একটি আকুল আবেদন-আসুন একটি ঘন্টা প্রতিবাদের বিনিময়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে মুক্ত করে আনি

February 12, 2018, 9:58 AM, Hits: 402

একটি আকুল আবেদন-আসুন একটি ঘন্টা প্রতিবাদের বিনিময়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে মুক্ত করে আনি

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক মিথ্যা মামলায় বাংলাদেশের অনির্বাচিত স্বৈরাচারী সরকার হটকারী সাজা দিয়ে কারান্তরীণ করেছে। জেলেও তাকে যথাযত মর্যাদা না দিয়ে মানসিক নির্যাতন করা হচ্ছে। আদালতের কার্যদিবসে স্বাক্ষীদের স্বাক্ষেও তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ প্রমান হয়নি। সরকার তাকে মামলায় জড়াতে বিভিন্ন জাল ডকুমেন্ট তৈরী করে সাজা দিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে তৎপর।

২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি বিনাভোটে নির্বাচনের পর সরকারের লোভ বেড়ে গেছে। গুম-খুন-হামলা-মামলা-জেল-জুলুমের মধ্য দিয়ে দেশ থেকে বিরোধী দল নিধন করে বাংলাদেশ আজ একদলীয় বাকশালের পথে। দেশে যেমন গণতন্ত্র নেই, পাশাপাশি গণতন্ত্রের পিলার গুলো ধ্বংসে সরকার অতীব তৎপর। মানবধিকার লঙ্ঘন, মিথ্যা মামলা, কাল আইন হচ্ছে প্রতি নিয়ত। সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা, বিচার-বিভাগের স্বাধীনতা আজ সুদূর পরাহত। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের আওয়ামীলীগের লাঠিয়াল হিসেবে ব্যবহার করে গুম-খুন-নির্যাতনের মধ্য দিয়ে জনসাধারণকে দাবিয়ে রাখা হচ্ছে। তারা ভুলে গেছে ৭১ এর হানাদার বাহিনীও এই জাতিকে দাবিয়ে রাখতে পারেনি। 

সরকারের মন্ত্রী পরিষদ থেকে শুরু করে আওয়ামীলীগের প্রতিটা নেতা-কর্মী দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন। প্রতিদিন হাজার হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে ব্যাংক লুটের খবর আসছে। স্বয়ং অর্থ মন্ত্রী বলেছেন বারাকাত সাহেব ব্যাঙ্ক থেকে হাজার কোটি টাকা খেয়ে ফেলেছেন। তবুও তাকে গ্রেফতার করা হয়নি। প্রশ্নপত্র ফাঁসে শিক্ষাব্যবস্থা আজ ধ্বংসের মুখে। শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, তিনি সহ মন্ত্রিসভার অনেকেই চোর। উল্টাপাল্টা ফ্লাই ওভার বানিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি করছে আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা। প্রতিদিন উন্নয়নের নাম ফলক উন্মোচন করে দুর্নীতির মহোৎসবের উদ্বোধন করে দিচ্ছেন অবৈধ অনির্বাচিত স্বৈরাচারী প্রধানমন্ত্রী। 

তিনি খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তায় ভীত। তার উপর কালিমা লেপন করে জেলে ঢুকিয়ে তিনি বিরোধী দলবিহীন নির্বাচনে আবারো প্রধানমন্ত্রী হবার স্বপ্ন দেখছেন।এক মাত্র আমরাই পারি এই দূর পরবাস থেকে এই একটি দিন একটি ঘন্টা বাংলাদেশের কনসুলেটের সামনে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করে আমাদের বাংলাদেশকে বাঁচাতে। এক নদী রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই বাংলাদেশের গণতন্ত্র বাঁচাতে, গণতান্ত্রিক নির্বাচনে তিন তিনবার নির্বাচিত সাবেক প্রধান মন্ত্রীকে তার প্রাপ্য ন্যায় বিচার পাইয়ে দিতে।আসুন আগামী ১৩ই ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় বাংলাদেশ কনসুলেটের সামনে- আমাদের রক্তের বিনিময়ে নয়, শুধুমাত্র একটি ঘন্টা প্রতিবাদের বিনিময়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে মুক্ত করে আনি আর জাতিকে উপহার দেই একটি সহনশীল-উন্নয়নশীল গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ।

নিবেদক- আহবায়ক 

ফ্রি খালেদা জিয়া-রিভাইভ ডেমোক্রেসী এক্টিভিস্ট 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ