'উৎসব মুখর পরিবেশে বোষ্টন বাংলাদেশ বুড্ডিষ্ট এসোসিয়েশনের বর্ষ বরণ

April 21, 2017, 8:33 AM, Hits: 804

'উৎসব মুখর পরিবেশে বোষ্টন বাংলাদেশ বুড্ডিষ্ট এসোসিয়েশনের বর্ষ বরণ

সুহাস বড়ুয়াঃ (বাপস) বোস্টনঃ বোষ্টন বাংলাদেশ বুড্ডিষ্ট এসোসিয়েশনের উদ্যেগে গত ১৬ এপ্রিল আর্লিংটন আমেরিকান লিজিয়ন মিলনায়তনে বোষ্টনে বসবাসকারী বাংলাদেশী বৌদ্ধরা প্রবাস প্রজন্মের সরব উপস্থিতি ও অংশ গ্রহণে আবহমান বাংলার সম্মৃদ্ধ কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার উৎসব "বাংলা নব বর্ষ-১৪২৪" বরণ  অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ।

বাঙালি সংস্কৃতির প্রধান উৎসব বাংলা বর্ষ বরণ অনুষ্ঠান। দেশীয় অনুভূতি ও আবহ সৃষ্টি কারী বাংলার হস্ত শিল্প, কুঠির শিল্প, চারু শিল্প, নকঁশী কাঁথা, বাউলের একতারা-সহ  রকমারি উপকরণ দিয়ে সাজানো হয় বর্ষ বরনের স্থানটি। আয়োজন করা হয় ঐতিহ্যবাহী পিঠা উৎসব যাতে অন্তর্ভুক্ত ছিল আকর্ষণীয় এবং সুস্বাধু ঘরে বানানো দেশীয় পিঠার সমাহার। সংগঠনের সদস্য-সদস্যাদের দৃষ্টি নন্দন দেশীয় পোষাক ও গহনায় সাজসজ্জা উৎসবে যোগ করে নতুন মাত্রা । 

বোস্টন বাংলাদেশ বুড্ডিষ্ট এসোশিয়েশনের সভাপতি দেবাশীষ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক প্রজয় বড়ুয়ার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত হয় বর্ষ বরনের আলোচনা সভা। আলোচনার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ-সভাপতি সুহাস বড়ুয়া। অনুষ্ঠানে বাংলা নব বর্ষের তাৎপর্য ও বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনায় অংশ নেন সংগঠনের সভাপতি দেবাশীষ বড়ুয়া, প্রাক্তন সভাপতিদের মধ্যে যথাক্রমে সৌম্যেন্দু বড়ুয়া, সুমিত বড়ুয়া, শিমুল বড়ুয়া, প্রাক্তন সহ-সভাপতি রাতুল বড়ুয়া, সিনিয়র সদস্য তপন সিংহ, প্রাক্তন সহ-সভাপতি উজ্জ্বল বড়ুয়া, প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক তাপস বড়ুয়া। 

বাঙালির আবহমানকালের ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক  বাংলা নববর্ষ-১৪২৪ উদযাপনকে ঘিরে সংগঠনের সদস্য সদস্যাদের পরিবেশনায় গান, নৃত্য সহ আয়োজন  করা হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান । সূচনা সঙ্গীত হিসেবে শুরুতেই সংগঠনের সদস্য সদস্যাদের  সম্মিলিত কণ্ঠে গাওয়া হয় ''এসো, হে বৈশাখ, এসো, এসো'' গানটি উৎসবের আমেজকে প্রাণবন্ত করে তোলে। 

সংগঠনের সাংস্কৃতিক সম্পাদক রাজু বড়ুয়ার পরিচালনায় শিশুদের সমবেত সংগীতে অংশ নেয় শিশু শিল্পী ঐশী, ইশা, পৃথ্বী, উর্বানা, তূর্ণা, সুস্মিত, সুস্ময়, ঋদ্ধি, রুদ্র,পলক, নোয়েল, এপোলো, প্রান্তিকা, প্রাঙ্গণ, সুপ্ত, স্বপ্নীল, ঐশর্য, সুজানা সাসমিকা, আদ্রিক, মেধা, স্কাইলা ও শান্ত বড়ুয়া।সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন ধরণের ভর্তা, দেশীয় সাদা ভাত, পান্তা ভাত, ইলিশ মাছ, ডাল, মাংস, মুড়ি ঘণ্ট, মিষ্টান্ন ইত্যাদি পরিবেশনে নৈশ ভোজ অনুষ্ঠিত হয় । 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ