প্রথম সৌরশক্তিচালিত রেলগাড়ি চালু হচ্ছে অস্ট্রেলিয়ায়

July 9, 2017, 9:35 AM, Hits: 111

প্রথম সৌরশক্তিচালিত রেলগাড়ি চালু হচ্ছে অস্ট্রেলিয়ায়

হ-বাংলা নিউজ: ভারতে এমন রেলগাড়ি রয়েছে যার অভ্যন্তরীণ বিদ্যুতের জোগান দেয় সৌরশক্তি। তবে পুরো ট্রেনটাই চলবে সৌরশক্তিতে, এমন রেলগাড়ি অস্ট্রেলিয়াতেই প্রথম।’ বলছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সৌরশক্তি পরিষদের প্রধান নির্বাহী জন গ্রিমস। অস্ট্রেলিয়ার বায়রন বেতে পৃথিবীর প্রথম সৌরশক্তিচালিত রেলগাড়ির নির্মাণের কাজ শুরু করেছে দেশটির ‘বায়রন বে রেলপথ’ নামের প্রতিষ্ঠান। প্রথাগত ওভারহেড পাওয়ার লাইন থেকে বিদ্যুৎ নিয়ে চালিত হওয়ার পরিবর্তে এই রেলগাড়ি চলবে সম্পূর্ণ সূর্যরশ্মি থেকে সংগৃহীত শক্তি দিয়ে। আগামী ডিসেম্বর নাগাদ শুধুমাত্র পর্যটকদের জন্য এই সৌরশক্তিচালিত রেলগাড়ি উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান।

প্রাথমিকভাবে দেশটির নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের বায়রন বে থেকে নর্থ বিচ পর্যন্ত তিন কিলোমিটার পথে যাত্রা করবে নতুন রেলগাড়িটি। সকাল ৮টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এই রেলগাড়ি মোট ১৪ বার আসা-যাওয়া করতে পারবে। নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের একজন মুখপাত্র জানান, দুই বছর আগেও রেলগাড়িটিতে ডিজেল ইঞ্জিন ব্যবহারের কথা ছিল। তবে প্রযুক্তির যথাযথ ব্যবহারের কথা চিন্তা করেই উন্নত সৌরশক্তির ব্যবহারের প্রযুক্তি জুড়ে দেওয়া হয় রেলগাড়িতে।

অস্ট্রেলিয়ার লিথগো রেলওয়ে ওয়ার্কশপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক টিম এন্ডারটনের (বাঁয়ে) সঙ্গে জেরেমি হোমস

তিনি আরও জানান, সৌরশক্তি সংরক্ষণে রেলগাড়ির ছাদে নমনীয় সৌর প্যানেল লাগানো হয়েছে। আর প্রতিটি ভাগে রয়েছে ৭৭ কিলোওয়াটের উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন ব্যাটারি। রেলগাড়িটি বায়রন বে থেকে উত্তর বায়রনে পৌঁছাতে ৩৩ কিলোওয়াট ব্যয় করবে বলেও জানান তিনি। এ ছাড়া প্রতিকূল আবহাওয়া বা জরুরি অবস্থায় বিদ্যুৎ থেকে ব্যাটারি পুনরায় চার্জ করা যাবে।

এ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বায়রন বে রেলপথের উন্নয়ন পরিচালক জেরেমি হোমস বলেন, এমনকি যদি সূর্যের আলো দীর্ঘক্ষণ নাও থাকে তবু গ্রিন পাওয়ার ব্যাটারি ব্যবহার করে মূল শক্তি থেকে চার্জ করা যাবে। এ ছাড়া জরুরি অবস্থা মোকাবিলার জন্য একটি ডিজেল ইঞ্জিন থাকবে রেলগাড়িটিতে।

সৌরশক্তি পরিষদের প্রধান নির্বাহী গ্রিমস আরও বলেন, সূর্য দ্বারা পরিচালিত একটি সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক রেলগাড়ি সত্যিই একটি চমৎকার প্রকল্প।

অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ার ইনস্টিটিউটের নবায়নযোগ্য শক্তি বিশেষজ্ঞ ড্যান কাস বলেন, এই প্রথম আমরা ট্রেনের কথা শুনেছি যেটা আক্ষরিকভাবে সৌরশক্তিচালিত।

রেল লাইনের সঙ্গে সৌর প্যানেল

তবে পর্যটক ছাড়া সাধারণ নাগরিকদের এই রেলগাড়ি কীভাবে সুবিধা দেবে এ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন শ্রমিক কাউন্সিলর পল স্পুনার। এ ছাড়া সরাসরি বিরোধিতা না করলেও অনেক স্থানীয়রাও শুধু পর্যটকদের জন্য চালু করা এই সৌরশক্তির রেলগাড়িকে নিয়ে খুব একটা আনন্দিত হচ্ছেন না। তবে স্পুনার কিংবা স্থানীয়দের এমন মনোভাব নিয়ে কোনো অভিব্যক্তি প্রকাশ করেনি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কেউ। তারা শুধু বলছেন, গতানুগতিক শক্তির উৎসের বাইরে গিয়ে পরিবেশবান্ধব ও কম দামের শক্তির কথাই এখন ভাবনার মূল বিষয় তাদের।

 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ