেসি স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইটিএসইউ) পিএইচডিতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি ছাত্র মো. মাহবুবুর রহমান টেনেসি উচ্চশিক্ষা কমিশন থেকে ২০১৬ সালের ‘Harold Love Outstanding Community Involvement Award’ এর জন্য মনোনীত হয়েছেন।

‘Johnson City Press’ পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

তার মনোনয়ন পত্রে ইটিএসইউ এর বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. অরুনা খিলাড়ু বলেন, ‘রহমান বৃহত্তর পরিমন্ডলে ভাল কাজের একটি প্রেরণা’। 

তিনি আরও উল্লেখ করেন, তার ল্যাবে যোগদানের একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল, মাহবুব উন্নতমানের ফসল উৎপাদনের জন্য গবেষণা করতে চান, যা পরবর্তীতে উচ্চফলনশীল শস্য উৎপাদনে এবং মানুষের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে ভূমিকা রাখবে।

মাহবুব ২০১২ সালে ইস্ট টেনেসি স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস বিভাগে পিএইচডির উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্রে যান।
এর আগে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। 

ঢাবিতে ভর্তিরে আগে মাহবুব পাবনা ক্যাডেট কলেজ থেকে এসএসসি এবং এইচএসসি পাস করেন। ২০০২ সালে মাধ্যমিকে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের বিজ্ঞান বিভাগে সম্মিলিত মেধা তালিকায় ১৩তম স্থান দখল করেছিলেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের নবাগত  শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের জন্য নির্ভরতার প্রতীক হয়ে ওঠেন। তাদের জন্য নতুন বাসার ব্যবস্থা থেকে শুরু করে সর্বোপরি স্থানীয় জীবনে অভ্যস্ত হতে সবসময়ই তিনি সবার পাশে থাকেন বন্ধু হয়ে।

বাংলাদেশের ছাত্র মাহবুব ২০১৩ সাল থেকে “Muslim Student Association” এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী এবং স্থানীয় আমেরিকান্দের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার জন্য নিরলস পরিশ্রম করে গেছেন।

জানা গেছে, বিভিন্ন দেশ থেকে আগত শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় কেনাকাটার জন্য প্রতি মাসের প্রথম ও তৃতীয় শনিবার বিনামূল্যে যানবাহন সহায়তা দেন তিনি। সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় সহনশীলতা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রায়ই তিনি “Community Group Discussion” এর আয়োজন করেন। এছাড়া জনসন সিটির আশেপাশে বসবাসকৃত আর্থিকভাবে অসচ্ছল অধিবাসীদের চিকিৎসা সেবার জন্য নিয়মিত তহবিল সংগ্রহ করেন।

এখানেই থেমে যেতে চান না মাহবুব, এই প্রেরণাকে শক্তি হিসেবে নিয়ে যেতে চান বহুদূর। তার ভবিষ্যত পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের গ্রামের গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহযোগীতার জন্য বৃত্তির ব্যবস্থা করা এবং অসচ্ছল রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা প্রদানের জন্য হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা। এই লক্ষ্যে ২০১৭ সালে নিজ গ্রাম ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার সোনাখালিতে একটি গ্রামীণ হাসপাতাল নির্মাণের কাজ শুরু করবেন তিনি। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ