বাংলাদেশের ১ম ভার্চুয়াল জাদু প্রতিযোগিতার জুলাই মাসের ফলাফল ঘোষনা

July 26, 2020, 3:32 AM, Hits: 144

বাংলাদেশের ১ম ভার্চুয়াল জাদু প্রতিযোগিতার জুলাই মাসের ফলাফল ঘোষনা

হ-বাংলা নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : নিউইয়র্ক প্রবাসী জাদুশিল্পী খান শওকতের নেতৃত্বে গঠিত বাংলাদেশ আমেরিকা ম্যাজিক সোসাইটির উদ্যোগে করোনার ক্রান্তিকালে বিপদগ্রস্থ জাদুশিল্পীদেরকে উৎসাহ প্রদান, তাদের সৃজনশীল চিন্তার মানোন্নয়ন ও সম্ভাব্য সহযোগিতার উদ্দেশ্যে প্রতিমাসে আমেরিকা থেকে ভার্চুয়াল জাদু প্রতিযোগিতার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। গত ২৫ জুলাইতে (১ম পর্বে) জুলাই মাসের প্রতিযোগিতার ফলাফল ঘোষনা করা হয়েছে। 

ফলাফল ঘোষনার সময় সংগঠনের সভাপতি খান শওকত বলেন, আমরা সবসময়ই বলেছি, শিল্পের বিচার করা খুব কঠিন কাজ। জাদু প্রতিযোগিতায় সম্ভাব্য নির্ভুল সিদ্ধান্তের জন্য আমরা সবার মতামত নিয়েছি। আমরা দর্শকদের ভোট নিয়েছি, প্রতিযোগিদের ভোট নিয়েছি, সহযোগী সংগঠনসমূহের ভোট নিয়েছি, দেশী বিদেশী বিচারকদের ও উপদেষ্টাদের ভোট নিয়েছি। সবার মুল্যবান মতামতের ভিত্তিতে বাংলাদেশ আমেরিকা ম্যাজিক সোসাইটির নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্তে চুড়ান্ত ফলাফল তৈরী করা হয়েছে। যিনি বিজয়ী হতে পারলেন না, তারও ম্যাজিকের কিন্তু প্রচার হচ্ছে অনলাইনে বিশ্বব্যাপী। একজন শিল্পীর জন্য এটাও কিন্তু একটা প্লাসপয়েন্ট। কার ভাগ্য যে কিভাবে খুলবে কেউ বলতে পারেনা। জানেনতো, প্রতিযোগিতা মানেই কেউ হারবেন, আর কেউ জিতবেন। এতে সবাইকে খুশী করা যায় না। তবে সকল নিয়মে নিরপেক্ষভাবে বিচারের চেষ্টার কোনো ত্রুটি আমরা করিনি। আজ (২৫ জুলাই ২০২০) ঘোষনা হচ্ছে বাংলাদেশের ১ম ভার্চুয়াল জাদু প্রতিযোগিতার জুলাই মাসের ফলাফল। 

১ম হয়েছেন: পাবনার সন্তান, ঢাকার কামরাঙ্গীরচরের বাসিন্দা এইচ আর বিজয়। 

২য় হয়েছেন: কুষ্টিয়া নিবাসী সেলিম আহমেদ। 

৩য় হয়েছেন: ফেনী নিবাসী জে.কে মাসুদ রানা। 

এবং শান্তনা পুরস্কার পেয়েছেন মাত্র ৫ বছর বয়সী শিশু প্রতিযোগি খুলনার কুমার শুভ্রদেব। ৪ বিজয়ীর কাছে সনদপত্র আমেরিকা থেকে প্রেরণ করা হবে এবং বিজয়ীদের পুরস্কারের টাকা বিকাশ নাম্বারে আগামী ৫ দিনের মধ্যে পৌছে যাবে।

এই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ আমেরিকা ম্যাজিক সোসাইটির সাথে সহযোগী সংগঠন হিসেবে আছে: ওযার্ল্ড হিউম্যান রাইটস এ্যন্ড ডেভেলপমেন্ট, জুপিটার ম্যাজিক ইন্টারন্যাশনাল, শাহমনি জাদু একাডেমী, রূপান্তর ম্যাজিক একাডেমী, কেরানীগঞ্জ কেরানীগঞ্জ ম্যাজিক সোসাইটি এবং ভানুমতির খেল ম্যাজিক ইন্টারন্যাশনাল। 

তিনি আরও বলেন, সবার দোয়া মাথায় নিয়ে, প্রতিমাসে নিয়মিতভাবে আমাদের প্রতিযোগিতা চলবে। আমরা সবাইকে সুযোগ দিতে চাই। করোনার এই দূর্দিনে জাদুশিল্পীদের মন ভালো রাখতে চাই। যে ৩ জন আজ বিজয়ী হলেন, তারা আর আমাদের প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন না। এই ৩ জন আমাদের সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক হিসেবে বাংলাদেশে কাজ করবেন। আগষ্ট মাসের প্রতিযোগিতার জন্য সকল প্রতিযোগিকে আগামী ১লা আগষ্ট থেকে ২০শে আগষ্টের মধ্যে ১টা ক্লোজ আপ ম্যাজিকের সর্বোচ্চ ৩ মিনিটের ভিডিও পাঠাতে হবে। 

অংশগ্রহনকারী প্রতিযোগিকে জাদু প্রতিযোগিতার জন্য ১টা আইটেম নিয়ে ম্যাজিক করতে হবে। ভিডিওতে কোন প্রকার এডিটিং করা যাবেনা। ফলাফল ঘোষনার পূর্বে এসব ভিডিও ইউটিউব বা কোন গ্রুপে প্রচার করা যাবে না। নির্ধারিত ম্যাজিক কম্পিটিশন ইন বাংলাদেশ ফেসবুক গ্রুপে অনলাইন জাদু প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এই গ্রুপেই প্রতিযোগিদের ভিডিও থাকবে। এখানে দর্শকদেরও মতামত নেয়া হবে। যে সকল প্রতিযোগীর ভিডিও থাকবে দর্শকরা যে কেউ বিচারক হিসেবে তাদের ভিডিওর নিচে কমেন্ট বক্সে ১ থেকে ১০ এর মধ্যে নাম্বার দিতে পারবেন। সর্বোচ্চ নং ১০ এবং সর্বনিম্ন ১ নং। দর্শকরা ভোট দেবেন, প্রতিযোগিরা ভোট দেবেন, সহযোগি সংগঠনের কর্মকর্তারা ভোট দেবেন, বিচারক মন্ডলী ও উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্যরা ভোট দেবেন, এরপর সবার ভোট এক করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। প্রতিমাসের ২১ থেকে ২৪ তারিখ বিচার বিবেচনা চলবে। ২৫ তারিখে চুড়ান্ত ফলাফল ঘোষনা করা হবে। ৩০ তারিখে বিকাশে টাকা পেয়ে যাবেন বিজয়ীরা। তাদের সনদপত্র আমেরিকা থেকে পাঠানো হবে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনকারীদের কাছ থেকে কোন রেজিষ্ট্রেশন ফিস নেয়া হবে না। বিজয়ীদের ১ম পুরস্কার: ৩,০০০ টাকা ও সনদপত্র। ২য় পুরস্কার: ২,০০০ টাকা ও সনদপত্র। ৩য় পুরস্কার ১,০০০ টাকা ও সনদপত্র। 

খান শওকত বলেন, করোনায় জাদুশিল্পীদের কোন শো নাই, কোন ইনকাম নাই। তাদের মনোবল ভেঙে পড়েছে। তারা সারাজীবন মানুষকে বিনোদন দিয়ে সবার জীবনকে উৎসাহিত করেছেন, অথচ আজ এদের পাশে কেউ নেই। শিল্পী হলেও এরাতো মানুষ। এদেরকেও পারিবারিক দায় দায়িত্ব পালন করতে হয়। এদেরকে উৎসাহ দেয়া দরকার। অন্যান্য শিল্পীদের মতো এরাও বেশ অভিমানী। মনে কষ্ট নিয়ে বসে থাকবে, কিন্তু কারো কাছে হাত পাতবে না। সবকিছু বিবেচনা করে এদের উৎসাহ, আনন্দ ও কল্যানে বাংলাদেশের ও প্রবাসের একদল জাদুশিল্পীর সহযোগিতায় এভাবে প্রতিমাসে নিয়মিত প্রতিযোগিতা চলবে। যারা বিজয়ী হবেন, তাদের নিয়ে ভবিষ্যতে আরও ব্যাপক উদ্যোগ নেয়ার পরিকল্পনা আছে আমাদের। এখানে একজন ম্যাজিশিয়ান আরেকজন ম্যাজিশিয়ানের পারফরমেন্স দেখার সুযোগ পাবেন। এতে করে পারস্পরিক সম্মান এবং বন্ধুত্ব আরও বৃদ্ধি পাবে। যোগ্য শিল্পীরা এগিয়ে যাবেন। এই করোনাকালে ঘরে বসে আপনার মেধা ও যোগ্যতা দিয়ে প্রতিমাসে আয়ের সুযোগ নিন এবং বিশ্বব্যাপী আপনার প্রদর্শনী পৌঁছে দিন। 

আমি খান শওকত ১৯৯০ সাল থেকে আমেরিকাতে জাদুপ্রদর্শনী করছি। বিভিন্ন দেশের জাদুশিল্পীদের সাথে আমার পরিচয় আছে। বাংলাদেশের জাদুশিল্পের কল্যানে আমরা সকল জাদু সংগঠনের এবং সকল জাদুশিল্পীর আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি। আসুন, সবার অংশগ্রহণে একটি সফল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান সম্পন্ন করি, এবং বাংলাদেশে পিছিয়ে থাকা একদল সম্ভাবনাময়ী তরুনকে বিশ্বের সামনে নিয়ে আসি। আপনাদের বন্ধুত্বের হাত প্রসারিত করুন। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ