বিএনপি গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসির উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বর বিপ্লব ও সংহতি দিবস উদযাপন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার স্মরণে দোয়া মাহফিল।

November 16, 2019, 2:18 PM, Hits: 438

বিএনপি গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসির উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বর বিপ্লব ও সংহতি দিবস উদযাপন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার স্মরণে দোয়া মাহফিল।

গত ১০ই নভেম্বর, ২০১৯ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল(বিএনপি), গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসির উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ নভেস্বর বিপ্লব ও সংহতি দিবস উদযাপন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় ৫৭০১ কলম্বিয়া পাইক, ফলস চার্চ, আলেকজান্দ্রিয়া, ভার্জিনিয়ায়। সংগঠনের সভাপতি ডঃ আশরাফ আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের সার্বিক দায়িত্ব এবং পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এজেএম হোসেন। অনুষ্ঠান পরিচালনায় তাকে সহযোগিতা করেন যুগ্ম সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম তুহিন, তারিকুল ইসলাম অশ্রু ও মোহাম্মদ হোসেন(ছোট হোসেন)। প্রায় ২০০ শতাধিক প্রবাশীর উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে  বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন বাইতুল মোকাররম মসজিদের সাবেক ইমাম মোহাম্মদ আবুল হাসান। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ঐতিহাসিক বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বক্তরা ৭ নভেম্বর এর ঘটনা প্রবাহ এর উপর আলোকপাত করে উল্লেখ করেন, ৭ নভেম্বর কেবল মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমানকে ক্ষমতায় পাদপ্রদীপে নিয়ে আসেনি, শেখ হাসিনাকেও রাজনৈতিকভাবে প্রতিষ্ঠত করছিল। 

৭ নভেম্বর  এর ফলে সিপাহী জনতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে মুক্ত করার ফলে দেশে তিনি একদলীয় বাকশালের পরিবর্তে বহুদলীয় গণতন্ত্রের সুচনা করেন। জিয়া সকল সংবাদপত্রের স্বাধীনতা ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। বাঙ্গালী জাতীয়তাবাদ এর স্থলে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ করেছেন ।ভারত-রাশিয়া বলয় থেকে বের হয়ে বিশ্বব্যাপী বিশেষ করে ইসলামী রাষ্ট্রগুলোর সাথে  সুসম্পর্ক স্থাপন করেন জিয়া। জাতীয়করন থেকে মুক্তি দিয়ে দেশে হাজার হাজার শিল্প স্থাপনে কে উম্মুক্ত করে দিয়েছেন। উন্নয়নের রোলমডেল স্থাপন করে তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে দেশকে একটি খুটির উপর দাড় করিয়েছেন। বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার দেশ থেকে জিয়ার আদর্শকে মুছে ফেলার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। 

নেতৃবৃন্দ অনতিবিলম্বে দেশমাতা খালেদা জিয়াকে মুক্তি ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সকল যড়যন্ত্র মামলা প্রত্যাহারের আবেদন জানান।

বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্ঠা শরাফত হোসেন বাবু, ডাঃ হুমায়ুন খালিদ, জহির খান,  মেজর (অবঃ)আলম, ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল হোসেন, ও নেছার আহমেদ। সংগঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি হাফিজ খান সোহেল, মিয়া মজনু , মাসুদুর রহমান,  হারুনুর রশীদ, যুগ্ম সম্পাদক জাকির আহমেদ, শাহরিয়ার রহমান, ফিরোজ আলম,,ফারুক হোসেন,, মামুন খান, তৈয়বুর হাসান, রাসেল আহমেদ, নুর মোহাম্মদ, আবদুল সালাম মৃধা  মোখলেছুর রহমান লিটন। অন্যান্যে মধ্যে ডাটা গ্রূপের প্রধান নির্বাহী জাকির হোসাইন,ভার্জিনিয়া বিএনপির তোফায়েল আহমেদ ও আবদুল কাইয়ুম। বাংলা মসজিদের সাবেক সভাপতি ডাঃ নাঈম হোসেন বক্তব্য রাখেন।  

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ