সুস্বাস্থ্যের জন্য কী খাবেন, কেন খাবেন?

July 3, 2016, 4:49 AM, Hits: 1833

সুস্বাস্থ্যের জন্য কী খাবেন, কেন খাবেন?

পরিমিত হওয়া চাই
পছন্দের খাবার হয়তো আপনি অনেক খেতে পারবেন। কিন্তু সুস্বাস্থ্য চাইলে কোনো খাবারই মাত্রাতিরিক্ত খাওয়া যাবে না। প্রশ্ন উঠতে পারে, পরিমিত খাবার বলতে কী বোঝায়? এ প্রশ্নের উত্তরই আপনাকে জানতে হবে। অনেকেই মনে করেন, কার্বোহাইড্রেট, চিনি, প্রোটিন, ফ্যাট ইত্যাদি খাওয়া যাবে না। গবেষণা বলছে, সেভাবে কোনো খাবারই বাদ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। তবে মাত্রা যেন কম হয়, সেটি খেয়াল রাখতে হবে।
মাখন
অনেকেই মনে করেন, মাখন স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। যদিও গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতিদিন এক চামচ মাখন খাওয়া ক্ষতিকর নয়। বরং প্রতিদিন এক চামচ মাখন খেলে টাইপ-টু ডায়াবেটিসের ঝুঁকি ৪ শতাংশ কমে যায়।
বাদাম
বাদামে প্রচুর ক্যালরি থাকায় অনেকে তা খেতে চান না। যদিও গবেষকরা বলছেন, বাদামে রয়েছে প্রচুর আঁশ, স্বাস্থ্যকর ফ্যাট, ভিটামিন, খনিজ উপাদান ও ফাইটোকেমিক্যাল। নিয়মিত বাদাম খেলে ক্যান্সার, হৃদরোগ ও শ্বাসযন্ত্রের রোগের বিরুদ্ধে প্রতিরোধক্ষমতা গড়ে ওঠে। এ রোগগুলো বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক পাঁচটি রোগের অন্যতম। এজন্য শুধু চীনাবাদামই নয়, আখরোট, কাজুবাদাম, পেস্তাবাদাম, কাঠবাদাম ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের বাদাম নিয়মিত খাওয়া উচিত।
ডিম
উচ্চমাত্রায় কোলস্টেরল থাকার কারণে অনেকেই ডিম খেতে ভয় পান। যদিও ডিম অত্যন্ত পুষ্টিকর খাবার। গবেষকরা প্রতিদিন একটি বা দুটি করে ডিম খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। একটি ডিমে রয়েছে প্রায় ৭৫ ক্যালরি, ৭ গ্রাম প্রোটিন, ৫ গ্রাম ফ্যাট ও ১.৬ গ্রাম স্যাচুরেটেড ফ্যাট। এছাড়া এতে প্রচুর আয়রন, ভিটামিন, মিনারেল, ক্যারটিনয়েড ও গুরুত্বপূর্ণ নয়টি অ্যামাইনো এসিড। গবেষকরা বলছেন, ডিমের কোলস্টেরল ক্ষতিকর নয়। এমনকি ডিম খেলে হৃদরোগও হয় না।
ফল
মিষ্টি কিংবা টক যে কোনো ফলই উপকারি। প্রতিদিনই খাওয়া উচিত বিভিন্ন ধরনের ফল। মিষ্টি আঙুর কিংবা কলা খেলেও স্বাস্থ্যের কোনো ক্ষতি নেই। ফলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিকর উপাদান। ফলের ভিটামিন ও মিনারেল দেহের শুধু পুষ্টির চাহিদাই মেটায় না, বিভিন্ন ফল ক্যান্সার ও ডায়াবেটিসের মতো রোগের ঝুঁকি কমায়। তবে ফলের জুস খাওয়ার ক্ষেত্রে বাড়তি চিনি যোগ না করতেই বলছেন গবেষকরা। বাড়তি চিনির কারণে দেহের ওজন বেড়ে যেতে পারে। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ