ড্রিমার্সরা নিউইয়র্কের বাসিন্দা, তাঁরা ‘নিউইয়র্কার্স

March 10, 2018, 12:58 AM, Hits: 441

ড্রিমার্সরা নিউইয়র্কের বাসিন্দা, তাঁরা ‘নিউইয়র্কার্স

হ-বাংলা নিউজ :  ড্রিমার্স বা স্বপ্নচারীরা নিউইয়র্কের বাসিন্দা, তাঁরা ‘নিউইয়র্কার্স’—এমন মন্তব্য করেছেন নিউইয়র্ক নগরের অ্যাটর্নি জেনারেল এরিক সেসিন্ডারম্যান। নিউইয়র্কের ড্রিমার তথা শিশুকালে বাবা-মায়ের সঙ্গে আমেরিকায় এসেছেন, ডাকা কর্মসূচির অধীনে নিউইয়র্ক তথা আমেরিকাতে বসবাস করছেন—এমন অভিবাসীদের পক্ষে ৬ মার্চ এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

শিশুকালে অবৈধভাবে আসা বাবা-মায়ের সঙ্গে আমেরিকায় এসে এখানেই বড় হয়েছেন, তারা ‘ড্রিমার’ হিসেবে পরিচিত। বর্তমানে নিউইয়র্কে ৪২ হাজার ড্রিমার অভিবাসী রয়েছেন। এরা সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ডাকা কর্মসূচির অন্তর্ভুক্ত। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত বছর সেপ্টেম্বরে ডাকা কর্মসূচির পরিসমাপ্তি ঘোষণা করেন। ডাকা কর্মসূচি বাতিল হলে আমেরিকায় বড় হওয়া প্রায় আট লাখ ড্রিমার অভিবাসীর ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়বে।

ট্রাম্পের ওই ঘোষণার পর সেসিন্ডারম্যানসহ আরও ১৫ জন ডাকা কর্মসূচি অব্যাহত রাখার জন্য অ্যাটর্নি জেনারেল যৌথভাবে আদালতের মামলা করেন। আদালত চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ট্রাম্পের ঘোষণার ওপর স্থগিতাদেশ দেন।

স্বপ্নচারী অভিবাসীদের সমর্থনে এক বিবৃতিতে সেসিন্ডারম্যান বলেন, ‘ড্রিমাররা নিউইয়র্কার্স’ (নিউইয়র্কের বাসিন্দা)। ‘তারা এ দেশে থাকার যোগ্য। ওয়াশিংটন যদি তাদের অস্বীকার করে, আমরা তাদের জন্য আদালতে আইনি লড়াই অব্যাহত রাখব।’ 

আদালতের সিদ্ধান্তের পর সেসিন্ডারম্যান অনলাইনে নতুন ভিডিও ছাড়েন, যাতে বেড়ে ওঠা অভিবাসীদের ড্রিমার হিসেবে অভিহিত করা হয়। এ ভিডিওতে ড্রিমাররা তাদের কাহিনি বর্ণনা করেন। 

ড্রিমার রিকাডো অ্যাকা ট্রাম্প সোহো হোটেলের সাবেক কর্মচারী ছিলেন। ভিডিওতে তিনি বলেন, ‘ডাকার কারণে আইনসংগতভাবে ট্রাম্পের একটি হোটেলে চাকরি পেয়েছিলাম। আমি আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, আমি নিজে অভিবাসী হয়েও নিউইয়র্কের মতো নগরকে সচল রাখছি। আমাদের যা দরকার তা হলো আপনাদের সমর্থন এবং প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া, যাতে আপনারা ট্রাম্প প্রশাসন থেকে আমাদের রক্ষা করতে পারেন।’ 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ