শীতের সন্ধ্যায় কোর ভিশনের ‘পিঠা উৎসব’

November 22, 2019, 12:48 PM, Hits: 96

শীতের সন্ধ্যায় কোর ভিশনের ‘পিঠা উৎসব’

হ-বাংলা নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : কোর ভিশন ফাউন্ডেশনের আয়োজনে ‘পিঠা উৎসবে’-এ শীতের সন্ধ্যায় চিরতন্তন বাংলা‘র ঐতিহ্যবাহী পিঠা-পুলি নিয়ে হাজির হয়েছিলেন বিভিন্ন শ্রেণীপেশার নারীরা। ‘উদ্যোক্তা হয়ে ক্ষমতায়নে’র মন্ত্রে বিশ্বাসী সেবামূলক সংস্থা কোর ভিশন ফাউন্ডেশনের এই আয়োজনে সহযোগী ছিল  অটিজম সোসাইটি হ্যাবিটেশন এ্যাসোসিয়েশন (আশা) ব্রঙ্কসের খলিল বিরিয়ানী হাউস, ল’ অফিস অব অ্যান্ড্রু পার্ক, কেলার উইলিয়াম্স রিয়েলটি ল্যান্ডমাক। 

১৬ নভেম্বর শনিবার জ্যাকসন হাইটসের কোর ভিশন কনভেশন হলে প্রতিযোগিতামূলক এই পিঠা উৎসব বিকেলে শুরু হয়ে রাত ১০টা পর্যন্ত চলে। পিঠা উৎসবে কোর ভিশন ফাউন্ডেশন আয়োজিত সম্প্রতি সমাপ্ত সামার সকার ক্যাম্প’এ অংশগ্রহণকারীদেরকে পুরস্কৃত করা হয়।

কোর ভিশনের নির্বাহী পরিচালক নাজ ইসলামের পরিচালনায় পিঠা উৎসবে শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাখেন ‘আশা’র নির্বাহী পরিচালক রুবাইয়া রহমান। আশা‘র কর্মসূচীতে কোরভিশন ফাউন্ডেশনের সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে রুবাইয়া রহমান কোর ভিশনের প্রেসিডেন্ট মুস্তাফিproজুর রহমানকে ধন্যবাদ দেন।

রুবাইয়া আরো বলেন, আমরা ‘অটিস্টিক শিশুদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে কাজ করি। তারাও যে সমাজের অংশ তা প্রমাণে আমরা সচেষ্ট। তাদেরকে আমাদের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত করার জন্য কাজ করি। 

আশার নির্বাহী পরিচালক বলেন, এই অনুষ্ঠানে আদিবাসহ বেশ কিছু ‘অটিস্টিক্’ শিশু-কিশোর যোগ দিয়ে সাংষ্কৃতিক পর্বে অংশ নিচ্ছে। তাদেরকে স্বাভাবিক জীবনের পথে পরিচালিত করাই আমাদের সাফল্য।

কোর ভিশনের প্রেসিডেন্ট মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমরা উদ্যোক্তা সৃষ্টির মাধ্যমে আমাদের কমিউনিটিকে বদলে দেয়ার চেষ্টা করছি। আমরা উদ্যোক্তা হবার জন্য মানুষকে উৎসাহ দেই। পথ দেখাই ।

তিনি বলেন, উদ্যোক্তা হবার জন্য আমেরিকাতে অনেক ধরনের সুযোগ রয়েছে। আমাদের কমিউনিটির অনেকেই সেসব সুযোগ পাবার প্রক্রিয়া জানেন না। আমরা সেগুলোর সাথে পরিচিত হতে উদ্যোক্তাদেরকে সাহায্যা করতে পারি ।

তিনি বলেন, অন্যের চাকরি করার চেয়ে নিজে উদ্যোক্তা হয়ে নিজেই নিজের করার পরামর্শ ও সহাযোগিতা প্রদান করি।

কোর ভিশন ফাউন্ডেশন আয়োজিত সম্প্রতি সমাপ্ত সামার সকার ক্যাম্প’ সম্পর্কে তিনি বলেন, একটি মেয়েসহ মোট ১৭ জন নতুন প্রজন্মের কিশোর শিক্ষার্থী সকার তথা ফুটবল প্রশিক্ষণে অংশ নেন। এই প্রসঙ্গে তিনি সকার ক্যাম্পের পরিচালক গোলাম মোস্তফা এবং কোচ প্রাণ গোবিন্দ কুন্ডকে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। তারা দুইজনই সামার সকার ক্যাম্প আয়োজনের জন্য কোর ভিশনের প্রশংসা করেন।

এই পর্যায়ে সকার ক্যাম্পে অংশগ্রহণকারী ১৭জন কিশোরদের সবাইকে পুরস্কার হিসেবে ফুটবল প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন কেনীথ রোজারিও, এ্যারিন আক্তার, সাঈদ মাহাদিন রহমান, আইরিন আক্তার খান এবং অ্যা’য়ান রহমান।

প্রতিযোগিতামূলক পিঠা উৎসবে সাপটা পিঠা, ফুল পিঠা, শাকন পিঠা , বিবিখানা পিঠা, তেলের পিঠা, নারকেলী পিঠা, ভাঁপা পিঠা, পুলি পিঠা, পুয়া পিঠা, পানতুয়া পিঠা প্রস্তুতকারীগণ অংশ নেন।

পিঠাগুলোর মধ্যে ভাঁপা পিঠা প্রথম, ফুল পিঠা দ্বিতীয়, বিবিখানা তৃতীয়, নারকেলী পিঠা চতুর্থ এবং পাটি পিঠা পঞ্চম স্থান দখল করে। প্রথম থেকে পঞ্চম স্থান পর্যন্ত পিঠা প্রস্তকারিনী পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন প্রথম শিরীন কামাল, দ্বিতীয় মিসেস আনিস, তৃতীয় ও চতুর্থ জান্নাতুল কাওসার এবং পঞ্চম সেলিনা খানম।

উল্লেখ্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে কমিউনিটির সচেতনতা বৃদ্ধির এই উদ্যোগে কোর ভিশন ফাউন্ডেশনের সাথে আশা, ব্রঙ্কসের খলিল বিরিয়ানী হাউস, ল’ অফিস অব অ্যান্ড্রু পার্ক, কেলার উইলিয়াম্স রিয়েলটি ল্যান্ডমার্ক ইত্যাদি সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান সহযোগী হিসাবে রয়েছে। 

মিডিয়া পার্টনার বর্ণমালা নিউজ ও সাপ্তাহিক বর্ণমালা‘কে ধন্যবাদ দেন কোর ভিশনের প্রেসিডেন্ট মুস্তাফিজুর রহমান। 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ