ব্রুকলিনে আন নূর মসজিদের বাহিরে নামাজ! ইমামের প্রতারনার বিরুদ্ধে মুসল্লীদের প্রতিবাদ

December 6, 2017, 7:02 PM, Hits: 96

ব্রুকলিনে আন নূর মসজিদের বাহিরে নামাজ! ইমামের প্রতারনার বিরুদ্ধে মুসল্লীদের প্রতিবাদ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : ব্রুকলীন: ব্রুকলীনে “মসজিদ নূর আল ইসলাম” এর সাবেক ইমাম গহুর আহমেদ (এধঁযধৎ অযসবফ) মসজিদের নাম পরিবর্তন করে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় মুসল্লীরা। গত ১ ডিসেম্বর শুত্রুবার জুমার নামাজের পর এক প্রতিবাদ সভায় এ অভিযোগ করেন তারা। প্রায় ৩ শতাধিক লোকের উপস্থিতিতে ইমামের এ অনৈতিক কাজের ক্ষোভ ও তীব্র নিন্দা জানিয়ে বক্তারা বলেন, ২০০১ সাল থেকে অদ্যবদি নানাহ কৌশলে মসজিদকে কুক্ষিগত করে রেখেছে ইমাম জহুর।  চৌতুর ইমাম “মসজিদ নূর আল ইসলাম”কে সেলার দেখিয়ে “ইসলাম কমিউনিটি ট্রাস্ট”কে বায়া’র করে মসজিদের নাম রেকর্ড করে নেয়। ইসলাম কমিউনিটি ট্রাস্ট এর মালিক ইমাম গহুর । তারা বলেন, ২০১৪ সালে মসজিদের অর্থ কেলেংকারীর দায়ে এ ইমামের বিরুদ্ধে স্থানীয় কোটে মামলা দায়ের করা হয়।

নিশ্চিত মামলা হেরে যাওয়ার ভয়ে তিনি (ইমাম) বর্তমান কমিটির কাছে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেন এবং গত ৮ আগষ্ট-২০১৭ মসজিদ কমিটির কয়েকজনকে মিশিগানে ডেকে নেয়। সেখানে বর্তমান কমিটির প্রেসিডেন্ট কামাল নাসের নিকট নোটারীর মাধ্যমে মসজিদ পরিচালনা কমিটির প্রেসিডেন্ট ও ইমামতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন।

গত ১২ আগষ্ট তিনি নিউইয়র্কে আসেন এবং মিশিগান শরীয়াহ বোর্ডের মোহাম্মদ আবু সালেহ এর উপস্থিতিতে মসজিদে নূর ইসলাম মিলনায়তনে বসে আনুষ্ঠানিকভাবে বর্তমান কমিটির নিকট চাবি এবং কিছু কাগজপত্র হস্তান্তর করেন। চৌতুর এ ইমাম মসজিদ তার দখলে আনার জন্য ৫ আগষ্ট ২০১৭ বিল্ডিং ডিপার্টমেন্টে মসজিদের ষ্ট্রাস্টিবোর্ড পরিবর্তনের দরখাস্ত দেন। যা পরবর্তীতে আমরা জানতে পারি। এতে প্রমাণিত হয় ৮ আগষ্টের আনুষ্ঠানিকতা ছিল গহুরের সাজানো নাটক। এ বিষয়ে তার কাছ থেকে জানতে চাইলে সে বলে আমি কার্যকরী কমিটি থেকে বিদায় নিয়েছি কিন্তু স্ট্রাস্টিবোর্ড থেকে নয়। এরই মধ্যে তিনি গত ২৩ নভেম্বর নিউইয়র্কে এসে কয়েকজন সিকিউরিটি নিয়ে মসজিদে প্রবেশ করেন। পরদিন ২৪ নভেম্বর শুত্রুবার নির্ধারিত সময়ের আগে অর্থ্যাৎ সোয়া বারটায় মুসল্লীরা আসার আগে কয়েবজনকে নিয়ে তাড়াতাড়ি নামাজ আদায় করে যাওয়ার পথে মসজিদ দেয়ালে একটা নোটিশ প্রদান করেন। এতে লেখা ছিল পরবর্তী নোটিশ না দেওয়া পর্যন্ত মসজিদ ভবন বন্ধ থাকবে। নোটিশ দেখে সেখানে উপস্থিত থাকা কয়েকজন মুসল্লী এর প্রতিবাদ করেন। এতে ইমাম গহুর তাদের প্রতি ক্ষিপ্ত হয় তাদেরকে অপমানিত করে এবং মসজিদের দরজায় নতুন তালা লাগিয়ে দেন। এ নোটিশের পর গত কয়েকদিন যাবৎ স্থানীয় মুসল্লীরা ঠান্ডায় মসজিদের বাহিরে নামাজ আদায় করছে। 

আল্লাহর ঘরকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলা বন্ধ রাখার আহবান জানিয়ে তারা বলেন, আল্লাহর ঘর কোন ব্যক্তি বিশেষের হতে পারে না। এটা সকলের। আল্লাহর ঘর রক্ষা করা দায়িত্ব প্রত্যেক মুসলমানদের ঈমানি দায়িত্ব । এক্ষেত্রে এলাকাবাসী সকল আরো সচ্চার হওয়া আহবান জানান তারা। প্রতিবাদ সভায় মুসল্লীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি কামাল নাসের, বায়তুল জান্নাহ মসজিদের সহ সভাপতি হেলাল উদ্দিন, বিআইসির সভাপতি সাইফুল আলম আজম, বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টারের সভাপতি হাজী আবুল হাশেম, কমিউনিটি নেতা মোহাম্মদ স্বপন। সভা পরিচালনা করেন মারুফ ।

             

 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ