ট্রাইবরো ব্রীজের নিচে এষোপরিয়া পার্কে গ্রীন টাচের আনন্দঘন পিকনিক

September 7, 2019, 9:00 AM, Hits: 168

ট্রাইবরো ব্রীজের নিচে এষোপরিয়া পার্কে গ্রীন টাচের আনন্দঘন পিকনিক

হ-বাংলা নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : গ্রীন টাচের পিকনিক ১ সেপ্টেম্বর বর্ণিল আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় নিউইয়র্ক সিটির এষ্টোরিয়া পার্কে। গ্রীন টার্চের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নিয়ে এই প্রথমবার পিকনিকের আয়োজন করা হয়। গ্রীন টার্চের নির্বাহি পরিচালক কমিউনিটি লিডার ভিক্টর লিয়াকত এলাহীর কর্মপরিকল্পনায় আনন্দঘন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী হোসেন, উপদেষ্টা দেওয়ান আশরাফুল আলম, ফাইন্যান্স ডাইরেক্টর জাকির এইচ বাচ্চু ও মোহাম্মদ জামান প্রমুখ। পিকনিকের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় বেলা ১২টা। এরপর বিভিন্ন ইভেন্ট চলে বিকাল ৫টা পর্যন্ত।

ঐতিহাসিক ট্রাইবরো ব্রীজ এর নিচে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যময় পার্কের ঝকঝক সজীব গাছ আর ঘাসের নয়নাভিরাম সৌন্দর্যের সঙ্গে মিশে গিয়েছিল গ্রীন টার্টের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উচ্ছ¡াস। চমৎকায় আবহাওয়া ও পরিবেশে অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের অনেকেই সপরিবারে যোগ দিয়ে পিকনিককে প্রাণবন্ত করে তোলেন। বিশাল পার্কের গাছের ছায়ায় বাংলাদেশী স্টাইলে চাদর বিছিয়ে তারা আড্ডায় মেতে উঠেন। তবে আয়োজকদের চেষ্টা ছিল সবার কাছে উপভোগ্য এবং স্বতঃস্ফূর্ত করে তোলা। গ্রীন টার্চের প্রথম পিকনিক সম্পন্নটাই সফল ও শিক্ষাণীয়।

উল্লেখ্য যে, দেশ ও প্রবাসে সুবিধা বি ত মা ও শিশুদের নিয়ে কাজ করা সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘গ্রীন টাচ’। নিউইয়র্ক ও বাংলাদেশের ঢাকাসহ কয়েকটি জেলায় মা ও শিশুদের নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সংগঠনটি। মা ও শিশু সংগঠন হিসেবে “গ্রীন টাচের” ব্যতিক্রম উদ্যোগ সত্যি প্রশংসনীয়। সুবিধা বি ত পরিবারের জন্য বিনামূল্যে শিক্ষা চালু করে প্রশংসার দ্বারে পৌঁছে গেছে গ্রীন টাচ। প্রবাসে ব্যস্ত জীবন ব্যবস্থার মধ্যদিয়ে গ্রীন টাচ যেন তার অভিস্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে বদ্ধপরিকর। ২০০৫ সালে গ্রীন টাচ অর্গানাইজেশন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে শুধু যেন তার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হবার জন্য। 

গ্রীন টাচের লক্ষ্য হলো মা ও শিশুদের সাহায্য করা। শিশুরা আগামী দিনে বিশ্ব কর্ণধার। তারাই বিশ্ব পরিচালনা করবে। সেই জন্যে শিশুদের সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। আর যে সকল শিশু ১০ মাস ১০ দিন  মায়ের গর্ভে থাকার পর ভূমিষ্ট হয়-সেই মায়েদেরকেও গ্রীন টাচ তাদের সাহায্যের কথা বিবেচনা করে প্রথমত দুইটি দেশকে বাছাই করে। গ্রীন টাচ বর্তমানে আমেরিকা ও বাংলাদেশে কাজ করছে। ভবিষ্যতে এর পরিধি আরো বিস্তৃত হবে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক বাংলাদেশী আমেরিকান ভিক্টর এলাহি। 

তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠার পর থেকে নিউইয়র্ক সিটির বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকার অন্যতম জ্যাকসন হাইটসে গ্রীন টাচ টিউটোরিয়াল সেন্টার নামে বিনামূল্যে ছাত্রছাত্রীদের পড়া-লেখা করায়ে আসছে। এতে কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে আন্ত:ক্রীড়া, বির্তক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কারের ব্যবস্থা করা হয়। ২০১৮ সালে বাংলাদেশে ৪ জন অন্ধ শিশুদের সাহায্য দিয়েছে এবং বাংলাদেশের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গ্রীন টার্চের সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে।

ভিক্টর এলাহি জানান, আমরা বি তদের সঙ্গে সবসময়ই আছি। শিশু-কিশোরদের পড়ালেখার পাশাপাশি আমরা বিভিন্ন অনুষ্ঠান যেমন করি তেমনি তাদের সব আনন্দ বিনোদন দিতেও আমরা সর্বদা চেষ্টা করি। আমরা যদি প্রত্যেকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসি, তবেই সুবিধা বি তদের হার দেশ ও প্রবাসে  হ্রাস পাবে। পাবে তারা উন্নত চিকিৎসা ও শিক্ষা । এতে করে আমরা বিশেষ করে বাংলাদেশকে গড়তে পারবো শতভাগ নিরক্ষর। গ্রীন টার্চ সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে আমরা সবার একান্ত সহযোগিতা কামনা করি।

 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ