প্রবাসী লেখকদের কলাম

Displaying 101-120 of 387 results.
মেরির দুঃস্বপ্নের দায় কার?

মেরির দুঃস্বপ্নের দায় কার?

একটি বিস্ফোরণের মাধ্যমে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হয়েছিল। কার্যত তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর আশঙ্কা সেদিন থেকেই শুরু হয়েছিল। তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হবে সব যুদ্ধের শেষ যুদ্ধ। এমনকি মানবজাতির ইতি ঘটানোর শেষ খাঁটি যুদ্ধ। বিজ্ঞানী অ্যালবার্ট আইনস্টাইন বলেছিলেন, তিনি জানেন না, ঠিক কোনো অস্ত্র দিয়ে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হবে। কিন্তু চতুর্থ বিশ্বযুদ্ধ লাঠি আর পাথর দিয়ে হবে বলে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন আইনস্টাইন।

গত সাত দশকের পাপের বোঝা এখন পরাশক্তির কাঁধে। যুদ্ধের দামামা বাজছে। এ যুদ্ধ কোথায় নিয়ে যাবে, এমন প্রশ্নের উত্তর কারও জানা নেই। যেমন জানেন না আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড......

প্রবাসীর মরদেহ সরকারি খরচে দেশে পাঠানো হোক

প্রবাসীর মরদেহ সরকারি খরচে দেশে পাঠানো হোক

মাহবুব সুয়েদ, পর্তুগাল থেকে:পৃথিবীতে মানুষ আসে একা, চলেও যায় একা। এটা নিয়তি, এটাই বাস্তবতা। সবাই চান মাঝখানের এই সফরে সুখ সমৃদ্ধি আর ভালোবাসার বৃত্তে থেকে জীবন কাটাতে। মা-বাবা, ভাই-বোন আর প্রিয়তমা স্ত্রী-সন্তানদের মুখের দিকে চেয়ে বা একটু আলাদা সুখ লাভের আশায় কিছু মানুষ পাড়ি দেন অন্য দেশে। জীবন আর জীবিকার টানে তিনি হয়ে যান পরবাসী। নিজ দেশ থেকে হাজার মাইল দুরে এসে থিতু এবং কষ্টার্জিত টাকাগুলো মাস শেষে দেশে থাকা প্রিয়জনের কাছে পাঠাতে বাধ্য হন। পশ্চিমা বিশ্বে যারা আসেন তারা হয়তো মানবাধিকার ভোগ করতে পারেন আজকাল, কিন্তু যারা মধ্যপ্রাচ্য বা আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে যান জীবন......

উষা রঞ্জনের স্বপ্ন

উষা রঞ্জনের স্বপ্ন

পি আর প্ল্যাসিড, টোকিও (জাপান) থেকে : জাপানে কোনো কোনো বাংলাদেশির ইচ্ছা ও অক্লান্ত পরিশ্রম এনে দেয় তাদের সফলতা। পরবর্তীতে যার ফল ভোগ করেন তারা নিজেরা। কখনো কখনো ভোগ করি আমরা প্রবাসী বাংলাদেশিরাও। এমনকি তাদের একক প্রচেষ্টার ফলে অর্জিত সফলতার সঙ্গে গৌরবের সঙ্গে জড়িয়ে যায় দেশের নামও। শুধু তাই নয়, তাদের একক প্রচেষ্টায় অর্জিত সাফল্যের জন্য উজ্জ্বল হয় বাঙালি জাতি ও বাংলাদেশের নাম। জাপানে এমনই একজন সফল মানুষের নাম উষা রঞ্জন দাস (৪৭)। 

তিনি জাপানে এসেছেন ১৯৯৫ সালের ডিসেম্বর মাসে। ১৯৯২ সালে বাংলাদেশ মেরিন ফিশারিজ একাডেমি (চট্টগ্রাম) থেকে মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে......

‘উপজেলা’ ও ‘গ্রাম সরকার’ সম্পর্কিত মিথগুলো বুঝতে হবে; স্থানীয় সরকারের প্রকার, স্তরসংখ্যা ও গন্তব্য ঠিক করতে হবে; গণস্বপ্ন ২০২০, গণস্বপ্ন ২০৫০ এবং নকলবাজী বাহাস বুঝতে হবে

বাপসনিউজ (হাকিকুল ইসলাম খোকন): স্থানীয় সরকারের প্রকার, স্তরসংখ্যা ও গন্তব্য আগে কেন ঠিক করতে হবে তা জানতে হলে, বুঝতে হলে বিদ্যমান স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা ও এর অতীত সম্পর্কে ভাল ধারণা থাকতে হবে; পাশাপাশি অতীতে স্থানীয় সরকারকে নিয়ে অবৈধ শাসকদের অসৎ উদ্দেশ্যমূলক কর্মকান্ড, তার ধারাবাহিকতা, কুফলগুলো ও মিথগুলো কিভাবে জনগণ, সরকার, রাজনৈতিক দল, সুশীলসমাজ ও এনজিওগুলিকে প্রভাবিত করে চলেছে তাও ভালভাবে জানতে হবে, বুঝতে হবে। এই লেখাটি অবয়বে ছোট্ট রাখতে কেবল বাংলাদেশ আমলের দুইজন অবৈধ শাসক এর অপকর্মের স্মারক হিসেবে “উপজেলা” ও “গ্রাম সরকার” সংক্রান্ত মিথগুলো ও এগুলোর......

‘ম’-তে মা

‘ম’-তে মা

আবদুল্লাহ জাহিদ,ম্যানেজার, কুইন্স লাইব্রেরি, নিউইয়র্ক :কলেজের ফ্রেশম্যান যে ছেলেটা লাইব্রেরি কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের সাহায্য করে, আমার রুমে এসে বলল, সে লাইব্রেরির পাবলিক কম্পিউটারের পাশে একটা সেলফোন পেয়েছে। কী করব? জানতে চাইল। আমি বললাম, ‘ওর মাকে ফোন করো।’ ছেলেটা বলল, ‘কেমন করে? আমি তো ওর মায়ের ফোন নম্বর জানি না।’ আমি বললাম, ‘খুব সোজা, অ্যাড্রেস বুকে যাও, এম বোতাম চাপো, দেখবে সেভ করা আছে মা অথবা মম।’ ছেলেটা তা-ই করল এবং মায়ের নম্বর পেয়েও গেল। ওই ফোন থেকেই ফোনের মালিকের মাকে ফোন করে সব বৃত্তান্ত বলল ও। কিছুক্ষণের মধ্যেই বৃদ্ধা মা চলে এলেন......

 চির ত্যাগী এবং সদা সুখী আমার মা

চির ত্যাগী এবং সদা সুখী আমার মা

শুধু মা দিবসেই নয়, প্রতি মুহূর্তে প্রতিটি সন্তানের মায়ের প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা অফুরন্ত। এ ভালোবাসা কোনো দিবস দিয়ে, কোনো মাপকাঠি দিয়ে পরিমাপ করা সম্ভব নয়। মা কে নিয়ে কিছু লিখতে হাত কাঁপে। বুক কাঁপে। আমার জন্মলগ্নে মা আমার এক দুরারোগ্য চক্ষু ব্যাধিতে আক্রান্ত হলেন। বহু চিকিৎসা হলো। অসুখ তাঁর সারেনি। মা দুরারোগ্য চোখের অসুখ নিয়ে আমাকে লালন করলেন। নিজের ব্যথা আর কষ্ট সহ্য করে প্রতি নিয়ত আমাকে দেখভাল করে স্বাভাবিক জীবন ধারার যে নিশ্চয়তা দিয়েছেন তা উপলব্ধি করা আমার পক্ষে অসাধ্য।

প্রবাস জীবনে আমি মাকে প্রতিনিয়ত মিস করি। তার স্বভাবসুলভ ডাক। মাথায় হাতের স্পর্শ, কিংবা......

প্রত্যাবর্তন

প্রত্যাবর্তন

বঙ্গবন্ধু ন্বদেশ প্রত্রাবর্তন করলেন আকাশপথে

লন্ডন থেকে দিল্লী হয়ে নিজ বাসভূমিতে এলেন ‘রয়েল ব্রিটিশ’রথে।

তার সম্মানে একুশবার করা হলো তোপধ্বনি

চারিদিকে দেখি লাখো মানুষের আনন্দোল্লাসের খঞ্জনী।

সেদিন রেসকোর্স ময়দানে ছিলো লাখো মানুষের ঢেউ

আবেগে আপ্লুত হয়ে কথা বলছিলো না কেউ।

যখনই বিমান বন্দর থেকে নেতৃবৃন্দের সাথে মুজিব পৌছলেন ময়দানে

বাঙালি জাতি যেন মেতে উঠলো ‘জয় বাংলা’, ‘জয় বঙ্গবন্ধু’ জয় গানে।

রেসকোর্সে বঙ্গবন্ধুর আঁখি ছিলো অশ্রুজল

অন্তর-আবেগে বড় ভারী ছিলো তার পদতল।

সাত কোটি সন্তানেরে রেখেছো বাঙালি করে মানুষ করোনি বলেছিলেন বিশ্বকবি

......

বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে মূসক

বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে মূসক

রানা টাইগেরিনা, টরন্টো (কানাডা) থেকে : মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট। বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের কাছে এই মূল্য সংযোজন কর ভ্যাট নামেই পরিচিত। ভ্যাট (ভ্যালু অ্যাডেড ট্যাক্স) একটি হিসাবনির্ভর আধুনিক কর। সাধারণত কোনো পণ্য বা সেবার ভোক্তার ওপর এই কর আরোপিত হয়।

কোনো কোনো দেশে এটাকে গুডস অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স (জিএসটি) বলা হয়ে থাকে। যখন একটি পণ্য আমদানি করা হয় বা কারখানায় উৎপাদিত হয় সেখান থেকে খুচরা বিক্রি পর্যন্ত প্রতি ধাপে পণ্যটির ওপর যে মূল্য সংযোজিত হয়, সেই মূল্যের ওপর মূসক বসে। তবে এই কর আমদানি বা উৎপাদন থেকে খুচরা পর্যায় পর্যন্ত বিভিন্ন ধাপে আরোপ বা আদায় করা হলেও......

বিভ্রান্ত পথিক

বিভ্রান্ত পথিক

কোজি বিচের উত্তর দিকে পাথরের ঢালে অনিল অনেকক্ষণ ধরে বসে আছে। আনমনা। কী যেন ভাবতে ভাবতে হঠাৎ একটি বড় পাথর নিয়ে-নিজের ডান হাতটাকে ছেঁচে ফেলতে উদ্যত হলো।

এরপর ভগ্ন কণ্ঠে পাগলের মতো বারবার বলতে লাগল, আমার কি হয়েছিল তখন? এ আমি কি করলাম। কেন করলাম?

বেশ কিছুক্ষণ আগলে রেখে একসময় পাথরটা ছুড়ে ফেলে আবার সাগরের পানে চেয়ে থাকে অনিল। স্নিগ্ধ কোমল একটা মুখ যেন ভেসে ওঠে সাগরের নীল জলে। যা হবার তা হয়ে গেছে। ওই দিন আর ফিরে আসবে না। তবে কেন আর ওসব নিয়ে ভাবা। ক্ষুদ্র এ জীবনের সুন্দর সুন্দর বছরগুলো তো চলেই যাচ্ছে। বাকি জীবনটা কী করে সুন্দর হবে ওই চেষ্টা করাই কী ভালো নয়। এত পরিশ্রমে গড়া......

মা জননী গর্ভধারিণী

মা জননী গর্ভধারিণী

রানা টাইগেরিনা, টরন্টো (কানাডা) থেকে : আমার জীবনের শৈশব কৈশোর ও আবাল্যবেলার সবটুকুই কেটেছিল আমার নানু বাড়িতে। নানাজানের অতি আদর আর ছোট খালামণির ভালোবাসা এই দুটি ছিল আমার মাতৃস্নেহ। তাই মায়ের স্নেহ কি জিনিস না জানলেও কাল্পনিক অনুভূতিতে সেটা হাতড়ে বেড়াই আর খুঁজে খুঁজে ফিরি।

প্রায় আট মাসের গর্ভাবস্থায় এক দ্বিপ্রহরে আমার মা ছোট মামার সঙ্গে নানু বাড়ি এসেছিলেন আমাকে দুনিয়ার মুখ দেখাতে।

নানু বাড়িতে আতুর ঘর নামে একটা ছোট্ট কক্ষ ছিল।

সেই ঘরে অন্যান্য খালাতো-মামাতো ভাইবোনদের মতো আমারও আগমন ঘটে এই পৃথিবীর বুকে।

অক্টোবরের বিশ তারিখে। সে হিসেবে আমি একজন তুলারাশির......

‘জনমের শোধ ডাকি গো মা তোরে’: ফারুক ওয়াহিদ

‘জনমের শোধ ডাকি গো মা তোরে’: ফারুক ওয়াহিদ

মা দিবস স্মরণে: ‘মা’ এক বর্ণের এক বিশাল সর্বজনীন নাম এবং পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর মধুরতম শব্দ! ছোট্ট একটি শব্দ এই ‘মা’ নিয়ে কত ছড়া, কত কবিতা, কত গল্প, কত উপন্যাস-উপাখ্যান, কত গান রচিত হয়েছে- তার হিসেব কি কেউ রেখেছেন? এই মায়ের ভালোবাসাকে কি কখনও খন্ডন করা যায়? মায়ের ভালোবাসা বিজ্ঞানের মাপকাঠিতে নির্ণয় করা সম্ভব নয়। এই মা-এর তুলনা যে একমাত্র এই মমতাময়ী মা-ই যার কাছে খুঁজে পাওয়া যায় মমতার সুশীতল স্নিগ্ধ ছায়া। মাকে পৃথিবীর যে ভাষাতেই ‘মা’ ডাকা হোক না কেন- সেখানে সমার্থক শব্দটিতে বাংলা বর্ণ ‘ম’ বা ইংরেজি ‘এম’ অক্ষরটা থাকবেই।

বিশ্ব মা দিবসে পৃথিবীর সব মা বিশেষ করে সকল বাঙালি......

মা যে আমার সাত রাজার ধন

মা যে আমার সাত রাজার ধন

কিশোরী মায়ের আদরের দুলাল, হয়ে গেছি বুড়ো

মায়ের কাছে আজও আমি রয়ে গেলাম ছোট।

মা বলে ডাকি যখন, বাবা বলে বলে, খোকন

একটুখানি অসুখ হলে, আজও মায়ের অশ্রু ঝরে।

খেলার মাঠে যেতাম যখন, মা আড়ালে দেখত তখন

একটুখানি হোঁচট খেলে, মা বলত উফ।

পড়ার টেবিলে রাত জাগলে, মা বসে থাকত পাশে

ভোর সকালে আজান হলে, তুলত আদরের ডাকে।

প্রবাসে আসি আমি যখন, মা যে আমার কাঁদে তখন

ফিরে গেলে মায়ের কোলে, কপাল চোখে চুমু আঁকে।

হামাগুড়ি, শৈশব, কৈশোর কিংবা যৌবনকাল

মায়ের কাছে কচি খোকা, হোক সে বৃদ্ধকাল।

মায়ের এক ফোঁটা দুধের ঋণ, কেউ শোধিতে না পারে

মা থাকিতে মা ডাকতে পারে না, সে যে অভাগারে।

প্রথম......

"সব সম্ভবের দেশ বাংলাদেশ”

"সব সম্ভবের দেশ বাংলাদেশ”

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি: জাহিদ এফ সরদার সাদী'র এই চার শব্দের স্ট্যাটাসটি দেখে অনেক পাঠকই বুঝতে পেরেছেন উনি কি বলতে চেয়েছেন। যেই দেশে মৃত আত্মঘাতী জঙ্গী জীবিত হয়, যেই দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলে পুলিশের "ধাক্কা-ধোক্কা খেয়ে” বোমা বিস্ফোরণ হয়, সেই দেশে মারামারি ও চুরির মামলায় ১০ মাসের শিশুকে পুলিশের অভিযুক্ত করাটা তো আর অস্বাভাবিক কিছু না ? "বাংলাদেশে মারামারি ও চুরির মামলায় ১০ মাসের শিশুকে অভিযুক্ত করেছে পুলিশ" এই শিরোনামে বিবিসি বাংলার নিউজটি তার ফেসবুকে শেয়ার করে তিনি চার শব্দের স্ট্যাটাসটি দেন ….. ”সব সম্ভবের দেশ বাংলাদেশ”। তার এই শিরোনামের মধ্যেই বর্তমানে......

নিউইয়র্ক থেকে বাসযাত্রা

নিউইয়র্ক থেকে বাসযাত্রা

নিউইয়র্ক থেকে বাসে উঠেছি। যাব নায়াগ্রা জলপ্রপাত দেখতে। লোকাল বাস নয়, টুরিস্ট বাস। বাস ভর্তি মানুষ। সবাই মনে হলো টুরিস্ট। বিভিন্ন দেশি লোকজন। চায়নিজ, জাপানিজ, কোরিয়ান, ভিয়েতনামিজ। দেশি বলতে শুধু কিছু ইন্ডিয়ান দেখতে পাচ্ছি। আমি, আমার স্ত্রী আর দুই বছরের ছেলে বসে আছি বাসের মাঝামাঝিতে একটি সিটে।

তখন খুব সকাল, মৃদু রোদ্দুর নিউইয়র্কের উঁচু উঁচু বিল্ডিংয়ের ফাঁক গলে সোনালি আলো ছড়াচ্ছে। রাস্তাঘাটে তখনো যান অথবা মানুষের চলাচল খুব একটা শুরু হয়নি। সকালবেলার সুনসান নিউইয়র্ক দেখে মনে পড়ে ঢাকার মতিঝিলের কথা। নটর ডেম কলেজে থাকাকালে মেস করে মতিঝিল এলাকায় থাকতাম। ছুটির দিন......

এখন কি জয়কে ‌‘ডাকাতির বরপুত্র’ বানাবে না দালাল মিডিয়া ??? - সাদী

এখন কি জয়কে ‌‘ডাকাতির বরপুত্র’ বানাবে না দালাল মিডিয়া ??? - সাদী

 ২০০১ সালের অক্টোবর থেকে ২০০৬ সালের শেষ পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিল বিএনপির নেতৃত্বাধীন ৪ দলীয় জোট। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান ছিলেন দলের আরো বহু যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের একজন (বর্তমানে অবশ্য সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে আছেন)। সরকারি কোনো পদে কখনো ছিলেন না তারেক রহমান।

তবে বাংলাদেশের স্বাভাবিক রাজনৈতিক চর্চা অনুযায়ী ক্ষমতাসীন দলের প্রধানের সন্তান হওয়ার সুবাধে অন্য অনেকের চেয়ে অনেক বেশি প্রভাবও ছিল নিশ্চয়ই ছোট খাটো অনেক মন্ত্রীর চেয়ে বেশি।

কিন্তু সরকারি কোনো......

নারী নেতৃত্ব্যে অদম্য হিলারি

নারী নেতৃত্ব্যে অদম্য হিলারি

তামান্না ইসলাম, হ-বাংলা নিউজ : এবারের আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ছিল সব দিক দিয়ে বেশ উল্লেখযোগ্য। ডেমোক্র্যাট আর রিপাবলিকানের চিরায়ত লড়াই তো ছিলই, কিন্তু সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ঘটনা ছিল আমেরিকা এই প্রথমবারের মতো একজন নারীর প্রেসিডেন্ট হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করেছিল। নির্বাচনে উত্তেজনা, বিতর্ক—সব ছাপিয়ে আমি বেশ গর্বসহকারে কাটিয়েছি ওই সময়টা। তৃতীয় বিশ্বের দেশ হয়ে আমরা সেই কবে পেয়েছি নারী সরকারপ্রধান, আর এসব বিষয়ে এগিয়ে থাকা দেশে সে কী গুঞ্জন—‘আমেরিকা কি আসলেই নারী প্রেসিডেন্ট......

চোখজুড়ানো নায়াগ্রা

চোখজুড়ানো নায়াগ্রা

নিউইয়র্ক সিটি থেকে খুব ভোরে গাড়িতে রওনা দিয়ে যখন নায়াগ্রা পৌঁছাই, তখন দুপুর ১২টা। একটানা সাত ঘণ্টা ভ্রমণে শরীরটা ছিল বেশ ক্লান্ত। কিন্তু দূর থেকে নায়াগ্রার রূপ দেখেই সব ক্লান্তি ভুলে মনটা খুশিতে টগবগ করে ওঠে। আমি চারদিকে তাকিয়ে দেখি। সবুজে ঢাকা শান্ত-নিরিবিলি পরিবেশ। আকাশ পানে চেয়ে দেখি। মেঘমুক্ত পরিষ্কার নীল আকাশ এবং সাদা ফকফকা রোদ। এমনই এক স্বপ্নিল পরিবেশে আমি গাড়ি থেকে নামি। এরপর নায়াগ্রা ইউএসএ ভিজিটর সেন্টারের ভেতর যাই। সেখানে কাউন্টার থেকে টিকিট কেটে নায়াগ্রা জলপ্রপাতের গেট দিয়ে ভেতরে ঢুকি।

গারো-উপজাতি মেয়ে -কবি শিখর চৌধুরী

গারো-উপজাতি মেয়ে -কবি শিখর চৌধুরী

ওগো গারো মেয়েÑ

ডাকছি তোমায় ব্যাকুল হয়ে

শুনতে চাই তোমার মিষ্টি কথা

তাহলে পাবে ভালোবাসার বকুল মালা ।

ওগো গারো মেয়ে Ñ

ডাকছি তোমায় আকুল হয়ে,

দেখতে চাই তোমার হাসি

তাহলে পাবে হরেক রকমের চুড়ি ।। 

...

জাপানি বসন্তে সাকুরা ও রূপসী 'ঐরান'দের র‍্যালি

জাপানি বসন্তে সাকুরা ও রূপসী 'ঐরান'দের র‍্যালি

হ-বাংলা নিউজ :  আধুনিকতার প্রতাপে ঐতিহ্যবাহী কিমোনোর প্রভাব কমেছে। এখন জাপানি নারীরা বিশেষ দিন ছাড়া কিমোনো পরে না বললেই চলে। প্যান্ট-শার্ট পরে, ফ্যাশন করে। তাছাড়া কিমোনো দামেও অনেক বেশি, একেকটি ২০ হাজার ইয়েন থেকে শুরু করে ২০ লাখ ইয়েন পর্যন্ত হয়ে থাকে। কিমোনো, সাধারণ কাজবান্ধব নয়! কয়েক স্তরে রঙিন ভারি কাপড় পরতে হয়, অনেকটা গরম! কর্মক্ষেত্রে জাপানি নারীর সমান অংশগ্রহণে কিমোনোর জনপ্রিয়তা কমেছে। তারপরেও প্রতি বাড়িতে কিমোনো আছে, অন্তত জনপ্রতি একটি দামি কিমোনো......

প্রবাসে মানবতা বন্দী সব মিথ্যার মোড়কে ঢাকা।

প্রবাসে মানবতা বন্দী সব মিথ্যার মোড়কে ঢাকা।

জাহাঙ্গীর বাবু,হ-বাংলা নিউজ : সিংগাপুরে  অভিজাত পাওয়ার ফুল সাপ্লাই কোম্পানী লোক আনিতেছে দেদারছে। ফেরত যাইতেছে দেদারছে।পাব্লিক সহ্য করিতেছে দেদারছে।মাঝে মইধ্যে কথা হইলে দু:খ করিতেছে দেদারছে কিছু দেশী ভাই আইপি ব্যাবসা করিতেছে দেদারছে।কেউ ড্রাইভার,ফোরম্যান হইয়া ভালো আছে দেদারছে।কেউ ক্ষোভে আছে দেদারছে।আসবেন,আসতেই হবে, নিজের অর্থের শ্রাদ্ধ নিজেই করেন দেদারছে। বেশির ভাগ লোক ভালো নেই।শতকরা দশ বিশ ভাগ ভালো থাকলেও বাকীরা ভালো নেই। বিল্ডিং কন্সট্রাকশনের কাজ কমে গেছে।লেভী সরকারী ট্যাক্স বেড়েছে।খরচ বেড়েছে।ভোর......

সর্বাধিক পঠিত