ইমরান খানকে জয়ী করতে হস্তক্ষেপ, অস্বীকার সেনাবাহিনীর

July 12, 2018, 8:20 PM, Hits: 81

ইমরান খানকে জয়ী করতে হস্তক্ষেপ, অস্বীকার সেনাবাহিনীর

হ-বাংলা নিউজ :  আগামী জাতীয় নির্বাচনে ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন দলকে জয়ী করার চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করেছে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। সেনবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর রাওয়ালপিন্ডিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

২৫ জুলাই অনুষ্ঠেয় নির্বাচন ‘স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষভাবে’ অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ভোটের দিন সারা দেশে প্রায় ৩ লাখ ৭১ হাজার সেনা মোতায়েন করা হবে বলেও পাকিস্তান সেনাবাহিনী জানিয়েছে। 

পাকিস্তানের আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে দেশটির প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে, সেনাবাহিনী পাকিস্তানের রাজনীতিতে হস্তক্ষেপ করছে। তারা এ কাজে গণমাধ্যমকে এমনভাবে ব্যবহার করছে, যেন ইমরান খানের দলকে ভোটে জয়ী করে সরকার গঠন করতে সহায়তা করছে।

সেনাবাহিনী ইমরান খানের দলকে জিতিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে আসিফ গফুর বলেন, ‘আমাদের কোনো রাজনৈতিক দল নেই। আমরা কারও আনুগত্য করি না।’

পাকিস্তানের সেনবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর রাওয়ালপিন্ডিতে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন।  ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের সেনবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর রাওয়ালপিন্ডিতে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন। ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগের পরই সেনা মুখপাত্র সংবাদ সম্মেলন করলেন।

সেনাবাহিনীর সঙ্গে ইমরান খানের দলের আঁতাতের অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসিফ গফুর জানান, আসন্ন নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রগুলোর ভেতরে ও বাইরে ৩ লাখ ৭১ হাজার ৩৮৮ জন সৈন্য মোতায়েন থাকবে। ২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত ভোটে মোতায়েন সেনার চেয়ে এ সংখ্যা তিন গুণ বেশি। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের অনুরোধে সাড়া দিয়ে সেনাবাহিনী আসন্ন ভোটের সময় সেনাবাহিনী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ইমরান খান সেনাবাহিনীর সঙ্গে তাঁর দলের আঁতাতের অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন।

পাকিস্তানের ইতিহাসের প্রায় অর্ধেক সময় সরাসরি শাসনক্ষমতা হাতে রেখেছে দেশটির সেনাবাহিনী। টেলিগ্রাফ ও জিও টিভি। 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ