নিউইয়র্কে ‘বিএসিসি হলিডে সেলিব্রেশান ২০১৯’ : কমিউনিটির উন্নয়নে বিশেষ অবদানের জন্যে বাংলাদেশী-আমেরিকানদের এওয়ার্ড প্রদান

January 11, 2019, 4:38 AM, Hits: 540

নিউইয়র্কে ‘বিএসিসি হলিডে সেলিব্রেশান ২০১৯’ : কমিউনিটির উন্নয়নে বিশেষ অবদানের জন্যে বাংলাদেশী-আমেরিকানদের এওয়ার্ড প্রদান

সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, হ-বাংলা নিউজ নিউইয়র্ক থেকে : নিউইয়র্কে বর্ণাঢ্য আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘বিএসিসি হলিডে সেলিব্রেশান ২০১৯’। বাঙালী অধ্যুষিত ব্রঙ্কসে স্টারলিং-বাংলাবাজার এলাকার আল আকসা পার্টি হলে গত ৮ জানুয়ারী মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিল-বিএসিসি আয়োজিত এ উৎসবে কমিউনিটির উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখার জন্য বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার বাংলাদেশী-আমেরিকানদের এওয়ার্ড প্রদান করা হয়। সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলা এ আয়োজনে পরিবেশিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। ছিলো আকর্ষণীয় ফ্রি র‌্যাফেল ড্রও।
যুক্তরাষ্ট্রে মূলধারার অন্যতম সহযোগি সংগঠন বাংলাদেশী-আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট প্রবাসী আইনজীবী মোহাম্মদ এন মজুমদারের সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারী নজরুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে কমিউনিটিকে এগিয়ে নিতে অগ্রণী ভ‚মিকা পালনের জন্য ৯ জন ব্যক্তি কে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। সম্মাননা প্রাপ্তরা হলেন : নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টের প্রথম বাংলাদেশি-আমেরিকান ক্যাপ্টেন খন্দকার আবদুল্লাহ, নিউইয়র্ক সিটি পুলিশ ডিপার্টমেন্টের ৪৩ প্রিসেনক্টের ক্যাপ্টেন কীওন র‌্যামসি, ডা. আতাউল চৌধুরী তুষার, ইউএসএনিউজঅনলাইন.কম এবং সাপ্তাহিক জনতার কন্ঠ’র সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম. পার্কচেস্টার রিয়েল এস্টেটের কর্ণধার সালেহ উদ্দিন সাল, কালচারাল এক্টিভিস্ট মার্জিয়া স্মৃতি, বিএসিসি এক্টিভিস্ট ফয়সাল আহমেদ, ট্যালেন্টেড স্টুডেন্ট রুকিয়া আকতার ও তাসনিয়া চৌধুরী। এসময় এওয়ার্ড প্রদানের জন্য তারা আয়োজকদের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্যুরো অব প্রসপেক্ট পার্কের মেয়র মোহাম্মদ টি খায়েরুল্লাহ, নিউইয়র্ক সিটি পাবলিক এডভোকেট প্রার্থী হেলাল শেখ, ফোবানা ২০১৯ এর কনভেনার নার্গিস আহমেদ, মামুন’স টিউটোরিয়ালের প্রিন্সিপাল শেখ আল মামুন, নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টের মাসুদুর রহমান, জুয়েল, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, বেলাল চৌধুরী, মঈনুল ইসলাম, সাখাওয়াত আলী, আবদুল গাফফার চৌধুরী খসরু, মনজুর চৌধুরী জগলুল, হাসান আলী, জালাল চৌধুরী, মেহেরুন্নেসা জোবায়দা, রাশেদ মজুমদার সহ মূলধারার প্রতিনিধি ও কমিউনিটি নের্তৃবৃন্দ। উপস্থিত ছিলেন মূলধারার রাজনীতিকসহ বিভিন্ন কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। নতুন প্রজন্ম সহ বিভিন্ন ভাষা-ভাষী মানুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠানটি পরিণত হয় সৌহার্দ্য ও স¤প্রীতির এক মিলন মেলায়।

প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পীদের মনমুগ্ধকর পরিবেশনা মাতিয়ে রাখে হল ভর্তি দর্শক শ্রোতাদের। জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী শাহ মাহবুবের গানে মাতোয়ারা ছিলেন প্রবাসীরা। এছাড়াও সঙ্গীত পরিবেশন করেন জাকির হোসেন ও কামরুন্নাহার রিতা। নিউইয়র্ক সহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্টেটে বসবাসকারী বাঙালিরাও যোগ দেন এ জমজমাট আয়োজনে।
বক্তারা জমজমাট আয়োজনের ভূঁয়সী প্রশংসা করে আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান। নতুন প্রজন্মসহ মূলধারায় বাঙালী সংস্কৃতিকে তুলে ধরার প্রয়াসে সংগঠনটির অনবদ্য ভূমিকার কথা উল্লেখ করেন বক্তারা।
‘বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিল’র সভাপতি মোহাম্মদ এন মজুমদার এবং সাধারণ সম্পাদক নজরুল হক এ উৎসবে সংগঠনের নানা কার্যক্রম তুলে ধরেন। সব সময় তাদের সহযোগিতার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিশেষ ধন্যবাদ জানান তারা। সভাপতি মোহাম্মদ এন মজুমদার প্রবাসে জন্ম নেয়া ও বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের মধ্যে দেশিয় সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের ধারা টিকিয়ে রাখতে এবং মূলধারায় কমিউনিটির ভূমিকা জোরদারে তাদের পথচলা অব্যহত রাখার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত¡াবধানে ছিলেন বিএসিসি‘র প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ এন মজুমদার, ভাইস প্রেসিডেন্ট সাখাওয়াত আলী, সেক্রেটারী নজরুল হক, জয়েন্ট সেক্রেটারী আবদুল গাফফার চৌধুরী খসরু, ডাইরেক্টর অব অপারেশন আলমাছ আলী, ডাইরেক্টর অব ফাইনান্স মঞ্জুর চৌধুরী জগলুল, ডাইরেক্টর অব পাবলিক রিলেশন আবদুল ডবিøউ চৌধুরী, ডাইরেক্টর অব এডুকেশন সার্ভিসেস শেখ আল মামুন, ডাইরেক্টর অব রিলিজিয়ানস এফেয়ার্স সুফিয়ান চৌধুরী, ডাইরেক্টর অব লজিস্টিক সাপোর্ট নূর উদ্দিন, ডাইরেক্টর অব পাবলিক সেফটি কমরেড আকসাদ আলী, ডাইরেক্টর অব সোসাল সার্ভিসেস সারোয়ার চৌধুরী, ডাইরেক্টর অব প্রেস এন্ড পাবিøকেশন এ ইসলাম মামুন, ডাইরেক্টর অব উইমেন এফিয়ার্স আম্বিয়া অন্তরা, ডাইরেক্টর অব ইউথ এফিয়ার্স ফয়সাল আহমেদ।
অনুষ্ঠানে নতুন  ট্রাস্টি বোর্ড মেম্বারদের নাম ঘোষণা করা হয়। ট্রাস্টি বোর্ড মেম্বারদের মধ্যে রয়েছেন  তোফয়েল আহমেদ চৌধুরী, আবদুর রহিম বাদশা, হাসান আলী, ডা. মিতা চৌধুরী ও হারুন আলী।
উৎসব একটি স্মারক সংকলন প্রকাশ করা হয়। এতে সংগঠনের কার্যক্রম তুলে ধরা হয়। অতিথিদের পরিবেশন করা হয় বাংলাদেশি ঐতিহ্যবাহী মজাদার খাবার।
 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ