প্রবাসী লেখকদের কলাম

Displaying 181-200 of 440 results.
ফ্রান্সের সাদা বরফের গল্প

ফ্রান্সের সাদা বরফের গল্প

ফ্রান্স দেশটা আমার কাছে ছবির মতো একটি দেশ। উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে আমার কাছে ফ্রান্স দেশটা একটু বেশি ব্যতিক্রমই মনে হয়েছে।

ইউরোপের অন্য দেশগুলোর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের বিপরীতে মানবসৃষ্ট সৌন্দর্য ও জৌলুসে ভরপুর। ফ্রান্স এ দিক দিয়ে ব্যতিক্রম, মানবসৃষ্ট কারুকার্যের পাশাপাশি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এই দেশটি।

এজন্যই পৃথিবীর ভ্রমণপিয়াসু মানুষের কাছে ফ্রান্স ভ্রমণ পছন্দের তালিকায় সবসময়ই প্রথম সারিতে। ফ্রান্সকে দেশের চারিদিকে ঘিরে রাখা পাহাড়-পর্বতগুলো দেখলেই মনে হয়, এইগুলো রাখাই হয়েছে ফরাসিদের প্রোটেকশন দেওয়ার জন্য।

দেখার মতো বিষয় হলো,......

পাহাড়-পর্বত আর বরফের দেশে

পাহাড়-পর্বত আর বরফের দেশে

মাহবুব মাসুম, জাপানের নাগানো থেকে : সত্যি অবাক করার মত একটা অঞ্চল জাপানের নাগানো। যত দূর চোখ যায় কেবল পাহাড় আর পর্বত মিলে আকাশ ছোঁয়েছে। শীতকালে পাহাড়-পর্বত একাকার হয়ে সাদা বরফেরুপান্তরিত হয়েছে। মনে হয় এ যেন সাদা পাহাড়ের দেশ!নাগানো অঞ্চলে রয়েছে ডজন খানেক পর্বতমালা। এছাড়া পুরো নাগানোটাই যেন পাহাড়ে ঢাকা। এ যাত্রায় উদ্দেশ্য বরফের দেশটাকে ঘুরে দেখা। প্রতিটা পর্বতের ভাজে ভাজে বিনোদনের জন্য গড়ে তোলা হয়েছে রকমারি স্কি পার্ক। যে সব পার্কে শীতের এ সময়টাতে হাজারো মানুষ আসে বরফের মধ্যে স্নো বোটিং করতে। কেউ আসে স্নো স্কি খেলতে। বিশাল পর্বতের উচু ভাজ থেকে সাই করে নিচের দিকে......

প্রবাসের ভাবনা- পারভীন বানু

প্রবাসের ভাবনা- পারভীন বানু

প্রবাসে এই রঙের খেলা,

গ্রীস্মে বসে কত মেলা।

শত শত সংগঠন,

কি করে হয় দেশ গঠন।

স্বেচ্ছাচারের নিয়মনীতি

নেই পরোয়া নেইকো ভীতি।

মুখোশ পড়ে হয়ে বাহির,

করছে কেহ নেতা জাহির।

পদটি নিয়েই কাড়াকাড়ি,

সভার মাঝেই মারামারি।

ধর্ম বলো রাজনীতি,

কোথায় আছে সুনীতি।

হাজার হাজার বিভক্তি,

নেই সুজনের আসক্তি।

হিংসা কিংবা বিদ্বেষে,

সময় কাটে পরদেশে। 

...

উন্নয়নের মহাসড়কে অভিবাসীরা দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিক যে কারনে

উন্নয়নের মহাসড়কে অভিবাসীরা দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিক যে কারনে

মাঈনুল ইসলাম নাসিম : নাগরিকদের কোন শ্রেণীবিন্যাসের সুযোগ আইনগতভাবে না থাকলেও এক কোটি প্রবাসী বাংলাদেশীরা বাস্তবে অনেক আগে থেকেই গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিকের ট্রিটমেন্ট পাচ্ছেন, সেটা আজ নতুন করে বলার নয়। তারপরও তা বলতে হচ্ছে ১৮ ডিসেম্বর ২০১৬ ঢাকায় সরকারীভাবে উদযাপিত আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসে ব্যবহৃত একটি ‘বানোয়াট ও ভিত্তিহীন’ প্রতিপাদ্য বিষয়ের পরিপ্রেক্ষিতে। “উন্নয়নের মহাসড়কে অভিবাসীরা সবার আগে” এমন ডাহা মিথ্যাচার করে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে প্রবাসীদের ধিক্কার কুড়িয়েছে। উন্নয়নের......

সত্যি একদিন হাসবে একাত্তরের বিজয়ের পতাকা = জাহাঙ্গীর বাবু

সত্যি একদিন হাসবে একাত্তরের বিজয়ের পতাকা = জাহাঙ্গীর বাবু

বিজয় দিবসে যখন শুনি ভিনদেশী গীত
লজ্জিত হয় স্বাধীনতা ,লজ্জিত জাতীয় সংগীত।

সে কি সন্মান,হাতের মুঠোয় ফুল ,ফুলের ডালিতে
খানিক পরেই ,ফুলের শ্রদ্ধার অর্ঘ্য লুটায় মাটিতে!

ক্যামেরার ফ্লাসে , ক্লিক ,ক্লিক, আলোকিত চারদিক
সংবাদ কর্মীর পাদুকার আঘাতে ,শহীদের আত্মা ছুটে কি দিগ্বিদিক ?

মানুষের উপর মানুষের ঢল ,শহীদ বেদীতে দেখায় বল
কার পূর্বে কে দেবে ফুল,হুড় মুড় ,লেগে যায় গন্ডগোল !

সে কি প্রতিযোগিতা,লক্ষ, কোটি ব্যায়ে ,ফুলের ডালি,সভা,সেমিনার ,
কে নেয় খবর  কেমন আছে ,কেমন থাকে শহীদ পরিবার?

মুক্তি যোদ্ধার সার্টিফিকেট নিয়ে প্রশ্ন বিদ্ধ করে স্বাধীনতা!
দেশপ্রেম দেখায়......

বুদ্ধিজীবী হত্যা পাকিস্তানী জান্তাদের চূড়ান্ত পরাজয়ের পূর্ব মুহুর্তের মরন কামড় =  মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

বুদ্ধিজীবী হত্যা পাকিস্তানী জান্তাদের চূড়ান্ত পরাজয়ের পূর্ব মুহুর্তের মরন কামড় = মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু ,সিঙ্গাপুর : স্বাধীনতার সূর্য দেখবে বলে, যারা দীর্ঘ নয় মাস এই অবরুদ্ধ নগরীতে বেঁচেছিলন অবিক্রীত স্বাধীন চিত্তসহ ওরা ভেবেছিল তাঁদের মেরে এ দেশকে যদি মেধাশূন্য করা যায় সারা জীবনের জন্য পঙ্গু হয়ে যাবে এই বঙ্গ ,কিয়দাংশে হয়েছে ও তাই .আজ যদি সে সব গুনি জন বেঁচে থাকতেন হয়তো হতে পারত এক অন্য রকম বাংলাদেশ।হিংসা হানাহানি হীন নির্লোভ বাংলাদেশ .শান্তির প্রতীক হত এই লাল সবুজের পতাকা।।পূর্ব পাকিস্তানকে ফিরে পাওয়ার সুপ্ত আশায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ফাটল ধরাতে এ দেশীয় রাজাকার আল বদর আল সমস বাহিনীর সহযোগিতায় রায়ের বাজার বদ্ধ ভূমিতে চালায় ইতিহাসের......

ঘুম কাঁতুরে দূতাবাস ও কনস্যুলেট : এতিম প্রবাসী বাংলাদেশ কমিউনিটি!

ঘুম কাঁতুরে দূতাবাস ও কনস্যুলেট : এতিম প্রবাসী বাংলাদেশ কমিউনিটি!

মনোয়ারুল ইসলাম : রাত পোহালেই দুঃসংবাদ। হামলা, হেট ক্রাইমসহ নানা অশুভ সংবাদ আসছে। স্বপ্ন ভংগের ট্রাম্পীয় ছায়া ইমিগ্র্যান্টদের তাড়া করে বেড়াচ্ছে। আমরা ভালো নেই।ভালো নেই বাংলাদেশ কমিউনিটি। ঘুম কাঁতুরে বাংলাদেশ দূতাবাস ও কন্সুলেট নীরব। এ ঘুম চোখের নয়। নয় রাত্রি নিশির ঘুম। এটি নির্লিপ্ততার ঘুম। দায়িত্বহীনতার ঘুম। কমিউনিটির অস্বস্তি ও উদ্বেগে সাড়া নেই। বরং সংগীত সন্ধ্যায় ব্যস্ত তারা। অবশ্য কনসাল জেনারেল শামীম আহসান একজন সংগীত পিয়াসী সজ্জন মানুষ। এ নিয়ে তার খ্যাতিও আছে। কিন্তু—–। নিউইর্য়কস গোটা আমেরিকায় লাখো বাংলাদেশী ভালো যে নেই তার খবর কি রাষ্ট্রদূত ও......

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, রোহিঙ্গা ইস্যুতে মালয়েশিয়ার সঙ্গী হোন!

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, রোহিঙ্গা ইস্যুতে মালয়েশিয়ার সঙ্গী হোন!

মোহাম্মদ আলী বোখারী, টরন্টো থেকে : একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন যে এক কোটি বাংলাদেশি প্রতিবেশী ভারতে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছিলেন, তারা গতকালের দৈনিক আমাদের অর্থনীতির শিরোনামে বিস্মিত হবেন বৈকি! তাতে উম্মুল ওয়ারা সুইটি রচিত সংবাদের শিরোনামটি হচ্ছেÑ ‘রোহিঙ্গাদের দুয়ার খুলে স্রোতের মতো আসতে দিতে পারি না : প্রধানমন্ত্রী’।

সেটি গত বুধবার বিকালে দশম জাতীয় সংসদ অধিবেশন চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রদত্ত বক্তব্য থেকে উদ্ধৃত। সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘মিয়ানমারের রোহিঙ্গা শরণার্থী......

রক্তের প্লাবনে ভাসছে মানবতা ,ধিক,বিশ্ব বিবেক = জাহাঙ্গীর বাবু

রক্তের প্লাবনে ভাসছে মানবতা ,ধিক,বিশ্ব বিবেক = জাহাঙ্গীর বাবু

আফগান ,ফিলিস্তিন ,সিরিয়া ,মায়ানমার ,
ফোরাতের তীরের মৃত্যুর কারবালা !
রক্তের নদী ,সাগর ,কসাইখানা যেনো মুক্তিযুদ্ধের ভয়াল একাত্তর !

লেখা ছাড়া আমার কিন্তু করার নেই কিছুই
যাদের আছে তাদের বলি ,আমার দেখানো মানবতায় কিচ্ছু হবে না,
চাইলেই আমার বাড়িতে স্থান দিতে পারবো না ,
একটি পরিবার,একটি শিশু,একজন নারী।

গল্প, কবিতা, টক,ঝাল ,মিষ্টি  শো তে আওড়াতে পারি
পত্রিকায় পাতায় চটকদার ,অশ্রু বিসর্জনের দু চার লাইন ,
কিংবা পাতার পর পাতা,পৃষ্ঠার পর পৃষ্ঠা  লিখে
চোখ ভিজেয়ে দিতে পারি ,রক্তের নদী হবে কি ?

বাংলাদেশ সরকারকে  আশ্রয় দিতে  বলছি দেয়া উচিত ,
আই ওয়াশ  মালয় মন্ত্রীকে......

প্রবাসী একটি  জাতির নাম =  মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

প্রবাসী একটি জাতির নাম = মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

ভালবাসার কাঙ্গাল বাড়ি ছাড়া,ব্যাথাতুর ,ঘর ছাড়া, সীমানার বাইরে জীবিকার সন্ধানে চলে আসা মানুষের নাম প্রবাসী। বিদেশী  বলেদেশের লোক,যে দেশে যায় তাদের দেশের মানুষ বলে অভিবাসী। যে যাই বলুক,ধর্ম,বর্ণ ভেদাভেদের বাইরে যে নাম তার নাম মানুষজাতি। আমি বলি প্রবাসী জাতি। এখানে ভোটাধিকার আর পাসপোর্ট বিড়ম্বনার কথাই  বলব.

প্রবাসীরা প্রবাস থেকে অনেকেই  নির্বাচনের সময় দেশে যেতে পারে না। প্রয়োগ করতে পারে না গনতান্ত্রিক অধিকার। নিজের  পছন্দেরব্যক্তিকে দিতে পারে না ভোট। শুনেছি লন্ডন আমেরিকায় নাকি দিতে পারে , কোন বিশেষ অঞ্চলের লোক। বাংলাদেশের  যারা  বিদেশেথাকে তারা একটি......

স্বপ্নের মালয়েশিয়ায় দুঃস্বপ্নের জীবন

স্বপ্নের মালয়েশিয়ায় দুঃস্বপ্নের জীবন

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল, মালয়েশিয়া থেকে : কাকডাকা ভোরে ঘুম থেকে উঠেই হোটেলে হাউজকিপিংয়ের কাজ করতে ছুটে চলা আর রাতে কাজ শেষে বাসায় ফিরে ক্লান্ত হয়ে ঘুম। আবার সকাল হলেই কাজে ছুটে চলা। গত চার মাস ধরে এভাবেই দিনরাত কাটছে মালয়েশিয়া প্রবাসী ১৬ বছরের সুদর্শন যুবক মোফাজ্জলের।

দু’চোখ ভরা স্বপ্ন নিয়ে স্টুডেন্ট ভিসায় মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমালেও কয়েক মাসের মধ্যেই মোফাজ্জেলের কাছে প্রবাসের এ জীবন দুঃস্বপ্নের জীবন হয়ে ওঠে। স্থানীয় এক এজেন্টের মাধ্যমে মাসিক দেড় হাজার রিঙ্গিত বেতনে কুয়ালালামপুরের একটি হোটেলে কাজ করছেন তিনি। প্রায় পাঁচ মাস আগে তিন লাখ টাকা খরচ করে মালয়েশিয়ায়......

‘তোমার জন্য সব করতে পারি’ =  মাকসুদা আকতার প্রিয়তি

‘তোমার জন্য সব করতে পারি’ = মাকসুদা আকতার প্রিয়তি

আমাদের শিল্পীদের সমস্যা টা কি? আমরা যখন লাইম লাইটে আসি, তখন আমরা আসলেই লাইম লাইটে থাকাটা ভালোবাসি অথবা পছন্দ করি। কিন্তু এটা কি দোষের কিছু? কে না পছন্দ করে মানুষের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হতে, দৃষ্টি আকর্ষণ করতে যদি সেটা পজিটিভ হয়? সবারই মনের ভেতরে এই গুপ্তবাসনা কাজ করে। হয়তো ক্ষেত্র টা আলাদা হতে পারে। শিল্পীরাও মানুষ।তাদেরও মন আছে। আমরা ৮/১০ জন সাধারণ মানুষের মতো প্রেমে পড়ি, কাউকে ভালোবাসি, কাউকে নিয়ে সারাজীবন কাটিয়ে দেয়ার স্বপ্নও বুনি।

প্রেম যখন অন্ধ, ভালোবাসা যখন গভীর তখন আর সবার মতো আমাদের শিল্পীদেরও মনে হয় এই ভালোবাসার মানুষটিকে ছাড়া আমরা বাঁচবো না। ভালোবাসার......

(রম্য কবিতা ) প্রেম,ভালোবাসা, বিয়ে = মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

(রম্য কবিতা ) প্রেম,ভালোবাসা, বিয়ে = মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

ভালোবাসি বলেছি বহুবার যারে ,সেশুধু কষ্ট দেয় মোরে।

ভালোবাসি ভালোবাসি ভালোবাসি ,বিবাহের  পূর্বে যতো ,

মন ভূলানো কথা বলে দুজনে ,বুঝে ঠেলা ,খরচের ফর্দ হাতে এলে।

 

সংসার হয় বড় যতো মোহাব্বত ভালোবাসা ঘৃনায় বড়ো হয় তত ,(সবার তরে নাও হতে পারে । )

কেউ ভালোবাসে অর্থ বিত্ত গাড়ি বাড়ি ,কেউ ভালোবাসে বুকের জমিন

সুখ দুঃখ আনন্দ বেদনা সব ,হাতে হাত রেখে মরতেও পারে।

বাস্তবে নারী ,সঙ্গিনীর ভালোবাসা  শুধু মোহ ,প্রয়োজন ,

যে আকর্ষণ ভালোবাসা হয়ে কবিতা,কাব্য নাটকে উপচে পড়ে।

 

কেউ সুখী আলু ভর্তা ভাতে ,গাছতলার রাতে ,বকুল ফুলের মালাতে (সম্পূর্ণ মিথ্যা)

কেউ অসুখী......

কেন মুসলিম নিধন দেশে দেশে

কেন মুসলিম নিধন দেশে দেশে

রাশিদ রিয়াজ : প্রতিবেশি দেশ মিয়ানমারের রাখাইন স্টেটে যে রোহিঙ্গা মুসলিম নিধন চলছে তা যে হত্যাযজ্ঞ বা জাতিগত নিধন, জাতিসংঘ বা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোর এ নিয়ে কোনো সন্দেহ আর নেই। কিন্তু ইসলাম শান্তির ধর্ম হলে এর অনুসারীদের কেন দেশে দেশে এভাবে সন্ত্রাসের শিকার হতে হচ্ছে এর কোনো সদুত্তর বা তা প্রতিরোধে বুদ্ধিবৃত্তিক কোনো কৌশল ধর্মীয় নেতাদের কাছ থেকেও পাওয়া যাচ্ছে না। যে ধর্ম নিজের আচরণের বিরুদ্ধেই প্রয়োজনে সর্বাগ্রে জিহাদ করার নির্দেশ দিয়েছে সে ধর্মের নামে জিহাদ বা জঙ্গি তৎপরতার পেছনেই বা কারা ইন্ধন দিচ্ছে? কোত্থেকে তারা অস্ত্র ও অর্থ পাচ্ছে? এসব অপতৎপরতার......

প্রবাসী বাবর আলীদের মন যখন ট্রানজিট সম

প্রবাসী বাবর আলীদের মন যখন ট্রানজিট সম

মুহামদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু :  সিঙ্গাপুর : বিদেশে যারা ঘুরতে আসে, চিকিৎসার জন্য আসে, তাদের সময় দিতে কর্মরত প্রবাসীদের ভালো লাগে  ,  মায়া লাগে ,আবেগ কাজ করে,দেশ প্রেম জেগে উঠে টেকনাফ আর তেঁতুলিয়া ,সবাই দেশি ,পড়শী, এমনকি কলকাতার বাঙ্গালীদের ও আপন মনে হয়.কাজ কর্ম ছেড়ে এসে সময় দিতে হয় । এই প্রবাসী মানুষটি দেশে গেলে এই ব্যাক্তিরা তাদের কাজ কর্ম ছেড়ে দেখা করতে আসে না। ধনীরাই বিদেশে ঘুরতে আসে,চিকিৎসা করাতে আসে। বিদেশে এলে  এই ধনীরা বিদেশী কর্মরত অভিবাসীদের , গরীবের বন্ধু হয়। দেশে গেলে  সিরিয়াল দিয়েও  দেখা পাওয়া যায় না। দু, চার জনের সাথে প্রবাসী গিয়ে দেখা করে। কারো সাথে......

জাপানে প্রবীণদের এ কেমন জীবন?

জাপানে প্রবীণদের এ কেমন জীবন?

তানজীনা ইয়াসমিন : এক অতিপ্রাকৃত আওয়াজে ঘুম ভেঙে গিয়েছিল ছুটির দিন ভোরে। পাগলা ঘণ্টির মতো ছোটা এই প্রবাস জীবনে ছুটির দিনের লেপের ওমের ভেতর থেকে ঘুম ভাঙা এক অসহ্য অভিজ্ঞতা। মনে মনে বললাম , ‘কী যন্ত্রণা!’ থেমে থেমে কয়েকবার শুনতে পেলাম, আর উত্তরোত্তর পাশ বালিশে কানচাপা দিয়ে গেলাম। সকাল ১০টায় লাটসাহেবি ঘুম থেকে উঠে নাশতা বানাতে চুলার কাছে দাঁড়িয়ে অবচেতনেই চোখ গেলো পেছনের বিল্ডিংয়ে। কিছু কালো স্যুট-প্যান্ট, স্কার্ট পরা মানুষের আনাগোনা। এবারে খেয়াল করেই দেখলাম বিশেষ ধরনের গাড়ি দাঁড়িয়ে আছে, আপদমস্তক মুড়ে কোনো মানুষকে স্ট্রেচারে বের করে সেই গাড়িতে ঢোকাচ্ছে।  উল্লেখ্য,......

মুক্তিযোদ্ধারা কি সব মরে গেছে

মুক্তিযোদ্ধারা কি সব মরে গেছে

আটলান্টিক সিটি থেকে সুব্রত চৌধুরি- : মার্কিন মুলুকে প্রবাস জীবনের উদ্দেশ্যে  চার বছর আগে  যখন নিজ বাসভূম ছাড়ি,তখন ছোট আত্মজর বয়স ছিল আট বছর।প্রবাসে পা রাখতেই আমরা বাস্তবতার কঠিন সত্যের মুখোমুখি।সেই কঠিন সত্যকে জয় করতে গিয়ে  আত্মজের সাথে সময় কাটানো দুরুহ হয়ে উঠেছিল, কারন আত্মজের স্কুলের  ছুটির সাথে আমাদের কর্মস্থলের ছুটির কোনও  মিল হচ্ছিল না।মাঝে-মধ্যে রাতে খাওয়ার টেবিলে একসাথে বসার সুযোগ মিললে টুকটাক মামুলি কথাবার্তা হতো।

প্রবাস জীবন আস্তে আস্তে ধাতস্থ হয়ে আসলে ফুরসৎ মেলে আত্মজের সাথে সময় কাটানোর, তখন  বিশ্ব চরাচরের নানাবিধ বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা......

মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী স্বরণে =  মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী স্বরণে = মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

নির্লোভ এক নেতার নাম মাওলানা ভাসানী ।

সাতচল্লিশের ভারত থেকে পাকিস্তান

একাত্তরে পাকিস্তান থেকে পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধীনতা ,

লালা সবুজের বাংলাদেশের স্বাধীনতায়

 মাওলানার ভূমিকা ছিলো অগ্রণী

ক্ষমতার মোহহীন এক নেতার নাম,

মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী।

উন্নিশো ছাব্বিশ সালে  আসামে প্রথম

কৃষক-প্রজা আন্দোলনের সুত্রপাত ঘটান তিনি ।

উন্নিশো ঊনত্রিশ সালে  আসামের ব্রহ্মপুত্র নদের ভাসান চরে

প্রথম কৃষক সম্মেলন করেন আয়োজন ।

এখান থেকে তার নাম রাখা হয় "ভাসানীর মাওলানা"

এরপর থেকে তার নামের শেষে যুক্ত হয়......

এক টেবিল বিক্রির সত্য কাহিনি

এক টেবিল বিক্রির সত্য কাহিনি

মাহরীন ফেরদৌস, ক্যানসাস (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে : আমেরিকা এসে প্রথম প্রথম আমরা স্বামী-স্ত্রী দুজনই অনেক দিন খাঁটি বাঙালি স্টাইলে কার্পেটের ওপর গ্লাস-প্লেট নিয়ে বসে খাওয়া দাওয়া করতাম। এভাবে বেশ কয়েক মাস যাওয়ার পর একদিন বেশ আচানকভাবেই একখানা ডাইনিং টেবিল কিনে ফেলা হলো। আমের সঙ্গে যেমন ছালা লাগে, ঠিক তেমনি টেবিলের জন্য টেবিল ক্লথ আর চেয়ারের জন্য কভার কিনে ফেললাম আমরা। মাঝে বেশ অনেক দিন কার্পেটে বসে খাওয়া দাওয়া করে অভ্যাস হয়ে গিয়েছিল। তাই টেবিল আসার পর আবিষ্কার করলাম আমরা চেয়ারে দুই পা তুলে আয়েশ করে বসে খাওয়া দাওয়া করতে ভালোবাসি।
এরপর ভাবলাম, নাহ, অভ্যাস খারাপ হয়ে......

দেখা হয়না কিছুই ,থাকি যে শহরে!  = মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

দেখা হয়না কিছুই ,থাকি যে শহরে! = মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

দেখার সুযোগ হয়না কিছুই ,থাকে  যে শহরে
কাক ডাকা ভোরে ছুটে চলা , পথ ধরে গন্তব্যে
রাতের আঁধারেফিরে  আসা সভ্যতার গিঞ্জি কুটিরে
দেখা হয়না কিছুই ,থাকে  যে শহরে ।

ছুটির দিনে  যায়  যদি ,
শহরের বাংলাদেশীদের জমায়েতের স্থানে
মনে হয় আছে সদর  ঘাট,গাবতলী নয়তো গুলিস্তানে ,
ছোট্ট একটি বাংলাদেশ যেন প্রবাসের বুকে ,
নিঃশ্বাস নেয় ,ছাড়ে দীর্ঘশ্বাস !
মায়ের ভাষার খৈ ফুটে সবার মুখে,
দেখা হয়না কিছুই ,থাকি যে শহরে।

সিঙ্গাপুরে সেন্তোসা আইল্যাণ্ড,মেরিনা বে ,চিড়িয়াখানা
বার্ড পার্ক ,পোলাউবিন ছাড়াও আছে কত স্থান
সময়ের অভাবে দেখা হয় না যাওয়া হয়না
পকেট ও থাকে টান টান !
......

সর্বাধিক পঠিত