এডমন্টনে ঈদ ও স্মৃতিকাতরতা

June 18, 2018, 8:26 AM, Hits: 558

এডমন্টনে ঈদ ও স্মৃতিকাতরতা

এডমন্টন, আলবার্টা, কানাডা (রাজীব এস হাসান): সারা কানাডায় অর্থনৈতিকভাবে সফলতায় শীর্ষে অভিবাসীদের লক্ষ্য স্থান এডমন্টন ও ক্যালগেরীতে ঈদের আনন্দ নানা কারনে বেশ ব্যতিক্রম ।১৫ জুন শুক্রবারে ঈদ-উল-ফিতর অর্থাৎ তা একটি কার্য্যদিবসে হওয়ায় অনেককেই ঈদের দিনেও কাজ করতে হয়েছে। তারপর ও ঈদানন্দে উৎসবমুখর ছিলো এডমন্টন।

এডমন্টনের নর্থল্যান্ডস এক্সপো সেন্টারে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে কানাডিয়ান পার্লাম্যান্ট  সদস্য সহ স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ কমিউনিটির উল্লেখযোগ্য মানুষ সেখানে ঈদের জামাতে অংশ নেন।

বাংলাদেশ কানাডা হেরিটেজ সোসাইটি অফ এডমন্টন এর স্পেশাল প্রজেক্ট কমিটির চেয়ারপার্সন ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কানাডা ইউনিট কমান্ডের নির্বাহী বিশিষ্ট সাংবাদিক দেলোয়ার জাহিদ আল আমীন মসজিদে নামায আদায় করেন।

এছাড়া প্যালেস ব্যানকোয়েট, সাহাবা মসজিদ সহ কয়েকটি ছোট্র পরিসরেও ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।জামাত শেষে আল্লাহ যেন সমস্ত উপবাস এবং প্রার্থনা গ্রহণ করেন এবং সারা বিশ্বে শান্তি এনে দেন এর জন্য দোয়া করেন।

বাঙ্গালীদের দীর্ঘদিনের আবাসস্থল এডমন্টনে অভিবাসী সমাজ সামাজিক ও পারিবারিক পরিমন্ডলে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ার জাহিদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন বাংলাদেশ কানাডা এসোসিয়েশন অফ এডমন্টনের সাবেক সভাপতি কাজী আওরঙ্গজেব, ম. লস্কর, হেরিটেজ সোসাইটির ফয়সল ভুইয়া, মু. আলী, এমজেএমএফ বাংলাদেশ স্পোর্টস ক্লাব সভাপতি আহসান উল্লাহ, আব্রারুল মান্নান সান, খায়রুল রবীন, জুলফিকার আহমেদ, রাশেদুল চৌধুরী, জহির, মির্জা বশীর ও এডভোকেট আলী আহমেদ। মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ারকে কমিউনিটির আরো যারা শুভেচ্ছা জানান তারা হলেন কাউসার খন্দকার, হায়দারজান চৌধুরী, সাইফুদ্দিন খালেদ, তানভীর, জাহিদুর রহমান, আনামুর রহমান এবং পেশাজীবি নারী সমাজের কজন প্রতিনিধি।

বাঙালিদের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং দৈনিক প্রথমআলো সহ কয়েকটি মিডিয়ার বদৌলতে এডমন্টন এখন বেশ সুপরিচিত।  প্রতি বছরই প্রবাসীদের আনন্দের মাত্রা বাড়ছে। হাজারো বাঙালি এখন কানাডার এডমন্টনে  বাস করে। কানাডার পরিসংখ্যানে এডমন্টনে প্রবাসীদের সাফল্যের চিত্র ফুটে উঠেছে।

ঈদ আড্ডায় পরিবারগুলো মেতে উঠেছিল নানা ভাগে। আর মেয়েরা ব্যস্ত ছিল রান্নাবান্না ও সাজগোছে । সিটিতে বসেছিল অস্থায়ী ঈদ বাজার। পার্কে পার্কে শিশুকিশোরদের জন্য খেলাধুলার নানা আয়োজন।

আধুনিক প্রযুক্তির ছোয়ায় স্বজনদের সাথে যোগাযোগ হয়তো সহজ হয়েছে কিন্তু তাদের কাছে না পাওয়ার বেদনা প্রবাসীদের মনকে উতলা করে তুলে যেকোন উংসব আনন্দে। তারপর তাদের কাছে ক্ষনিকের সুখটুকু স্মৃতি হয়ে থাকে সারাটি বছর।

ঈদের অনুষ্ঠানের কটি দৃশ্য …..। 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ