ওরা আমার ভাইকে ধ্বংস করতে চায়, রোনালদোর বোনের দাবি

September 21, 2018, 9:52 AM, Hits: 138

 ওরা আমার ভাইকে ধ্বংস করতে চায়, রোনালদোর বোনের দাবি

হ-বাংলা নিউজ : লাল কার্ড দেখে ভাইয়ের কান্না সহ্য করতে পারেননি কাতিয়া আভেইরো। প্রতিবাদে ফুঁসে উঠেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বোন। ভাইয়ের পাশে দাঁড়িয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কাতিয়া যেন আগুন ঝরালেন, ‘সৃষ্টিকর্তা ঘুমান না। একদিন এই চোখের জলের চড়া মূল্য দিতে হবে।’

পেশায় গায়িকা কাতিয়া এর আগেও রোনালদোর হয়ে গলা ফাটিয়েছেন। উয়েফা বর্ষসেরার পুরস্কারটা লুকা মদরিচ পাওয়ায় প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন কাতিয়া। চ্যাম্পিয়নস লিগের গত মৌসুমে রোনালদো ও মদরিচের পারফরম্যান্সের পরিসংখ্যানগত পার্থক্যটা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেড়ে কাতিয়া বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, পুরস্কারটা তাঁর ভাইয়েরই প্রাপ্য ছিল। আর কাল চ্যাম্পিয়নস লিগে রোনালদোর লাল কার্ড আর অশ্রুসজল চোখে মাঠ ছাড়া কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেননি তিনি।

রোনালদোর লাল কার্ড যে বিতর্কিত তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। বিশ্লেষক মহল থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলছে। ম্যাচের ২৯ মিনিটে ভ্যালেন্সিয়া ডিফেন্ডার জেইসন মুরিল্লোর পরে যাওয়ায় কোনো ভূমিকা ছিল না রোনালদোর। কিন্তু মুরিল্লোর পাকা অভিনয়ে সহকারী রেফারি থেকে মাঠের রেফারি পর্যন্ত বোকা বনে যান। ভ্যালেন্সিয়ার এই কলম্বিয়ান সেন্টার ব্যাক পড়ে যাওয়ার পর উঠে দাঁড়ানোর তাগাদা দিয়ে তাঁর মাথায় হাত রেখেছিলেন রোনালদো। তবে চুল টেনেছিলেন কিনা তা পরিষ্কার বোঝা যায়নি। কিন্তু সহকারী রেফারির সঙ্গে আলোচনা করে তাঁকে সরাসরি লাল কার্ড দেখান মাঠের রেফারি ফেলিক্স ব্রাইখ।

দুঃখে-কষ্টে হতবাক রোনালদো রেফারির এই সিদ্ধান্তে চোখের অশ্রু সংবরণ করতে পারেননি। দু হাতে মুখ ঢেকে মাঠ ছাড়েন তিনি। রোনালদোর এভাবে মাঠ ছাড়ার দৃশ্যটা কাতিয়া মোটেও সহ্য করতে পারেননি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে তাঁর প্রতিবাদ, ‘ফুটবলের লজ্জা (রোনালদোর লাল কার্ড)। সুবিচার মিলবেই। ওঁরা আমার ভাইকে ধ্বংস করতে চায়। কিন্তু সৃষ্টিকর্তা ঘুমিয়ে থাকেন না। একদিন এই চোখের জলের চড়া মূল্য দিতে হবে। ওঁরা তোমাকে শেষ করে দিতে চায়। কিন্তু সফল হবে না।’

রোনালদো মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে আসার সময় পাশেই ডাগ আউটে দাঁড়িয়ে ছিলেন ভ্যালেন্সিয়া কোচ মার্সেলিনো। এ সময় জুভেন্টাস তারকার কান্নাভেজা কণ্ঠের আকুতি শুনেছেন তিনি। ম্যাচ শেষে মার্সেলিনো এ প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘সে ভীষণ হতাশ ছিল। কাঁদতে কাঁদতে বলছিল সে ভুল কোনো কিছু করেনি।’ 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ