গ্রিসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

February 23, 2018, 9:57 AM, Hits: 393

গ্রিসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

হ-বাংলা নিউজ,  ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে গ্রিসের বাংলাদেশ দূতাবাসে মহান শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। একুশের প্রথম প্রহরে গ্রিসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন এথেন্স শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত কুমুদ্রু পার্কে বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিসের উদ্যোগে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। 

পুষ্পস্তবক অর্পণের সময় প্রবাসী বাংলাদেশিদের সমবেত কণ্ঠে গাওয়া ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’গানটি সমগ্র কুমুদ্র পার্কে অনুরণিত হয়। এরপর গ্রিসের বাংলাদেশ কমিউনিটি এবং এথেন্সে বসবাসরত রাজনৈতিক, ব্যবসায়ী, সামাজিক, দোয়েল এবং দোয়েল একাডেমী শিশুরা ও জেলা ভিত্তিক আঞ্চলিক সংগঠনসমূহ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। কুমুদ্র পার্কে রাত ১২টার সময় শত শত বাংলাদেশিদের স্বতঃর্স্ফুত অংশগ্রহণ পার্কে বয়ে আনে এক প্রাণচঞ্চল পরিবেশ।

একুশে ফেব্রুয়ারি দিনভর দূতাবাস প্রাঙ্গণে কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন। দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও এথেন্সে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার পর শহীদদের আত্মার মাগফিরাত এবং দেশের উত্তরোত্তর উন্নয়ন কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। মহান একুশে এবং আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উপলক্ষে দূতাবাস প্রাঙ্গণে সকাল থেকেই মহান ভাষা আন্দোলন বিষয়ক ও দেশাত্ববোধক সংগীত পরিবেশিত  হয়। 

বিকেলে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত এবং পবিত্র গীতা পাঠের মধ্য দিয়ে দূতাবাসের অনুষ্ঠান সূচির দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়। ভাষা শহীদদের স্মরণে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রেরিত বাণী পাঠ করা হয়।

এ বছর অমর একুশে এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে দূতাবাসের উদ্যোগে নির্মিত হয়েছে একটি  ইংরেজি গানের ভিডিও। গানের শিরোনাম ‘মাদার ল্যাংগুয়েজ ডে’। গানটি লিখেছেন গ্রিসে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব সুজন দেবনাথ এবং সুর ও কণ্ঠ দিয়েছেন গ্রিক শিল্পী স্টাভরোস পাপাস্টাভরো। গ্রিক শিল্পীর সঙ্গে সহশিল্পী হিসেবে কণ্ঠ দিয়েছেন নিবেদিতা নাথ, ক্রিস মারাগোডাকিস এবং জো মাইলোগ।   আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের উপর সম্ভবত এটিই প্রথম ইংরেজি গান।  রাষ্ট্রদূত জসীম উদ্দিন আনুষ্ঠানিকভাবে ভিডিওটির মোড়ক উন্মোচন করেন। এথেন্সে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে এবং একজন প্রবাসী বাংলাদেশির সহযোগিতায় গ্রিক একজন নাগরিক গত এক বছর ধরে বাংলা ভাষা শিখছেন। অমর একুশের অনুষ্ঠানে গ্রিক নাগরিক বাংলায় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটির প্রথম কয়েকটি চরণ লিখে ও গেয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেন। 

এরপর দিবসটির তাৎপর্যের ওপর আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বক্তারা একুশের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে মহান একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ গড়ার কাজে একযোগে কাজ করার উপর জোর দেন এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের চেতনা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানান। আলোচনায় অংশ নিয়ে রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন তার বক্তব্যে গভীর শ্রদ্ধার সাথে ভাষা আন্দোলনের শহীদদের অমূল্য ভূমিকা এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বের কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন।

তিনি বলেন, কয়েকজন প্রবাসী বাংলাদেশির উদ্যোগে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বতঃস্ফূর্ত আগ্রহ ও ঐকান্তিক উদ্যোগের ফসল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পৃথিবীর শতাধিক দেশ পালন করছে। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে অবদান রাখার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের ঐক্যের উপর জোর দেন। 

এরপর বাংলাদেশ দূতাবাস পরিবার, শিশু-কিশোর ও স্থানীয় বাংলাদেশি সংগঠন দোয়েল ও দোয়েলএকাডেমীর অংশগ্রহণে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে একুশের কবিতা, ছড়া, আবৃত্তি, নৃত্য এবং সংগীত পরিবেশন করা হয়। মহান একুশের অনুষ্ঠানে দূতাবাসে উপস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে।

এ ছাড়া, রাষ্ট্রদূত দূতাবাসের ক্রিকেট কূটনীতিকে সামনে এগিয়ে নিতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সৌজন্যে প্রাপ্ত দুটি ক্রিকেট সামগ্রীর সেট গ্রিসে বসবসকারী ক্রিকেট অনুরাগী বাংলাদেশি তরুণদের হাতে দূতাবাসের উপহার হিসেবে তুলে দেন । 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ