কন্তে-মরিনহো ‘চুলাচুলি’ চলছেই

January 6, 2018, 7:11 AM, Hits: 651

কন্তে-মরিনহো ‘চুলাচুলি’ চলছেই

হ-বাংলা নিউজ :   হোসে মরিনহো খুব কমই কাউকে ছেড়ে কথা বলেছেন। অনলবর্ষী কোচ হিসেবে তাঁর সুখ্যাতি-কুখ্যাতি দুটোই আছে। বিশ বছরেরও বেশি কোচিং ক্যারিয়ারে কার সঙ্গে কলহে জড়াননি! অ্যালেক্স ফার্গুসন, আর্সেন ওয়েঙ্গার, রাফায়েল বেনিতেজ থেকে লুই স্প্যালেত্তি কিংবা ক্লদিও রানিয়েরি। কথার লড়াইটা আপাতত আন্তোনিও কন্তের সঙ্গেই জমেছে মরিনহোর!

এফএ কাপে শুক্রবার তৃতীয় রাউন্ডে ডার্বিকে ২-০ গোলে হারানোর পর সংবাদ সম্মেলনে মরিনহো ধুয়ে দেন চেলসি কোচ কন্তেকে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ বলেন, ‘এই গল্পের (কলহ) শেষ টানতে আমি একটি কথাই বলতে চাই; হ্যাঁ, অতীতে টাচলাইনে আমি কিছু ভুল করেছি। এখন সেটা কমানোর চেষ্টা করব কিন্তু তারপরও হয়তো কিছু ভুল হবে। কিন্তু আমার ক্ষেত্রে যা কখনো ঘটেনি এবং ঘটবেও না, সেটা হলো, আমি কখনো ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে সাসপেন্ড হইনি।’

২০১০ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত ইতালিয়ান ক্লাব সিয়েনার কোচ ছিলেন কন্তে। এ সময় তাঁর বিপক্ষে ম্যাচ পাতানোর অভিযোগ উঠেছিল। ২০১২-১৩ মৌসুমে জুভেন্টাসের কোচ থাকাকালীন সেই অভিযোগ খণ্ডন করতে না পারায় চার মাসের জন্য সাসপেন্ড হয়েছিলেন ইতালিয়ান এ কোচ। তবে ২০১৬ সালে আদালত কর্তৃক কন্তে নির্দোষ প্রমাণিত হন। মরিনহো এসব জেনেই কন্তের প্রতি কথার শূলটা ছুড়েছেন। এরপরও সংবাদ সম্মেলনে এক গণমাধ্যমকর্মী মরিনহোকে কন্তের সেই অধ্যায় স্মরণ করিয়ে দিলে ইউনাইটেড কোচের পাল্টা প্রশ্ন, ‘সে এটা করেছিল? আমি নই।’

কলহের শুরুটা করেছিলেন মরিনহো নিজেই। কিছুদিন আগে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের কোচদের উদ্দেশ করে ইউনাইটেড কোচ বলেছিলেন, ডাগ আউটে তাঁদের আচরণ ‘পাগলাটে ও ভাঁড়দের মতো’। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম এ মন্তব্য লুফে নিয়ে তা চেলসি কোচ কন্তে ও লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের দিকে তাক করে। কারণ, ম্যাচের জমজমাট মুহূর্তে কিংবা শিষ্যরা গোল করলে এ দুই কোচই তাঁদের আবেগ সংবরণ করতে পারেন না।

কিন্তু কন্তে ছাড়বেন কেন? মরিনহোকে উল্টো তাঁর অতীত স্মরণ করিয়ে দিয়ে চেলসি কোচ বলেন, ‘আমার মনে হয় তাঁর নিজের অতীতে তাকানো উচিত। সে হয়তো তাঁর নিজের অতীত নিয়েই কথা বলছে।’ কথাটা মিথ্যে নয়। ইন্টার মিলান, চেলসি ও রিয়াল মাদ্রিদে থাকাকালীন বহুবার আবেগ সংবরণ করতে পারেননি মরিনহো। কখনো ভোঁ দৌড়ে জড়িয়ে ধরেছেন খেলোয়াড়দের। কখনো আবার মারমুখী ভঙ্গিতে ছুটে গেছেন রেফারি কিংবা ম্যাচ অফিশিয়ালদের প্রতি।

কন্তের সেই বাক্যবাণের জবাবে এবার তাঁর প্রতি ‘ম্যাচ পাতানো’র শূল ছুড়লেন মরিনহো। এখন জবাবে স্টামফোর্ড ব্রিজ থেকে কী ধেয়ে আসে, সেটাই দেখার বিষয়। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ