খালেদা জিয়ার কারাদন্ডঃ ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

February 11, 2018, 2:59 AM, Hits: 1638

খালেদা জিয়ার কারাদন্ডঃ ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

হ-বাংলা নিউজ, হলিউড থেকে:  ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র উদ্যোগে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভুয়া ও জাল নথির মাধ্যমে সাজানো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় সাজা প্রদানের নিন্দা জানিয়ে ও প্রিয় নেত্রীর নি:শর্ত মুক্তির দাবিতে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহষ্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের মেগাসিটি লস এঞ্জেলেসের প্রবাসী বাংলাদেশী অধ্যুষিত লিটিল বাংলাদেশ এলাকায় এ প্রতিবাদ সভা করা হয়। প্রতিবাদ সভায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা ছাড়াও সাধারন প্রবাসীরা উপস্হিত ছিলেন।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সভাপতি মোঃ আঃ বাছিত বলেন, আমরা অত্যন্ত ঘৃণার সঙ্গে এই রায়কে প্রত্যাখ্যান করছি। আমরা মনে করি, এই রায় দেশের বর্তমান রাজনৈতিক সংকট আরো ঘনীভূত করবে এবং মানুষের এই বিচার ব্যবস্থার ওপর আস্থা চলে যাবে। বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী, যিনি দীর্ঘ ৯ বছর গণতন্ত্রের পক্ষে স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছেন, লড়াই করেছেন এবং জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে তিনবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন, দুইবার বিরোধীদলের নেতা হয়েছেন এবং বহুদলীয় সংসদীয় গণতন্ত্র প্রবর্তন করেছেন। এই জনপ্রিয় নেত্রীকে এই গণবিচ্ছিন্ন অবৈধ সরকার রাজনীতি ও আসন্ন নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্য ভুয়া ও মিথ্যা মামলা  তৈরি করে নথি তৈরি করে তাকে সাজা দিয়েছে।

যা এদেশের জনগণ কোনোদিনই মেনে নিবে না। ইতিমধ্যেই তা প্রত্যাখ্যান করে রাজপথে নেমে এসেছে সর্বস্তরের জনগণ। আমরাও প্রবাস থেকে অত্যন্ত ঘৃণার সঙ্গে এ রায় প্রত্যাখ্যান করছি।ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা পরিকল্পিত। গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী রায়ের আগেই তার জন্য কারাগারে জায়গা ধোয়া মোছার কাজ হয়েছে। আর ৬৩২ পৃষ্ঠার রায় মাত্র ১০ দিনে কী করে লেখা সম্ভব? যারা লুটপাট করেছে, তাদের খবর নেই, অথচ নিরপরাধ সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে কারাগারে নেয়া হয়েছে।

দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুর্শেদুল ইসলাম বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে সরকার ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজানো রায়ে ৫ বছরের জেল দিয়েছে। এ রায় বিএনপি প্রত্যাখ্যান করেছে। সেই সাথে দেশনেত্রীর কারামুক্তি না হওয়া পর্যন্ত নেতাকর্মীদের যার যার অবস্থান থেকে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন-সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হবে।ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান শাহীন বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়ায় বাংলার মানুষের রক্তক্ষরণ হচ্ছে। প্রতিটি মানুষ ব্যথায় কাতর হয়ে পড়েছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ৯ বছর আন্দোলন করে গণতন্ত্র রক্ষা করেছেন।

স্বৈরাচারী এরশাদের পতন ঘটিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী হন। কিন্তু খুনি শেখ হাসিনা স্বৈরাচার পতনের আন্দোলনে এরশাদের সাথে আঁতাত করে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে বাংলাদেশের মানুষের সাথে বেঈমানি করেছিলেন। সেই বেঈমান ও দুর্নীতিবাজ বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার স্বার্থ হাসিল করার জন্য মিথ্যা মামলা সাজিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠিয়েছেন। বেগম খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা দেখে এই সরকার হিংসাপরায়ণ হয়ে পড়েছে। তিনি এই বেঈমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পতনের ডাক দিয়ে বক্তব্য শেষ করেন।ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ খান দুদককে চ্যালেঞ্জ করে বলেন, খালেদা জিয়ার কোনো দুর্নীতি নাই। তিনি অনতিবিলম্বে বিএনপিসহ এর অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের ওপর চাপানো মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানান। সেইসাথে তিনি শেখ হাসিনার পতনের জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।

বেগম জিয়ার রায়ের নিন্দা জানিয়ে ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি আয়োজিত এ প্রতিবাদ সভায় উপস্হিত ছিলেনঃ মোঃ আঃ বাছিত, বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু, সৈয়দ দেলোয়ার হোসেন দিলির, নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন, খন্দকার আলম, আবুল ইব্রাহিম, মুর্শেদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান শাহীন, সালাম দাঁড়িয়া, মানিক চৌধুরী, মাতাব আহমদ, আব্দুল হাকিম, মিশর নুন, আবু তাহের সাজু, এ আর মাহবুবুল হক, মুরাদ হামিদ খান সানী, সাইদ আবেদ নিপু, ফারুক সরকার, খন্দকার তসলিম, মোঃ সামছুল ইসলাম, জহিরুল কবির হেলাল, মোঃ শাহজাহান, হাসানুজ্জামান মিজান, বাদল, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল, মারুফ খান, ইলিয়াস মিয়া, লায়েক আহমেদ, বদরুল আলম মাসুদ, শাহীন হক, শাহতাব কবির ভূঁইয়া শান্ত, নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, হোসেন আহমেদ, রেজাউল হায়দার চৌধুরী, হুমায়ুন কবির, মিজানুর রহমান, খসরু রানা, শাহানুর কবির ভুঁইয়া শুভ্র, আজমউদ্দিন চৌধুরী দুলাল, সুমেন আহমেদ, রেজাউল করিম জামিল,

জুয়েল আহমেদ, কামরুল হাসান তরুন, মিকায়েল খান রাসেল, খায়রুল ইসলাম, তানভীর আহমেদ, জাভেদ বখত্ , আবদুল মোতালেব, আলতাফ হোসেন, আহসান আহমেদ, মিল্টন খান, ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, ফয়সল হোসেন সিদ্দিক, আমজাদ হোসেন, খোরশেদ আলম রতন, জিল্লুর রহমান চৌধুরী, তারেক খান, রওনক সালাম, তাসনুভা বেগম, রুহুল আমিন বাবু, সাজ্জাদ পারভেজ, হেলাল মজুমদার, ইসলাম উদ্দিন, শাহেদ আহমেদ, সিদ্দিক আহমেদ, জুনেল আহমেদ, মোঃ গোলাম সারোয়ার হোসেন, ইলিয়াস শিকদার, আবুল বাশার, আবদুল আহাদ, আবদুল হাকিম, কামরুল আলম চৌধুরী, গিয়াস আহমদ, মজিবর রহমান, ফখরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মোঃ শামীম উদ্দিন, আবদুল মুনিম, আশিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আবদুল হাসিব বাবুল, আবদুল কাদির, মাঈনুল আহমেদ, রিপন চৌধুরী, এড. নুরুল হক, জামিল আহমেদ, মোঃ রহমান রফিক, সফিকুল ইসলাম পলাশ, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মুকুল, আবদুল্লাহ আল ফরহাদ, এনাম চৌধুরী, মোঃ আলম খোকন, সৈয়দ আলী আক্তার, রফিকুল আলম চৌধুরি প্রমুখ। 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ