বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরাম যুক্তরাষ্ট্র, সম্মেলন ২০১৭

December 14, 2017, 10:06 AM, Hits: 570

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরাম যুক্তরাষ্ট্র, সম্মেলন ২০১৭

প্রেস বিজ্ঞপ্তি , নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরামের ২০১৭-১৮ সালের কার্যকরী কমিটির কর্মকর্তাদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। গত ১০ নভেম্বর রোববার জ্যাকসন হাটসের হাট বাজার পার্টি হলে বার্ষিক সম্মেলন-২০১৭ ও ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে নয়া কমিটির। ১০১ সদস্য বিশিষ্ট ঘোষিত নয়া কমিটির সভাপতি প্রফেসর রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক গোলাম এন হায়দার মুকুট। ফোরামের প্রধান উপদেষ্টা একেএম রফিকুল ইসলাম ডালিমের সভাপতিত্বে এবং সাবেক সভাপতি  সারোওয়ার খান বাবুর পরিচালনায়  মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহেদ আলী মন্ডল, মুক্তিযোদ্ধা মশিউর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা হাজী নূরুল ইসলাম, শাহ মো: আফজাল হোসেনসহ আরো অনেকে। তিন পর্বে সাজানো অনুষ্ঠানের শুরতে ছিল সম্মেলন ২০১৭। 

এতে উপস্থিত সকল সদস্যদের প্রত্যক্ষ সমর্থনে আগ্রহি প্রার্থীদের অতীত কর্মকান্ড বিশ্লেষন করে প্রত্যেকটি পদের যোগ্যদেরকে নির্বাচিত করা হয়। প্রকাশ থাকে যে, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরামের বিগত চারটি কমিটির ধারাবাহিতা বজায় রেখে ২০১৭-১৮ সালের নতুন কমিটির কাজ সম্পন্ন করা হয়। কমিটি ঘোষণা শেষে রাফেল তালুকদার তার শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন, প্রবাসে বিএনপির রাজনীতির পরিপূরক জনমত সুসংহত করার অভিপ্রায়ে গত পাঁচ বছর ধরেই নিউইয়র্কে তৎপর রয়েছে এ ফোরাম। 

প্রকৃত পক্ষে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের কোন কমিটি না থাকায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরাম বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের সমস্ত কর্মকান্ড নিয়মতান্ত্রিকভাবে পরিচালনা করে যাচ্ছে। যে ফোরাম শহীদ জিয়ার আর্দশ ধারণ করে তারাই বিএনপি। সুতারাং জাতীয়তাবাদের আদর্শ গড়া কোন ফোরামকে বিএনপির বাহিরে বলার অপেক্ষা নেই। জাতীয়বাদী ফোরাম বিএনপির কোন কিছুৃ না বলে অপপ্রচার করে তারা শহীদ জিয়ার আদর্শ ধারণ করে কিনা এটা আমাদের সন্দেহ রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে জাতীয়তাবাদী চেতনা বিকাশে ফোরামই হচ্ছে একমাত্র সংগঠন। যেটি সাংগঠনিক সব রীতিনীতি মেনে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রেখে কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। বিগত দিন গুলো অনেক চড়াই ও উৎরাই এর স্বাক্ষী এ সংগঠন। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ফোরাম মানুষের অধিকার ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে প্রত্যেকটা কাজে অংশগ্রহন করছে। তিনি ফোরামের সকল স্তরের নেতৃবৃন্দকে উদ্বদ্ধ পরিস্থিতিতে ঐক্যবদ্ধভাবে থাকার পাশাপাশি সহমমির্তার মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে আসার আহবান জানান। 

২য় পর্ব ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নবনির্বাচিত সভাপতি প্রফেসর মো: রফিকুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম এন হায়দার মুকুট এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। এ পর্বে আগত অতিথিদের নিয়ে প্রথম বাংলাদেশ ও শেষ বাংলাদেশ সঙ্গীতের তালে তালে কেক কেটে ফোরামের ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার পর শেখ মুজিব রক্ষীবাহিনী সৃষ্টি করে বিরোধী কন্ঠকে স্তব্ধ করার চক্রান্ত করেছিলেন হত্যা ও নিপীড়ন চালিয়ে, যার চড়া মূল্য তাকে দিতে হয়েছে। আজ তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী একই নীলনকশার আওতায় দেশ থেকে গণতন্ত্রের নাম নিশানা মুছে দেয়ার গভীর ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছেন।  বক্তাগণ সরকারের কঠোর সমালোচনা করে বলেন, সরকার বিরোধী দলকে নিশ্চিহ্ন করে ফেলার অভিপ্রায়ে নজীর বিহীর দমন পীড়ন চালিয়ে যাচ্ছে, যার ফলে গণতন্ত্র চর্চা ব্যাহত হচ্ছে এবং দেশ নৈরাজ্যের চরমে উপনীত হয়েছে। তারা বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা, হুলিয়া প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে বলেন, তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা দেশে ৯০ ভাগ মানুষের প্রাণের দাবী। জনগণের দাবীকে অগ্রায্য করে সরকার পিছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসতে চায়। তারা বলেন, সরকারের এই অশুভ চক্রান্ত দেশ প্রেমিক মানুষ বাস্তবায়ন হতে দিবেনা। সভাপতির বক্তব্যে একেএম রফিকুল ইসলাম ডালিম বলেন, সরকার সব ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ব্যর্থ। তাই সরকারের বিরুদ্ধে দেশে সাধারণ যে দুর্বার আন্দোলন গড়ে  তুলেছে তা  মানুষ হত্যা করে সে আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী  বিক্ষুদ্ধ জনগণকে দাবিয়ে রাখা সম্ভব হবে না। তিনি বলেন,  শেখ মুজিব অত্যাচার চালিয়ে ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। তার উত্তরসূরী শেখ হাসিনা যে নিপীড়ন শুরু করেছেন, তার পরিণতিও একই ধরনের হবে। জনগণের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে অতীতেও কোন শাসক টিকে থাকতে পারেনি, এখনকার শাসকও গণবিরোধী ভূমিকা নিয়ে টিকে থাকতে পারবে না। তৃতীয় পর্ব ছিল মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বাংলা ব্যান্ডের শিল্পীরা।

নবনিবাচির্ত কমিটির সদস্যরা হলেন:

সভাপতি প্রফেসর মো: রফিকুল ইসলাম, সিনিয়র সহ সভাপতি মো: আশারাফুজ্জামান, সহ সভাপতি আবুল কাশেম সরকার, আব্দুল শালিক জাকির, মজিবুর রহমান, মাসুদ করিম মিলন, নূরুল ইসলাম আবু, আব্দুল মান্নান হোসাইন, আবুল কালাম লিটন, এম.ডি আব্দুল লতিফ খান, মোয়াজ্জেম হাসান কাজল, এস আই ঢালি, আব্দুল মান্নান দেলোয়ার, আবু বকর সিদ্দিক, জাঙ্গাহীর আলম জয়, মিজানুর রহমান মিজান, শাওন বাবলা, ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল লতিফ সরকার, খালিদ আহমেদ বাবু, মো: মনিরুল ইসলাম, এবিএম ইকবাল হোসেন, আব্দুর রব সরদার।  সাধারণ সম্পাদক গোলাম এন হায়দার মুকুট, সিনিয়র সহ সাধারণ সম্পাদক মো: মফিজুর রহমান, সহ সাধারণ সম্পাদক সুমন সরদার, আব্দুল মোমেন সোহেল, মো: আব্বাস উদ্দিন, মো: আবু বাকার সিদ্দিক, মো: তোফাজ্জল হোসেন, শামীম আহসান আকন্দ, জিএম সামসু উদ্দিন, ওয়াসিম খন্দকার, সুলতান মাহমুদ রাসেল, মো: ইকবাল আলম, মো: সরোয়ার জাহান জীবন, আব্দুল করিম (তানভীর), কামাল হোসেন, আবরার হানিফ ডাবলু, নূরে আলম, এসএম সফি, এমডি কবির হোসেন, মো: আরিফুল ইসলাম, মো: জহরাল ইসলাম তালুকদার, মাহবুব আলম, মো: এম হোসেন, মো: আমজাদ হোসেন, মহিদুল ইসলাম সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এম ডি ফরিদী, আকবর আলী আবদীন, মো: মান্নান হক, ফয়সাল উদ্দিন, মো: আনোয়ার হোসেন, মো: রাব্বী, কামরুল হাসান, অর্থ সম্পাদক সফিকুল সরকার (রকেট), প্রচার সম্পাদক মাঈন উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক মো: দেলোয়ার হোসেন, আইন বিষয়ক সম্পাদক ইমরান চৌধুরী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আবু জাফর ফরায়েজী, সমাজ কল্যান সম্পাদক নূর আলম হাসান, যুব বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম (লিপন), আন্তর্জাতিক সম্পাদক রাশেদ আল হেলাল, স্বনির্ভর সম্পাদক এ.কে আজাদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক সায়েমা সুলতানা, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ফাতেমা রহমান, সহ মহিলা সম্পাদিকা শিল্পী আক্তার, স্বেচ্ছাসেক বিসয়ক সম্পাদক সালমা হক, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আজমল হক, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, ধর্মবিষয়ক বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আবুল কালাম, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ শরীফুল হক, সমবায় বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, প্রকাশনা সম্পাদক জাকির হোসেন জেবিন, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মো: নীরব হক, বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী আল আমিন, মাববাধিকার বিষয়ক সম্পাদক রীলা, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মো: দেলোয়ার হোসেন। 

কার্যকরী সদস্য: জীবন সফিক, এ.কে মহসিন, মো: সেলিম, কাজী আবু নাসের, খলিলুর রহমান, এমডি আবু বকর, নাজিম খান, সো: সাঈদ উদ্দিন, মোহাম্মদ রাজা, মো: কামরুজ্জামান, রাউফুল ইসলাম খান, ফয়সাল, আল আমিন, আমজাদ হোসন, আব্দুল মান্নান, শাহিন হোসেন, মোহাম্ম সোহেল, মোহাম্মদ মতুর্জা, দেলোয়ার মজুমদার।

উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য:

প্রধান উপদেষ্টা: মুক্তিযোদ্ধা হাজী নূরুল ইসলাম, উপদেষ্টা: মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহিদ আলী মন্ডল, শেখ আনছার আলী, মিজানুর রহমান মিজান (দোহার), শাহ মো: আফজল হোসেন, ইমরান শাহ রন, মুক্তিযোদ্ধা মশিউর রহমান, ইশতিয়াক রুমি, অধ্যাপক ইলিম মো: নাজমুল হোসেন, মো: আবুল কাসেম, মতিউর রহমান লিটু, একেএম রশিদ, ড: জাকিরুল ইসলাম, ইখতেয়ারুজ্জামান রতন, ড: মতিউল হক, শহীদুল্লাহ পাটোয়ারী, ডা: দুলাল আহমেদ, মো: সোয়েব খান।

প্রতিষ্ঠাতা সদস্য:

রাফেল তালুকদার, প্রফেসর মো: রফিকুল ইসলাম, সারওয়ার খান বাবু, একেএম রফিকুল ইসলাম ডালিম।

উল্লেখ্য: কমিটির নাম আরো সংশোধিত হতে পারে। তা স্থানীয় মিডিয়ার মাধ্যমে পরবর্তীতে জানানো হবে।

       প্রেরক: মাঈন উদ্দিন, প্রচার সম্পাদক: ফোন:৩৪৭-২৩৩-৭৮০১

 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ