এই তেলেরও আছে গুণ

January 30, 2019, 9:13 AM, Hits: 435

এই তেলেরও আছে গুণ

রান্নাবান্নায় তেল ব্যবহার করতে হয়। সয়াবিন তেল রান্নার জন্য বেশি জনপ্রিয়। স্নেহজাতীয় খাবারের মধ্যে সয়াবিন তেল অন্যতম। এটি উদ্ভিজ্জ স্নেহ পদার্থ। স্নেহজাতীয় খাবার দেহে তাপ ও শক্তি তৈরি করে। সয়াবিন তেলে ভিটামিন এ, ডি, ই এবং কে পাওয়া যায়। এই তেলের নিয়মিত ও সঠিক পরিমাণে ব্যবহার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। সুস্থ ত্বক ও চোখের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ত্বকের কোষকে সংক্রমণ ও ক্ষতির হাত থেকেও রক্ষা করে।

সয়াবিন তেলে ভিটামিন কে থাকায় মস্তিষ্কের কোষের ক্ষয় কম হয় এবং অ্যালঝেইমারের হাত থেকে নিরাপদে থাকা যায়। ভিটামিন কের কারণে এই তেলের নিয়মিত ও সঠিক পরিমাণে ব্যবহার হাড়ের বৃদ্ধি ও ক্ষয় রোধে কার্যকর ভূমিকা রাখে। সয়াবিন তেল ভিটামিন ই সমৃদ্ধ হওয়ায় এটি অ্যান্টি–অক্সিডেন্টের কাজ করে। ফলে ত্বকে বয়সের ছাপ কম পড়ে এবং ত্বকের নানা রকম সমস্যা প্রতিরোধ করে।

সয়াবিন তেল স্বচ্ছ, এর নিজস্ব গন্ধ নেই। তাই এই তেলে রান্না করা খাবারের স্বাদ, গন্ধ ও বর্ণ অটুট থাকে। এই তেলের স্মোক পয়েন্ট ৪৬৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট। তাই ভাজাপোড়া খাবার তৈরি করা যায় খুব সহজে ও স্বল্প সময়ে। ওমেগা ৩–এর নন–ফিশ উৎসের একটি সয়াবিন তেল। তাই এ তেল সঠিকভাবে ব্যবহার করলে উচ্চ রক্তচাপ ও হৃদ্​রোগ নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এই তেল রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণ করে।

সয়াবিন তেলে এফএফএ (ফ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড) ও পিভির মাত্রা অনেক কম থাকে। তাই এই তেল খুব তাড়াতাড়ি গরম হয় এবং খাবারে ৩ থেকে ৪ শতাংশ কম শোষিত হয়। একজন পূর্ণ বয়স্ক নারীর প্রতিদিন ২৫-৪৫ গ্রাম এবং একজন পূর্ণ বয়স্ক পুরুষের প্রতিদিন ৪৫-৭০ গ্রাম তেল বা চর্বি দরকার হয়। সয়াবিন তেলকে বেশি না পুড়িয়ে সঠিকভাবে ব্যবহার করে রান্না করলে খাবার সুস্বাদু হয় এবং খাবারের পুষ্টিমানও বেড়ে যায়।

● সয়াবিন তেলে আছে ভিটামিন এ, ডি, ই ও কে

● সুস্থ ত্বক ও চোখের জন্য সয়াবিন তেল ভালো

● সয়াবিন তেলে রান্না করা খাবারের স্বাদ, গন্ধ ও বর্ণ অটুট থাকে

● সয়াবিন তেল বেশি না পুড়িয়ে সঠিকভাবে ব্যবহার করে রান্না করলে খাবারের পুষ্টিমানও বেড়ে যায়

লেখক: রান্নাবিদ 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ