নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের আজকের এই সংবাদ সম্মেলনে

September 9, 2018, 4:55 PM, Hits: 159

 নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের আজকের এই সংবাদ সম্মেলনে

হ-বাংলা নিউজ :  প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগন, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের আজকের এই সংবাদ সম্মেলনে  আপনাদেরকে স্বাগত জানাচ্ছি। দল পরিচালনায় আপনাদের সহযোগিতার জন্য আপনাদের প্রতি আমরা গভীর ভাবে কৃতজ্ঞ। আশাকরি ভবিষ্যতেও আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগন,আপনারা নিশ্চয় অবগত আছেন নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ জননেত্রী শেখ হাসিনার নিজ হাতে গড়া সংগঠন। এটি গঠনের উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভাতৃপ্রতিম সংগঠন হিসেবেনিউইয়র্ক মহানগরীতে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং আমেরিকার মূল ধারায় আওয়ামী লীগ সরকারের সাফল্য তুলে ধরা। সে উদ্দেশ্যে আমরা নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্য নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী দলের পদ পদবী নিয়ে বছরের অধিকাংশ সময় বাংলাদেশে অবস্থান করে বিভিন্ন তৎবির বানিজ্যে লিপ্ত রয়েছেন। মাঝে মধ্যে নিউইয়র্কে এসে দলের হাই কমান্ডের নাম ভাঙ্গিয়ে দলের ভিতর বিভক্তি সৃষ্টি করে ব্যক্তিগত ফায়দা লুটার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন। এই সব কাজে তাকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন তারই মত আর এক ধান্দাবাজ ও সুবিধাবাদী ড. সিদ্দিকুর রহমান। তিনিও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব নিয়ে বছরে প্রায় ৯মাস বাংলাদেশে অবস্থান করে তদবির, বদলী বানিজ্য ও বিভিন্ন ব্যাবসা বানিজ্য ভাগিয়ে নেওয়া সহ নিজের আখের গোছাতে ব্যস্ত থাকেন। অথচ যে উদ্দেশ্যে তাকে মাননীয় সভানেত্রী যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মহান দায়িত্ব দিয়েছিলেন সেটি পালনে উনি সম্পূর্ণ রূপে ব্যর্থ হয়েছেন। বরং দলের ভিতরে ঘাপটি মেরে থেকে দলের বিরুদ্ধে একর পর এক কাজ করে চলছেন। যার প্রমান সম্প্রতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব সজীব ওয়াজেদ জয়ের একটি ফেইসবুক স্টেটাসে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর বিরুদ্ধে একটি বই প্রকাশের জন্য সাবেক প্রধান বিচারপতি এস.কে সিনহা ও ড. কামাল হোসেন, মীর মাছুম আলী ( মীর কাশেমের ভাই) ও তাদের সহযোগি হিসেবে নিউইয়র্কে যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেম আলীর অর্থায়নে পরিচালিত টাইম টেলিভিশন ও বাংলা পত্রিকার সম্পাদক আবু তাহেরের নাম উঠে এসেছে। যিনি অতিতেও বঙ্গবন্ধু পরিবার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যড়যন্ত্রকারী হিসাবে প্রমানিত হয়েছে। এই আবু তাহেরের সাথে সিদ্দিকুর রহমানের গোপন প্রম সকলের কাছে পরিষ্কার ও প্রমানিত। সম্প্রতি সিদ্দিকুর রহমান হাসপাতালে ভর্তি হলে সেখানেও তাহের ও তার প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তা ইলিয়াস খসরুর সাথে গোপন বৈঠকে মিলিত হন। সম্প্রতি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সংবধনায় বিজ্ঞাপনটিও প্রথমে বাংলা পত্রিকাতে প্রকাশিত হয়। এছড়া বাংলা পত্রিকা ও টাইম টেলিভিশনের শীর্ষ কর্মকর্তা ইলিয়াস খসরুকে মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন বলে দাবী করেছেন সিদ্দিকুর রহমান ও ইমদাদ চৌধুরী গংরা। অন্যদিকে সাবেক যুবদল কর্মী সাইকুল ইসলাম কে মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি হিসেবে বিভিন্ন জায়গায় পরিচয় করে দেওয়ার প্রমান পাওয়া গেছে। (ছবি সংযুক্ত) এই ভাবে সিদ্দিকুর রহমান ও ইমদাদ চৌধুরী গংরা দলকে ধংস করে চলেছেন যার সর্বশেষ উদাহরন নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক ৯নং সহ সভাপতি যিনি বিগত সাত বছরে দলের কার্যক্রমে সম্পূর্ন অনুপস্থিত থাকায় তাকে বহু আগে গঠনতান্ত্রিক ভাবে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। অথচ সিদ্দিকুর রহমান দলের গঠনতন্ত্রের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে এই সুবিধাবাদী রফিকুর রহমান কে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলে বিভিন্ন জাগায় পরিচয় করে দিচ্ছেন । তাই আজকের এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন জানাচ্ছি অভিলম্বে এই বর্নচোরা দলের শত্রু সিদ্দিকুর রহমান ও এমদাদ চৌধুরীর মত প্রতারকদেরকে দল থেকে অপসারন করে মেয়াদ উত্তিন্ন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ,নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ, স্টেট আওয়ামী লীগসহ প্রতিটি সংগঠনের নতুন কমিটি গঠনের জোর দাবী জানাচ্ছি। আমরা বলতে চাই মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর আসন্ন যুক্তরাষ্ট্র সফরকে সাফল ও সার্থক করে তোলার জন্য নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ ও এর আওতাভুক্ত প্রতিটি বরো ও ইউনিট কমিটি একযোগে কাজ করে যাচ্ছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেখানে যাবেন সেখানে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা নেত্রীর পাশে ভ্যানগার্ড হিসেবে অবস্থান করবেন। জামাত বিএনপি ও দলের অভ্যন্তরে ঘাপটি মের থাকা ষড়যন্ত্রকারীদের যে কোন অপতৎপরতা মোকাবেলা করতে প্রস্তুত থাকবে। আপনাদের সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আজকের সংবাদ সম্মেলনের সমাপ্তি ঘোষনা করছি। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু নিবেদক জাকারিয়া চৌধুরী ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ নূরুল আমিন বাবু যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দলীয় মুখপাত্র নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ আল্লাহ সর্ব শক্তিমান নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগ ঘবি ণড়ৎশ গড়যধহধমধৎ অধিসর খবধমঁব নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলন প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগন, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের আজকের এই সংবাদ সম্মেলনে আপনাদেরকে স্বাগত জানাচ্ছি। দল পরিচালনায় আপনাদের সহযোগিতার জন্য আপনাদের প্রতি আমরা গভীর ভাবে কৃতজ্ঞ। আশাকরি ভবিষ্যতেও আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগন, আপনারা নিশ্চয় অবগত আছেন নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ জননেত্রী শেখ হাসিনার নিজ হাতে গড়া সংগঠন। এটি গঠনের উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভাতৃপ্রতিম সংগঠন হিসেবে নিউইয়র্ক মহানগরীতে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং আমেরিকার মূল ধারায় আওয়ামী লীগ সরকারের সাফল্য তুলে ধরা। সে উদ্দেশ্যে আমরা নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্য নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী দলের পদ পদবী নিয়ে বছরের অধিকাংশ সময় বাংলাদেশে অবস্থান করে বিভিন্ন তৎবির বানিজ্যে লিপ্ত রয়েছেন। মাঝে মধ্যে নিউইয়র্কে এসে দলের হাই কমান্ডের নাম ভাঙ্গিয়ে দলের ভিতর বিভক্তি সৃষ্টি করে ব্যক্তিগত ফায়দা লুটার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন। এই সব কাজে তাকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন তারই মত আর এক ধান্দাবাজ ও সুবিধাবাদী ড. সিদ্দিকুর রহমান। তিনিও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব নিয়ে বছরে প্রায় ৯মাস বাংলাদেশে অবস্থান করে তদবির, বদলী বানিজ্য ও বিভিন্ন ব্যাবসা বানিজ্য ভাগিয়ে নেওয়া সহ নিজের আখের গোছাতে ব্যস্ত থাকেন। অথচ যে উদ্দেশ্যে তাকে মাননীয় সভানেত্রী যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মহান দায়িত্ব দিয়েছিলেন সেটি পালনে উনি সম্পূর্ণ রূপে ব্যর্থ হয়েছেন। বরং দলের ভিতরে ঘাপটি মেরে থেকে দলের বিরুদ্ধে একর পর এক কাজ করে চলছেন। যার প্রমান সম্প্রতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব সজীব ওয়াজেদ জয়ের একটি ফেইসবুক স্টেটাসে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর বিরুদ্ধে একটি বই প্রকাশের জন্য সাবেক প্রধান বিচারপতি এস.কে সিনহা ও ড. কামাল হোসেন, মীর মাছুম আলী ( মীর কাশেমের ভাই) ও তাদের সহযোগি হিসেবে নিউইয়র্কে যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেম আলীর অর্থায়নে পরিচালিত টাইম টেলিভিশন ও বাংলা পত্রিকার সম্পাদক আবু তাহেরের নাম উঠে এসেছে। যিনি অতিতেও বঙ্গবন্ধু পরিবার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যড়যন্ত্রকারী হিসাবে প্রমানিত হয়েছে। এই আবু তাহেরের সাথে সিদ্দিকুর রহমানের গোপন প্রম সকলের কাছে পরিষ্কার ও প্রমানিত। সম্প্রতি সিদ্দিকুর রহমান হাসপাতালে ভর্তি হলে সেখানেও তাহের ও তার প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তা ইলিয়াস খসরুর সাথে গোপন বৈঠকে মিলিত হন। সম্প্রতি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সংবধনায় বিজ্ঞাপনটিও প্রথমে বাংলা পত্রিকাতে প্রকাশিত হয়। এছড়া বাংলা পত্রিকা ও টাইম টেলিভিশনের শীর্ষ কর্মকর্তা ইলিয়াস খসরুকে মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন বলে দাবী করেছেন সিদ্দিকুর রহমান ও ইমদাদ চৌধুরী গংরা। অন্যদিকে সাবেক যুবদল কর্মী সাইকুল ইসলাম কে মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি হিসেবে বিভিন্ন জায়গায় পরিচয় করে দেওয়ার প্রমান পাওয়া গেছে। (ছবি সংযুক্ত) এই ভাবে সিদ্দিকুর রহমান ও ইমদাদ চৌধুরী গংরা দলকে ধংস করে চলেছেন যার সর্বশেষ উদাহরন নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক ৯নং সহ সভাপতি যিনি বিগত সাত বছরে দলের কার্যক্রমে সম্পূর্ন অনুপস্থিত থাকায় তাকে বহু আগে গঠনতান্ত্রিক ভাবে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। অথচ সিদ্দিকুর রহমান দলের গঠনতন্ত্রের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে এই সুবিধাবাদী রফিকুর রহমান কে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলে বিভিন্ন জাগায় পরিচয় করে দিচ্ছেন । তাই আজকের এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন জানাচ্ছি অভিলম্বে এই বর্নচোরা দলের শত্রু সিদ্দিকুর রহমান ও এমদাদ চৌধুরীর মত প্রতারকদেরকে দল থেকে অপসারন করে মেয়াদ উত্তিন্ন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ,নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ, স্টেট আওয়ামী লীগসহ প্রতিটি সংগঠনের নতুন কমিটি গঠনের জোর দাবী জানাচ্ছি।আমরা বলতে চাই মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর আসন্ন যুক্তরাষ্ট্র সফরকে সাফল ও সার্থক করে তোলার জন্য নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ ও এর আওতাভুক্ত প্রতিটি বরো ও ইউনিট কমিটি একযোগে কাজ করে যাচ্ছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেখানে যাবেন সেখানে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা নেত্রীর পাশে ভ্যানগার্ড হিসেবে অবস্থান করবেন। জামাত বিএনপি ও দলের অভ্যন্তরে ঘাপটি মের থাকা ষড়যন্ত্রকারীদের যে কোন অপতৎপরতা মোকাবেলা করতে প্রস্তুত থাকবে। আপনাদের সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আজকের সংবাদ সম্মেলনের সমাপ্তি ঘোষনা করছি।জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু

 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ