বিএনপি নেতা মাহবুবুর রহমান শাহীনের মায়ের মৃত্যুতে শোক বার্তা

June 26, 2020, 11:17 AM, Hits: 327

বিএনপি নেতা মাহবুবুর রহমান শাহীনের মায়ের মৃত্যুতে শোক বার্তা

হ-বাংলা নিউজ, হলিউড থেকে : লস এঞ্জেলেস প্রবাসী কম্যুনিটির পরিচিত মুখ, ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট, বাফলা'র ভাইস প্রেসিডেন্ট, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জনাব মাহবুবুর রহমান শাহীনের মাতা সালেহা খাতুনের (৯৬) ইন্তেকালে গভীর শোক জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্ণিয়া শাখা যুক্তরাষ্ট্র।

দলের সভাপতি বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু ও সাধারন সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমান স্বাক্ষরিত এক শোক বার্তায় বলা হয়, "সালেহা খাতুনের মৃত্যুতে তার পরিবার-পরিজনদের মতো আমরাও গভীরভাবে শোকাহত ও মর্মাহত। একজন আদর্শ মা হিসেবে তিনি মেধা ও শ্রম দিয়ে তার সকল সন্তানদের সুশিক্ষিত ও সুসন্তান হিসেবে গড়ে তুলেছিলেন। ধর্মপ্রাণ নারী হিসেবেও তিনি সকলের নিকট ছিলেন অত্যন্ত শ্রদ্ধেয়। একজন নারী ও মা হিসেবে তার কর্তব্য ও ভূমিকা স্থানীয় জনসাধারণ ও পরিচিতজনদেরকে অভিভুত করতো। পরিবারের হাল ধরার পাশাপাশি তিনি সমাজসেবার নানা কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন। দুঃখী ও অসহায় মানুষকে সাহায্য করতেও তিনি ছিলেন উদারহস্ত। মাতা হিসেবে তিনি যে দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন সেটি তার সন্তানদেরকে চিরদিন অনুপ্রাণিত করবে। আমরা মরহুমা সালেহা খাতুনের রূহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গ, আত্মীয়স্বজন ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি জানাচ্ছি গভীর সমবেদনা।"

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি উপজেলা নিবাসী সালেহা খাতুন বার্ধক্যজনিত অসুস্হতার কারণে গত ২৪ জুন বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকার ধানমন্ডি ক্লিনিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। তার স্বামী মরহুম গোলাম রহমান ছিলেন একজন সাবেক সরকারী কর্মকর্তা। মরহুমা সালেহা খাতুনের পিতা মরহুম আলহাজ্ব কাজী মওলানা মোঃ গোলাম রহমান ছিলেন প্রখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদ ও গ্রন্হকার। তার রচিত অন্যতম আলোচিত ইসলামী বই 'মোকসেদুল মোমেনীন' যা ১৯২০ সালে প্রকাশিত হয় এবং আজও অত্যন্ত সমাদৃত। সালেহা খাতুনের ৪ জন পুত্র ও ২ জন কণ্যা সন্তানের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের লস এঞ্জেলেস প্রবাসী মাহবুবুর রহমান শাহীন তৃতীয়।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র শোকবার্তায় স্বাক্ষর করেছেনঃ বদরুল এ চৌধুরী শিপলু, এম ওয়াহিদ রহমান, নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন, মোঃ আঃ বাছিত, সামসুজ্জোহা বাবলু, মাহবুবুর রহমান শাহীন, মুর্শেদুল ইসলাম, নিয়াজ মোহাইমেন, সাইফুল আনসারী চপল, অপু সাজ্জাদ, আফজাল শিকদার, সালাম দাড়িয়া, শওকত হোসেন আনজিন, সাঈদ আবেদ নিপু, জুনেল আহমেদ, আহসান হাবীব রুমি, মিকায়েল খান রাসেল, শাহাদাত হোসেন শাহীন, জহিরুল কবির হেলাল, মার্শাল হক, নুরুল ইসলাম, এলেন খান, মিজানুর রহমান, আবদুর রহিম, ফারুক হাওলাদার, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, মোয়াজ্জেম হোসেন রাসেল, বদরুল আলম মাসুদ, দেলোয়ার জাহান চৌধুরী, লায়েক আহমেদ, রফিকুজ্জামান জুয়েল, ইলিয়াছ মিয়া, শাহতাব কবীর ভূঁইয়া শান্ত, শাহীন হক, আলমগীর হোসেন, রনি জামান, এ্যাডঃ নুরুল হক, সজয় আহমেদ মনির, মারুফ খান, লোকমান হোসাইন, কামাল হোসেন তরুন, মোশারফ হোসেন ইমন, রেজাউল হায়দার চৌধুরী বাবু, কামরুল আলম চৌধুরী, খোরশেদ আলম রতন, সামিদুল ইসলাম, সাঈদ খান, রেজাউল করিম জামিল, হাফেজ মোঃ বেলাল, শাহেদ আহমেদ, কহিনুর রহমান, ইফতেখার হোসেন ফাহিম, মিজানুর রহমান জমশেদ, কবির আহমেদ, হোসেন আহমেদ, এমাজউদ্দিন চৌধুরী দুলাল, আবদুল মোতালেব, আব্দুল হাকিম, খসরু রানা, আসাদুজ্জামান মুক্তা, নাজিম খান টিটু, সুমেন আহমেদ, আবদুল মান্নান, ফয়সাল হোসেন সিদ্দিকী, ফয়সাল সালাম, আবদুল মুনিম, আবুল খায়ের, শামসুল আলম, নাহিদুল ইসলাম, আবুল কায়সার, এ্যাডঃ শামসুন খান লাকী, ফরিদা বেগম, নয়ন বড়ুয়া, এ কে এম আসিফ, শহিদুল ইসলাম পলাশ, খায়রুল ইসলাম, খোন্দকার আলম, আবুল ইব্রাহিম, মানিক চৌধুরী, মিশর নুন, ফারুক সরকার, গিয়াস উদ্দিন, আবদুল আহাদ, এহসান আহমেদ, আবুল বাশার, দেলোয়ার আহমেদ, রফিকুল ইসলাম রিতি, নজরুল ইসলাম, আবুল হাসনাত চৌধুরী মন্টু, আবদুল হাসিব, রফিকুল ইসলাম চৌধুরী, হাসানুজ্জামান মিজান, মোঃ হাবিব, মাইনুল হক, মশিউর রহমান ও জিয়াউল হক জিয়া প্রমুখ। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ