বিএনপি নেতা খোকার মৃত্যুর খবর গুজব

November 2, 2019, 12:55 PM, Hits: 159

বিএনপি নেতা খোকার মৃত্যুর খবর গুজব

সালাহউদ্দিন আহমেদ, হ-বাংলা নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুর খবর গুজব ছাড়া কিছুই নয়। তার শারীরিক অবস্থা গুরুতর সত্য এবং তার অবস্থার দিনে দিনে অবনতি ঘটছে। শুক্রবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন জনাব খোকার জ্যৈষ্ঠপুত্র বিএনপির বৈদেশিক বিষয়ক কমিটির সদস্য প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন। এছাড়াও হাসপাতাল থেকে শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে একই রকম তথ্য জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ আহমদ। জনাব খোকার রোগমুক্তি কামনায় পরিবারের পক্ষ থেকে সকল প্রবাসী বাংলাদেশী ও দেশবাসীর দোয়া কামনা করা হয়েছে। 

এদিকে জনাব খোকার শেষ ইচ্ছে ‘দেশের মাটিতে ফিরে যাওয়া’ পুরণ করতে শুক্রবার তার পরিবারের পক্ষ থেকে নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে তাঁর পাসপোর্ট ফেরতের আবেদন জানানো হয়েছে। এব্যাপারে কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসার সাথে জনাব খোকার পুত্র প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন-এর কথা হয়েছে। কনস্যুলেটে থেকে পাসপোর্ট ফেরত দেয়ার ব্যাপারে তাদের কিছু করণীয় নেই, এটা বাংলাদেশ সরকারের সিদ্ধান্ত। তবে জনাব খোকার বাংলাদেশ যেতে ট্রাভেল ভিসা’র ব্যাপারে কনস্যুলেট সর্বোতভাবে সহযোগিতা করবে বলে জানা গেছে।   

উল্লেখ্য, ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে সপরিবারে নিউইয়র্ক চলে আসেন খোকা। তারপর থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিউইয়র্ক সিটির কুইন্সে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন এই নেতা। প্রায় তিন সপ্তাহ আগে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যানসার সেন্টারে ভর্তি করা হয় খোকাকে। গত ২৮ অক্টোবর সোমবার স্বাস্থ্যের আরও অবনতি ঘটলে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তিনি হাসপাতালের আইসিইউতে-ই (কক্ষ নং ৫১১) রয়েছেন। এদিকে তাকে দেখতে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র নেতা-কর্মী সহ কমিউনটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ হাসপাতালে ভীড় অব্যাহত রয়েছে। দিনে বা রাতে অনেকই হাসপাতালে গিয়ে তাকে দেখে আসছেন। ২৪ ঘন্টা খোলা হাসপাতালে মধ্য রাতেও অনেকে জনাব খোকার শয্যাপাশে গিয়ে খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। 

অপরদিকে জনাব সাদেক হোসেন খোকা চিকিৎসার জন্য নিউইয়র্ক আসার পর তার স্ত্রী ইসমত আরার পাসপোর্ট মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার উপক্রম হলে বিগত ২০১৭ সালের ২৬ জানুয়ারী পাসপোর্ট নবায়ন করার জন্য কনস্যুলেটের নির্ধারিত ফি জমা দেয়া হয় (রিসিট নং ৩৯৮৩৫৩৮, বুক নং ০৩৯৮৩৬)। মিসেস ইসমত আরার বাংলাদেশী পাসপোর্ট নং এসি১২৫০৯৬৯। অনুরূপভাবে জনাব সাদেক হোসেন খোকার পাসপোর্টও মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার উপক্রম হলে বিগত একই বছরের ১৩ এপ্রিল পাসপোর্ট নবায়ন করার জন্য কনস্যুলেটের নির্ধারিত ফি জমা দেয়া হয় (রিসিট নং ৪২৪৯৩৩০, বুক নং ০৪২৪৯৪)। আর সাদেক হোসেন খোকার বাংলাদেশী পাসপোর্ট নং এসি৬৮৩২৩৯৩। কিন্তু কনস্যুলেট থেকে তাদের পাসপোর্ট আর ফেরৎ দেয়া হয়নি।

শুক্রবার (১ নভেম্বর) বিকেলে বাংলাদেশ কনস্যুলে কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসার সাথে সাক্ষাৎ ও আলোচনা শেষে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন এই প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে বলেন, আব্বার শেষ ইচ্ছে বাংলাদেশে ফিরে যাওয়া এবং দেশের মাটিতেই তার মরদেহ সমাহিত হোক। সেজন্যই আমরা আমার মায়ের পক্ষে আবেদন নিয়ে আব্বার পাসপোর্ট ফেরতের জন্য কনসুলেটে আসি এবং কনসাল জেনারেলের সাথে কথা বলি। তিনি বাংলাদেশ সরকারের সিদ্ধান্ত জানিয়ে ট্রাভেল ভিসা প্রদানের ব্যাপারে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। তিনি তার পিতার জন্য সবার দোয়া কামনা করে বলেছেন তার মৃত্যুও খবর ভিত্তিহীন এবং গুজব ছাড়া কিছুই নয়। তিনি গুরুতর অসুস্থ সত্য তবে কথা বলতে পারছেন। 

অপরদিকে সাদেক হোসেন খোকার অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হলেও দেশে ফেরার বিষয়ে সরকারের সঙ্গে কোনো সমঝোতা করবেন না তার পরিবারের সদস্যদের কাছে এমন কথা বলেছেন বলে জানা গেছে। পরিবার সহ বিএনপি’র নেতা-কর্মীদেও অভিযোগ জনাব খোকা চরমভাবে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। 

যুবদল নেতা আবু সাঈদ আহমদ জানান, সাদেক হোসেন খোকা ভাই আল্লাহর মেহেরবানীতে এখনও নিউইয়র্কের ম্যানহাটনস্থ স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যানসার সেন্টার হাসপাতালে জীবন যুদ্ধে লড়ে যাচ্ছেন। অক্সিজেনের মাধ্যমে তার শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখা হয়েছে। তাঁর অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হলেও চিকিৎসকের নিবিড় পরিচর্যায় (আইসিইউ) আছেন ।

এদিকে বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার সুস্থ্যতা কামনায় শুক্রবার নিউইয়র্ক সহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন মসজিদে বাদ জুম্মা বিশেষ দোয়া করা হয়েছে বলে জানা গেছে। 

 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ