যৌন হয়রানির শিকার ছাত্রীর আত্মহত্যা

July 7, 2017, 7:14 PM, Hits: 129

যৌন হয়রানির শিকার ছাত্রীর আত্মহত্যা

হ-বাংলা নিউজ:  ফরিদপুরের ভাঙ্গায় এবার স্কুলশিক্ষকের যৌন হয়রানির অপমান সইতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে মেধাবী এক স্কুলছাত্রী। বৃহস্পতিবার রাতে ওই ছাত্রী নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে। এতে এলাকাবাসী ও স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত শিক্ষক ও তার স্ত্রীর বিচার চেয়ে বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয়রা। এলাকাবাসী, জনপ্রতিনিধি, স্কুল শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানা রোডের জনৈক লিটু মোল্লার বাড়িতে বসবাস করতেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মনিরুজ্জামান ভুইয়া। বড় মেয়ে ভাঙ্গা পাইলট মডেল স্কুলের দশম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী হীরামণি তৃষ্ণাকে দীর্ঘদিন ধরে একই স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন। পরীক্ষায় বেশি নম্বর দেওয়ার কথা বলে হীরামণির সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলার চেষ্টা করেন আবুল কালাম। 

বিষয়টি হীরামণি তার বান্ধবীদের জানালেও পরিবারের সদস্যদের কাছে লজ্জায় বলতে পারেনি। শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ সম্প্রতি হীরাদের বাড়ি গিয়ে প্রাইভেট পড়াতেন। এ সুযোগে তিনি হীরামণিকে বিয়ের প্রস্তাবও দেন। যদিও ওই শিক্ষক বিবাহিত। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে আবুল কালাম হীরাদের বাড়িতে প্রাইভেট পড়ানোর সময় তার স্ত্রী মাহমুদা বেগম হীরার মা ও হীরাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং হীরাকে লাঞ্ছিত করেন। অপমান ও লাঞ্ছনা সইতে না পেরে অবশেষে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় হীরা। নিজ ঘরের ফ্যানের সঙ্গে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করে। স্থানীয়রা আরও জানান, হীরামণি ছোটবেলা থেকেই অত্যন্ত মেধাবী ছিল। কোনো ক্লাসেই সে প্রথম ছাড়া দ্বিতীয় হয়নি। পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। এ ঘটনার পরপরই স্কুলশিক্ষক আবুল কালাম তার পরিবার নিয়ে পালিয়ে যান। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান কাউসার ভুইয়া বলেন, আবুল কালাম শিক্ষক নামের কলঙ্ক। ভাঙ্গা মডেল পাইলট স্কুলের প্রধান শিক্ষক হায়দার আলী জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। ঘটনাটি মর্মান্তিক। ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আবদুল্লাহ জানিয়েছেন, এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ