বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সীর নতুন কমিটির অভিষেক আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর।

September 24, 2019, 9:07 AM, Hits: 294

বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সীর  নতুন কমিটির অভিষেক আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর।

হ-বাংলা নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে :  আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর বুধবার,২০১৯ বিকেল ৫ ঘটিকায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নিউজার্সী ষ্টেটের সাউথজার্সীর বাংলাদেশীদের সবছেয়ে জনপ্রিয় সংগঠন  বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সীর  ভোটারবিহীন এবং প্যানেল বিহীন নির্বাচনে  জয়ী কমিটির প্রতিনিধিদের শপথ, অভিষেক ও  সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ফেয়ার মাউন্ট এভিনিউস্থ  বাংলাদেশ কমিউনিটি সেন্টারে। 

নতুন কমিটির (২০১৯-২০২১) সদসরা হলেন সভাপতি-মো: জহিরুল ইসলাম (বাবুল), সহ সভাপতি- নুরুন চৌধুরী (শামীম) , মোহাম্মদ এস, নূর,(আলী নুর),আবু তাহের ভূঁইয়া, সাধারন সম্পাদক-মো: জাকিরুল ইসলাম (খোকা), যুগ্ন সম্পাদক- মো: মনিরুজামান, কাজী ইসলাম( লিটন), সাংগঠনিক সম্পাদক -মো: শাহরিয়ার আহামেদ, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক- মোহাম্মদ এ রহিম, জন সংযোগ সম্পাদক – মোহাম্মদ বি হোসেন(বেলাল), সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক- ঝুলন পাল,অফিস সেক্রেটারী – সাখাওয়াত হোসেন (শিপন),সমাজ কল্যান সম্পাদক – এস এম সাইফুল ইসলাম,আইন বিষয়ক সম্পাদক – মোহাম্মদ আই হোসেন (ইকবাল), সদস্য- এমডি আবু জাহেদ (সোলার জাহেদ) মোহাম্মদ এস হোসেন(সাখাওয়াত), শেখ মাজাহার আলী,মো: এ হোসাইন(আনোয়ার), সিরাজউদদীন।

অনুষ্ঠানে সাউথজার্সীর সকল সচেতন নাগরিকদেরকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করেছেন নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দ।  উক্ত অনুষ্ঠানে সবাই উপস্থিত হয়ে নির্বাচন কমিশন এবং ট্রাষ্টি বোর্ডকে কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞাস করা উচিত বলে সাউথজার্সীর সকল সচেতন নাগরিক মনে করেন। ১.বিপুল জনপ্রিয়তা থাকা সত্ত্বেও কেন ভোটারবিহীন নির্বাচন করতে হলো।২. গত ১২ বছরে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সীর  সকল কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে আওয়ামীলীগের পরিত্যক্ত একটি গ্রূফের  নেতা কর্মীদের নিয়ে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সীর  নতুন কমিটি, নির্বাচন কমিশন এবং ট্রাষ্টিবোর্ড সাজানো হল কেন? ৩.২০০৮ সালের এসোসিয়েশনের নির্বাচনে পরাজিত শক্তির বর্তমানে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সীর  কমিটিতে থাকার পিছনের উদ্দেশ্য কি ? ৪.হঠাই করে পরাজিত শক্তি  শুভাকাঙ্ক্ষী হওয়ার কারন কি  এবং আগামী দুই বছর সভাপতি সাহেব কি তোষামদকারী এবং সমাজের কিছু কিছু ঘৃনীত ব্যক্তিদের তোষামদ গ্রহন করে নিজের অর্জিত সন্মানটুকু হারানোর ব্যবস্থা  করেছেন ? ৫. আটলান্টিক কাউন্টি থেকে বের করে দেয়া ব্যক্তিবর্গ এসোসিয়েশনের শূভাকাঙ্গী কিভাবে হলো ? 

এছড়াও একটি বাস্তব সত্য  অস্বীকার করা যাবেনা কিছুতেই তা হল নির্বাচনে বাবুল-বাবু পরিষদের মোকাবেল করার মত কোন ব্যক্তি  ছিল নাই ।তাই  একমাত্র নিরীহ প্রার্থী নির্বাচন থেকে সরে পড়েছেন তারপরও কয়েকজন তোষামদকারী বীরদর্পে বলে বেড়াচ্ছেন গুটি কয়েক লোক নির্বাচন করার এবং প্যানেল দেয়ার চেষ্টা করেছিল কিন্তু প্যানেল গঠন করতে পারেনি যা বাস্তব সত্য কথা।সাউথজার্সীতে এখনও পর্যন্ত বাবুল-বাবু পরিষদের সাথে নির্বাচন করার মত কোন ব্যক্তি এবং প্যানেল নাই এবং তৈরী হবেও না।কারন তাদের সাথে রয়েছে আওয়ামীলীগের পরিত্যক্ত গ্রূফের ৫ সদস্যের "থিংক ট্যাংক"। ভূল ক্রমে এই ৫ জন্ সদস্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ডঃ সিদ্দিকুর রহমানের জন্য কাজ না করে জহিরুল ইসলাম বাবুলের জন্য কাজ করছেন যা সভাপতির জন্য খুবই সুভাগ্যের।  "থিংক ট্যাংক"এর সহায়তায় গঠিত সিলেকটেড কমিটির সকল সদস্যদের জন্য রইল শুভকামনা এবং অজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনুরোধ রইল আপনারা নির্বাচন পরিচালনা করেছেন একথা বলে জনগনের কাছে নিজেদেরকে হেয় প্রতিপন্ন করার প্রয়োজন নেই। নির্বাচন কমিশন হিসাবে আপনারা অবশ্যই নির্বাচন করার চেষ্টা করেছেন কিন্তু "থিংক ট্যাংক"এর প্রভাবের কাছে পরাভূত হয়েছেন।

 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ