উইসকনসিন ও ওহাইওতে ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে বাইডেন

June 26, 2020, 11:28 AM, Hits: 99

 উইসকনসিন ও ওহাইওতে ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে বাইডেন

হ-বাংলা নিউজ : আমেরিকার মধ্য-পশ্চিমের দুই অঙ্গরাজ্য সুখবর নিয়ে এল জো বাইডেনের জন্য। সাবেক এই ভাইস প্রেসিডেন্ট ও আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী এ দুই অঙ্গরাজ্যে পরিচালিত সাম্প্রতিক জনমত জরিপে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প থেকে এগিয়ে রয়েছেন। ২৪ জুন জরিপ দুটির ফল প্রকাশ করা হয়।

উইসকনসিনের মারকুইট বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত এক জরিপে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প থেকে সুস্পষ্টভাবে এগিয়ে রয়েছেন জো বাইডেন। চার বছর আগে এই অঙ্গরাজ্যে এগিয়ে থাকাই রিপাবলিকান পার্টিকে প্রেসিডেন্সি পাইয়ে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল। এটি বাইডেন ও ডেমোক্রেটিক দল উভয়ের জন্যই একটি সুখবর। অনুরূপ সুখবর এনে দিয়েছে ওহাইও অঙ্গরাজ্য। গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এই অঙ্গরাজ্যে ডোনাল্ড ট্রাম্প তৎকালীন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন থেকে ৮ শতাংশ পয়েন্টে এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু অঙ্গরাজ্যটির কুইনিপ্যাক বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত সাম্প্রতিক জরিপে বাইডেন ট্রাম্পের সঙ্গে সমানতালে এগিয়ে যাচ্ছেন বলে তথ্য উঠে এসেছে।

উইসকনসিনে মারকুইট বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত জরিপে দেখা গেছে, নিবন্ধিত ভোটারদের মধ্যে ৪৯ শতাংশের সমর্থন রয়েছে জো বাইডেনের দিকে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিকে এ সমর্থনের হার ৪১ শতাংশ। গত মে মাসের শুরুর দিকে বাইডেনের প্রতি সমর্থন ছিল ৪৬ শতাংশ ভোটারের। সে সময় ৩ শতাংশ পয়েন্টে পিছিয়ে ছিলেন ট্রাম্প। একই সময়ে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের প্রতি জনসমর্থনও কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। মে মাসে এই পদে ট্রাম্পকে সমর্থন জানিয়েছিলেন ৪৭ শতাংশ নিবন্ধিত ভোটার। এ মাসে এসে তা ৪৫ শতাংশে নেমেছে। একই সঙ্গে বেড়েছে তাঁর বিরোধিতাও।


জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর সৃষ্ট পরিস্থিতি সামলাতে ট্রাম্পকে ব্যর্থ মনে করছেন অনেকেই। আর এটিই নতুন করে তাঁর জনপ্রিয়তা কমায় বড় ভূমিকা রাখছে। উইসকনসিনে ৮০৫ জন নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে চালানো জরিপের তথ্য বলছে, প্রতি ১০ জনে তিনজন ভোটার মনে করেন, ফ্লয়েড হত্যার পর ট্রাম্প সঠিকভাবে পদক্ষেপ নিয়েছেন। অন্যদিকে তাঁর প্রশাসনের বিরুদ্ধে হওয়া আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন ৬১ শতাংশ ভোটার। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় ট্রাম্পকে সমর্থন জানিয়েছেন ৪৪ শতাংশ ভোটার। আর এর বিরোধিতা করেছেন ৫২ শতাংশ ভোটার।


এদিকে ওহাইওতে ১১৩৯ জন নিবন্ধিত ভোটারদের ৪৬ শতাংশই সমর্থন জানিয়েছেন বাইডেনকে। আর ট্রাম্পকে সমর্থন জানিয়েছেন ৪৫ শতাংশ ভোটার। ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সির প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন ৪৪ শতাংশ ভোটার। অন্যদিকে তাঁর প্রেসিডেন্সির বিরোধিতা করেছেন ৫৩ শতাংশ ভোটার। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় তিনি ব্যর্থ হয়েছেন বলে মনে করেন ৫৪ শতাংশ ভোটার।


তবে ওহাইওতে বাইডেনকে এখনো ভালোই লড়াই করতে হবে। কারণ, সব মিলিয়ে তাঁর প্রতি সমর্থন বেশ নড়বড়ে। অর্থনীতির প্রশ্নে বাইডেনের চেয়ে সুস্পষ্টভাবে এগিয়ে রয়েছেন ট্রাম্প। এ ক্ষেত্রে ট্রাম্পের ওপর আস্থা রেখেছেন ৫৩ শতাংশ নিবন্ধিত ভোটার। এ ক্ষেত্রে বাইডেনকে সমর্থন দিচ্ছেন ৪৩ শতাংশ ভোটার। আবার বর্ণবাদ প্রশ্নে এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন। এ ক্ষেত্রে তাঁর অবস্থানের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন ৫৪ শতাংশ ভোটার। ৩৮ শতাংশ সমর্থন নিয়ে ট্রাম্প এ ক্ষেত্রে সুস্পষ্টভাবেই পিছিয়ে রয়েছেন। একইভাবে স্বাস্থ্য সুরক্ষা, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলা ও যেকোনো সংকট মুহূর্তে বাইডেনের দিকেই ঝুঁকে রয়েছেন ভোটারেরা। এসব ক্ষেত্রে বাইডেন থেকে ট্রাম্প গড়ে প্রায় ৬ শতাংশ পয়েন্ট করে পিছিয়ে রয়েছেন।

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ