আমার দুলাভাই লিটল বাংলাদেশের বাঁশ ব্যবসায়ী

November 5, 2018, 11:06 AM, Hits: 777

আমার দুলাভাই লিটল বাংলাদেশের বাঁশ ব্যবসায়ী

মনির হোসেন, হ বাংলা নিউজ, 3rd Street, হলিউড থেকে : লিটল বাংলাদেশ লস অ্যাঞ্জেলসে রয়েছে বহুবিধ বাঙালী প্রতিষ্ঠান। প্রবাসী বাঙালীরা এই লস অ্যাঞ্জেলস বিভিন্ন ব্যবসার মাধ্যমে আমাদের সেবা দিয়ে আসছেন। রয়েছে রেস্টুরেন্ট-গ্রোসদরী, টেলিফোন-এক্সেসরিজ, টেক্স ফাইলিং ট্রাভেল এজেন্সি, মাল্টিপারপাস সার্ভিস আরো কত কি? সব কিছু ছড়িয়ে এই লস অ্যাঞ্জেলসে রয়েছে আমাদের দেশীয় বাঁশ ব্যবসা। মুলি বাঁশ, কঞ্চি বাঁশ, চিকন বাঁশ, আইক্কা আলা বাঁশ, মোটা বাঁশ হাতে হারিকেন বাঁশ আরো কত কি বাঁশের সাথে আমরা বাঙালি সমাজ পরিচিত।লস এঞ্জেলেসের বাঁশ ব্যবসায়ী বারো মাস ক্ষেত্র বিশেষে এইসব বাঁশ দিয়ে আসছেন জনে জনে। সেই কবে বাঁশ দেওয়া শুরু, আজ অবধি তার মন ভরে না। তাইতো প্রতি নিয়ত নতুন নতুন গ্রাহক খেয়ে আসছেন বাঁশ। জনাব সম্পাদক ছাপানো একুশ পত্রিকা থেকে বাদ পড়ায় বাঁশ দিয়েছিলেন জাহান হাসিনাকে, আর বাংলাদেশ ইউ এস এ টুয়েন্টি ফোর নিয়ে ঝামেলায় পুরো মুলা বাঁশ দিলেন মোয়াজ্জেম চৌধুরীকে । সেই একই ব্যক্তি ব‌ই মেলা নিয়ে জটিলতায় প্রকাশক মুক্তিযোদ্ধা মুজিবর রহমান খোকাকে এক হাত নিলেন অযথাই। তিনি আবার ফোবানায় চুলকানি দিতে কঞ্চি বাঁশের ব্যবহার করেছেন জাহিদ হাসান পিন্টুর বেলায়, অথচ ডঃ জয়নুল আবেদীনকে দিয়েছিলেন পুরো আইক্কা আলা বাঁশ। ঋতুর পরিবর্তননে মোমিনুল হক বাচ্চুর গালি খেয়ে তিনি বলেন, লস এঞ্জেলেসে কোনো নেতাই নাই। অথচ তাকে ব্যবহার করে প্রায়শঃ তিনি দেন হাতে হারিকেন বাঁশ। আওয়ামী অন্তঃদলীয় কোন্দলে যা খেয়ে চুপসে গিয়েছিলেন ডাঃ রবি আলম, দারা বিল্লাহ, তোয়াজ্জল কাজল, জাকির খান, তাপস নন্দী, সাইফুল চৌধুরী, এমন কি নারী নেত্রী শাহানা পারভীন। কমার্শিয়াল কনসাল আল মামুনকে তিনি চিকন সরু বাঁশ দিলেও তার কাছের মানুষ মুজিব সিদ্দিকীকে দিয়েছিলেন উন্নত মোটা বাঁশ। বালা নিয়ে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তিনি সতীর্থ এম হোসেন বাবুর বেলায় সরু কঞ্চির ব্যবহার করলেও ডাঃ সিরাজুল্লাহকে কিন্তু হাতে হারিকেন বাঁশ দিতে কার্পণ্য করেননি। সময়ে সময়ে কুদ্দুস খানের দেখানো পথে চললেও গুরুকেও আইক্কা আলা বাঁশ দিয়েছেন যত্ন করে। ইসমাইল হোসেন মাইনকার চিপায় পরে বন্ধুবরের বাঁশ খেয়ে মোটেও মাইন্ড করেনি। অনলাইন পোর্টাল নিউজ মিডিয়ার অগ্রপথিক সাইদ আবেদ খেয়েছেন হিংসা মাখানো সবুজ বাঁশ। তবে দীর্ঘ প্রবাস জীবনে সুসম্পর্ক রেখে চললেও শামসুল ইসলাম বারো মাসই বোহেমিয়ান বাঁশের সহজ লক্ষ্য হয়ে খেয়ে যাচ্ছেন টক-ঝাল-মিষ্টি কিন্তু বর্ণবাদী বাঁশ। তৌফিক সোলায়মান তুহিন সোহেল রহমান বাদল ও শাহ আলম আওয়ামী উত্তেজনার রাজনীতিতে বাঁশ খেয়েছেন ভিন্ন ভিন্ন প্রক্রিয়ায়। প্রেসক্লাবের নির্বাচন নিয়ে মুখ খোলায় খাম্বা বাঁশে তড়িতাহত হয়ে হিতাহিত জ্ঞান হারান আব্দস সামাদ। এমন কি বঙ্গবন্ধুর নামে ফ্রি ওয়েতে পরিচ্ছন্নতায় সাইন লাগিয়ে এ প্রজন্মের শওকত চৌধুরী উনার কাছে ফুলের ঝাড়ু সমেত বাঁশ খেয়ে ধন্য হয়েছেন (অসমাপ্ত)  প্রো বাঁশের আরো খবর জানতে হুদাই হুদাই ( শুধু শুধুই)  চোখ রাখুন পত্রিকার  পাতায়। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ