প্রবাসী লেখকদের কলাম

Displaying 141-160 of 415 results.
"সব সম্ভবের দেশ বাংলাদেশ”

"সব সম্ভবের দেশ বাংলাদেশ”

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি: জাহিদ এফ সরদার সাদী'র এই চার শব্দের স্ট্যাটাসটি দেখে অনেক পাঠকই বুঝতে পেরেছেন উনি কি বলতে চেয়েছেন। যেই দেশে মৃত আত্মঘাতী জঙ্গী জীবিত হয়, যেই দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলে পুলিশের "ধাক্কা-ধোক্কা খেয়ে” বোমা বিস্ফোরণ হয়, সেই দেশে মারামারি ও চুরির মামলায় ১০ মাসের শিশুকে পুলিশের অভিযুক্ত করাটা তো আর অস্বাভাবিক কিছু না ? "বাংলাদেশে মারামারি ও চুরির মামলায় ১০ মাসের শিশুকে অভিযুক্ত করেছে পুলিশ" এই শিরোনামে বিবিসি বাংলার নিউজটি তার ফেসবুকে শেয়ার করে তিনি চার শব্দের স্ট্যাটাসটি দেন ….. ”সব সম্ভবের দেশ বাংলাদেশ”। তার এই শিরোনামের মধ্যেই বর্তমানে......

নিউইয়র্ক থেকে বাসযাত্রা

নিউইয়র্ক থেকে বাসযাত্রা

নিউইয়র্ক থেকে বাসে উঠেছি। যাব নায়াগ্রা জলপ্রপাত দেখতে। লোকাল বাস নয়, টুরিস্ট বাস। বাস ভর্তি মানুষ। সবাই মনে হলো টুরিস্ট। বিভিন্ন দেশি লোকজন। চায়নিজ, জাপানিজ, কোরিয়ান, ভিয়েতনামিজ। দেশি বলতে শুধু কিছু ইন্ডিয়ান দেখতে পাচ্ছি। আমি, আমার স্ত্রী আর দুই বছরের ছেলে বসে আছি বাসের মাঝামাঝিতে একটি সিটে।

তখন খুব সকাল, মৃদু রোদ্দুর নিউইয়র্কের উঁচু উঁচু বিল্ডিংয়ের ফাঁক গলে সোনালি আলো ছড়াচ্ছে। রাস্তাঘাটে তখনো যান অথবা মানুষের চলাচল খুব একটা শুরু হয়নি। সকালবেলার সুনসান নিউইয়র্ক দেখে মনে পড়ে ঢাকার মতিঝিলের কথা। নটর ডেম কলেজে থাকাকালে মেস করে মতিঝিল এলাকায় থাকতাম। ছুটির দিন......

এখন কি জয়কে ‌‘ডাকাতির বরপুত্র’ বানাবে না দালাল মিডিয়া ??? - সাদী

এখন কি জয়কে ‌‘ডাকাতির বরপুত্র’ বানাবে না দালাল মিডিয়া ??? - সাদী

 ২০০১ সালের অক্টোবর থেকে ২০০৬ সালের শেষ পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিল বিএনপির নেতৃত্বাধীন ৪ দলীয় জোট। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান ছিলেন দলের আরো বহু যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের একজন (বর্তমানে অবশ্য সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে আছেন)। সরকারি কোনো পদে কখনো ছিলেন না তারেক রহমান।

তবে বাংলাদেশের স্বাভাবিক রাজনৈতিক চর্চা অনুযায়ী ক্ষমতাসীন দলের প্রধানের সন্তান হওয়ার সুবাধে অন্য অনেকের চেয়ে অনেক বেশি প্রভাবও ছিল নিশ্চয়ই ছোট খাটো অনেক মন্ত্রীর চেয়ে বেশি।

কিন্তু সরকারি কোনো......

নারী নেতৃত্ব্যে অদম্য হিলারি

নারী নেতৃত্ব্যে অদম্য হিলারি

তামান্না ইসলাম, হ-বাংলা নিউজ : এবারের আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ছিল সব দিক দিয়ে বেশ উল্লেখযোগ্য। ডেমোক্র্যাট আর রিপাবলিকানের চিরায়ত লড়াই তো ছিলই, কিন্তু সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ঘটনা ছিল আমেরিকা এই প্রথমবারের মতো একজন নারীর প্রেসিডেন্ট হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করেছিল। নির্বাচনে উত্তেজনা, বিতর্ক—সব ছাপিয়ে আমি বেশ গর্বসহকারে কাটিয়েছি ওই সময়টা। তৃতীয় বিশ্বের দেশ হয়ে আমরা সেই কবে পেয়েছি নারী সরকারপ্রধান, আর এসব বিষয়ে এগিয়ে থাকা দেশে সে কী গুঞ্জন—‘আমেরিকা কি আসলেই নারী প্রেসিডেন্ট......

চোখজুড়ানো নায়াগ্রা

চোখজুড়ানো নায়াগ্রা

নিউইয়র্ক সিটি থেকে খুব ভোরে গাড়িতে রওনা দিয়ে যখন নায়াগ্রা পৌঁছাই, তখন দুপুর ১২টা। একটানা সাত ঘণ্টা ভ্রমণে শরীরটা ছিল বেশ ক্লান্ত। কিন্তু দূর থেকে নায়াগ্রার রূপ দেখেই সব ক্লান্তি ভুলে মনটা খুশিতে টগবগ করে ওঠে। আমি চারদিকে তাকিয়ে দেখি। সবুজে ঢাকা শান্ত-নিরিবিলি পরিবেশ। আকাশ পানে চেয়ে দেখি। মেঘমুক্ত পরিষ্কার নীল আকাশ এবং সাদা ফকফকা রোদ। এমনই এক স্বপ্নিল পরিবেশে আমি গাড়ি থেকে নামি। এরপর নায়াগ্রা ইউএসএ ভিজিটর সেন্টারের ভেতর যাই। সেখানে কাউন্টার থেকে টিকিট কেটে নায়াগ্রা জলপ্রপাতের গেট দিয়ে ভেতরে ঢুকি।

গারো-উপজাতি মেয়ে -কবি শিখর চৌধুরী

গারো-উপজাতি মেয়ে -কবি শিখর চৌধুরী

ওগো গারো মেয়েÑ

ডাকছি তোমায় ব্যাকুল হয়ে

শুনতে চাই তোমার মিষ্টি কথা

তাহলে পাবে ভালোবাসার বকুল মালা ।

ওগো গারো মেয়ে Ñ

ডাকছি তোমায় আকুল হয়ে,

দেখতে চাই তোমার হাসি

তাহলে পাবে হরেক রকমের চুড়ি ।। 

...

জাপানি বসন্তে সাকুরা ও রূপসী 'ঐরান'দের র‍্যালি

জাপানি বসন্তে সাকুরা ও রূপসী 'ঐরান'দের র‍্যালি

হ-বাংলা নিউজ :  আধুনিকতার প্রতাপে ঐতিহ্যবাহী কিমোনোর প্রভাব কমেছে। এখন জাপানি নারীরা বিশেষ দিন ছাড়া কিমোনো পরে না বললেই চলে। প্যান্ট-শার্ট পরে, ফ্যাশন করে। তাছাড়া কিমোনো দামেও অনেক বেশি, একেকটি ২০ হাজার ইয়েন থেকে শুরু করে ২০ লাখ ইয়েন পর্যন্ত হয়ে থাকে। কিমোনো, সাধারণ কাজবান্ধব নয়! কয়েক স্তরে রঙিন ভারি কাপড় পরতে হয়, অনেকটা গরম! কর্মক্ষেত্রে জাপানি নারীর সমান অংশগ্রহণে কিমোনোর জনপ্রিয়তা কমেছে। তারপরেও প্রতি বাড়িতে কিমোনো আছে, অন্তত জনপ্রতি একটি দামি কিমোনো......

প্রবাসে মানবতা বন্দী সব মিথ্যার মোড়কে ঢাকা।

প্রবাসে মানবতা বন্দী সব মিথ্যার মোড়কে ঢাকা।

জাহাঙ্গীর বাবু,হ-বাংলা নিউজ : সিংগাপুরে  অভিজাত পাওয়ার ফুল সাপ্লাই কোম্পানী লোক আনিতেছে দেদারছে। ফেরত যাইতেছে দেদারছে।পাব্লিক সহ্য করিতেছে দেদারছে।মাঝে মইধ্যে কথা হইলে দু:খ করিতেছে দেদারছে কিছু দেশী ভাই আইপি ব্যাবসা করিতেছে দেদারছে।কেউ ড্রাইভার,ফোরম্যান হইয়া ভালো আছে দেদারছে।কেউ ক্ষোভে আছে দেদারছে।আসবেন,আসতেই হবে, নিজের অর্থের শ্রাদ্ধ নিজেই করেন দেদারছে। বেশির ভাগ লোক ভালো নেই।শতকরা দশ বিশ ভাগ ভালো থাকলেও বাকীরা ভালো নেই। বিল্ডিং কন্সট্রাকশনের কাজ কমে গেছে।লেভী সরকারী ট্যাক্স বেড়েছে।খরচ বেড়েছে।ভোর......

কানাডায় পড়ালেখা চালিয়ে যেতেই হয়

কানাডায় পড়ালেখা চালিয়ে যেতেই হয়

ইমাম উদ্দিন,টরন্টো, কানাডা থেকে:ভিকি লাইফ লং লার্নার। হোয়াইট কানাডিয়ান। পেশায় ডাক্তার। পিএইচডি করেছে ইউনিভার্সিটি অব ক্যালগেরি থেকে। তাঁর সাথে আমার দেখা হয় টরন্টোর জর্জ ব্রাউন কলেজে। আমি ছিলাম ক্যারিয়ার এন্ড ওয়ার্ক কাউন্সেলর ডিপ্লোমা প্রোগ্রামের শিক্ষার্থী। ভিকিও। লিংকড-ইন প্রোফাইলে তাঁর পড়াশোনা আর ক্যারিয়ার দেখে আমি অবাকই হয়েছিলাম। তাঁর কাছে জানতে চেয়েছিলাম, এটা কেন পড়তে এসেছো? ’ক্যারিয়ার চেইঞ্জ। ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং প্রফেশনে আসতে চাই।’

শুধু ভিকি নয়, সে সময় আমার সহপাঠিদের মধ্যে ৭৯% কানাডার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যাচেলর ডিগ্রীধারী......

পুষ্পিতার কান্না

পুষ্পিতার কান্না

উন্মুক্ত একটা শূন্যতা চারদিকে। অবিরাম একটা ঘোর। একটা রহস্য। কিছু বুঝতে পারা না পারার আবছা আকস্মিকতা। কিছু ভ্রম, কিছু সত্য, কিছুটা অবিশ্বাস। সবকিছুর দোলাচলে ঘূর্ণমান কিছু ভাবনা মারপ্যাঁচ খেলতে থাকে পুষ্পিতার ভেতর। টিভির সুইচ অন করে টিভির পাশের থেকে রিমোট নিয়ে সোফায় বসে। একের পর এক চ্যানেল ঘোরাতে থাকে। কোনো কিছুতেই মন বসছে না। মেজাজ তিরিক্ষি হয়ে আছে। মনটা বেশ ভারিও লাগছে। এই মুডে থাকলে সে সিগারেট জ্বালিয়ে টানতে থাকে। এখন মা রাহেলা বাসায় থাকায় সিগারেটের দিকে হাত বাড়াচ্ছে না। হাতটা যাচ্ছে শুধু রিমোটের বাটনের ওপর। টিভি পর্দার প্রত্যেকটা চ্যানেলের মতো যদি মনের পর্দা......

প্রবাসীরা দেশে ফোন করেন সুখের আশায়

প্রবাসীরা দেশে ফোন করেন সুখের আশায়

প্রতিদিন বাসা থেকে বের হয়ে যখন ট্রেন স্টেশনে আসি তখন সেখানে নির্মাণসংশ্লিষ্ট কাজ যারা করেন, তাদের একবেলা কাজ হয়ে যায়। ওখানে নির্মাণাধীন এমআরটি (ট্রেন) স্টেশনে কাজ করেন অনেক বাংলাদেশি। ওই সময় তারা স্টেশনের ফ্লোরে বসে বাসা থেকে আনা কাগজে মোড়ানো খাবারের পোঁটলা খুলে দুপুরের খাবার খান। প্রায় দিনই আমি এটা দেখতে পাই। 

কয়েক দিন আগে বাসা থেকে বের হতে আমার সামান্য দেরি হয়। যখন আমি ওই এলাকায় পৌঁছাই তখন তাদের সবার খাবার খাওয়া শেষ। দেখতে পেলাম, তারা বেশির ভাগ কানে ফোন লাগিয়ে কথা বলছেন। হয়তো দেশে কারও সঙ্গে কথা বলছেন—স্বজন, প্রিয়জন বা আপনজন। প্রায় সবাই হাসিমুখে কথা বলছেন।......

পাতানো স্বপ্ন

পাতানো স্বপ্ন

সু’ বলেই ডাকতাম মেয়েটিকে। সুহাসিনী থেকেই সু। রাজ্যের আকণ্ঠ ভালো লাগায় ঠাসা এই নাম। এই নামটি যেন আমার হৃদয়ে গেঁথে গিয়েছিল সযতনে!

আট-দশটা সাদামাটা প্রেমের গল্পের মতো আমাদের সম্পর্কের শুরুটাও হয়েছিল বন্ধুত্ব দিয়ে। তারপর বন্ধুত্বের মাঠ পেরিয়ে ভালোবাসার আশ্রয়ে নিজেদের পারস্পরিক সমর্পণ।

তুমুল বৃষ্টি মাথায় নিয়ে একতোড়া বকুল আমার হাতে ধরিয়ে দিয়ে বলেছিল—এই ফুলগুলোতে তুমি কি দেখ?

কি অর্থ হতে পারে এই বাক্যটার? কোনটার কথা বলতে চেয়েছিল।

ওই বকুল তোড়া, ওই বৃষ্টিস্নাত মিষ্টি হাসিটা নাকি আমার হাতে তার নিজস্ব সত্তাকে সমর্পণ করার ইচ্ছেটা? কোনটার কথা বলতে চেয়েছিল।

......

আমাদের বটমূল

আমাদের বটমূল

জাফরিআলকাদরী, মিশিগানথেকে : ঢাকার বৈশাখী মেলার সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী বিষয়টা কি? অবশ্যই রমনার বটমূলে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। আমরা যারা ৮০ বা ৯০ এর দশকে ঢাকায় বড় হয়েছি, তাদের কাছে এর আকর্ষণ কেমন সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। বিদেশে এসে প্রথম যে অনুভুতি হয় বাঙ্গালীর তা হল সুতো কেটে যাওয়া। কোথায় যেন সব হারিয়ে যায় প্রানের রসগুলো। তাই নস্টালজিয়া থেকেই হোক কিংবা প্রাণের খোরাক মেটাতেই হোক, প্রবাসে কিছুদিন থাকার পরেই বাঙ্গালী জড়িয়ে পড়ে নানা সাংস্কৃতিক আয়োজনে। যারা দেশে থাকতে প্রত্যক্ষভাবে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন তারা তো বটেই, যারা ছিলেন না তারা এগিয়ে আসেন নানাভাবে এসব আয়োজনে......

নড়াইল এক্সপ্রেস

নড়াইল এক্সপ্রেস

নড়াইল এক্সপ্রেস  

জাহাঙ্গীর বাবু 

নড়াইল এক্সপ্রেস নাড়িয়ে দিলো 

কোটি মানুষের হৃদয় 

লাল সবুজের উড্ডীন পতাকা হাতে 

ম্যাশ,মাশরাফি,নড়াইল এক্সপ্রেস এর জয় । 

কাটা,ছেড়া ,শরীর ,ভাঙা হাঁড় 

থামাতে পারিনি ভালোবাসা দেশ মাতৃকার, 

দেশের তরে দিয়েছে উজাড় করে শতভাগ 

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে 

মাশরাফি বিন মর্তুজা  উজ্জ্বল নাম। 

ক্লীন ইমেজ ,ইস্পাত কঠিন কমিটমেন্ট 

চোখে যার পজেটিভ ক্রিকেটের বাংলাদেশ 

মানবতার তরে কাঁদে যার মন 

মাশরাফি বিন মর্তুজা তার নাম.

নড়াইল নয় শুধু পুরো বাংলাদেশের গর্ব 

দলনেতা ,ক্যাপ্টেনের......

জার্মানিতে ৪০ বছর: অবশেষে ছাত্র ভিসা

জার্মানিতে ৪০ বছর: অবশেষে ছাত্র ভিসা

আমি তখন মেঝ থেকে কাগজগুলো উঠিয়ে দাঁড়িয়েছি। তখন দেখি দরজা দিয়ে দীর্ঘকায় সৌম্য চেহারার একজন ভদ্রলোক কক্ষে প্রবেশ করলেন।

গত পর্বে  বলছিলাম, ছাত্র ভিসা নিতে এসে ম্যাজিস্ট্রেটের হাতে আমার দুর্ভোগের কথা। উনি আমার ছাত্র ভিসার আবেদন দিতে চাননি। আমার সব কাগজপত্র ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিলেন। তবে এই ভদ্রলোকটি এসে দোভাষী সাক্সেনাকে কী যেন জিজ্ঞেস করলেন। সাক্সেনা তাকে উত্তর দিলেন। তখন তিনি আমাকে জিজ্ঞেস করলেন, কী হয়েছে মিস্টার?

আমি তাকে বললাম, আমি ছাত্র ভিসার জন্য এসেছি কিন্তু ৩১৩ নম্বর রুমের লোক সেই আবেদন চুড়ান্তভাবে নাকচের কথা বলার জন্য দোভাষীর ঘরে নিয়ে এসেছেন।

তিনি......

ফ্রান্সের সাদা বরফের গল্প

ফ্রান্সের সাদা বরফের গল্প

ফ্রান্স দেশটা আমার কাছে ছবির মতো একটি দেশ। উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে আমার কাছে ফ্রান্স দেশটা একটু বেশি ব্যতিক্রমই মনে হয়েছে।

ইউরোপের অন্য দেশগুলোর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের বিপরীতে মানবসৃষ্ট সৌন্দর্য ও জৌলুসে ভরপুর। ফ্রান্স এ দিক দিয়ে ব্যতিক্রম, মানবসৃষ্ট কারুকার্যের পাশাপাশি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এই দেশটি।

এজন্যই পৃথিবীর ভ্রমণপিয়াসু মানুষের কাছে ফ্রান্স ভ্রমণ পছন্দের তালিকায় সবসময়ই প্রথম সারিতে। ফ্রান্সকে দেশের চারিদিকে ঘিরে রাখা পাহাড়-পর্বতগুলো দেখলেই মনে হয়, এইগুলো রাখাই হয়েছে ফরাসিদের প্রোটেকশন দেওয়ার জন্য।

দেখার মতো বিষয় হলো,......

পাহাড়-পর্বত আর বরফের দেশে

পাহাড়-পর্বত আর বরফের দেশে

মাহবুব মাসুম, জাপানের নাগানো থেকে : সত্যি অবাক করার মত একটা অঞ্চল জাপানের নাগানো। যত দূর চোখ যায় কেবল পাহাড় আর পর্বত মিলে আকাশ ছোঁয়েছে। শীতকালে পাহাড়-পর্বত একাকার হয়ে সাদা বরফেরুপান্তরিত হয়েছে। মনে হয় এ যেন সাদা পাহাড়ের দেশ!নাগানো অঞ্চলে রয়েছে ডজন খানেক পর্বতমালা। এছাড়া পুরো নাগানোটাই যেন পাহাড়ে ঢাকা। এ যাত্রায় উদ্দেশ্য বরফের দেশটাকে ঘুরে দেখা। প্রতিটা পর্বতের ভাজে ভাজে বিনোদনের জন্য গড়ে তোলা হয়েছে রকমারি স্কি পার্ক। যে সব পার্কে শীতের এ সময়টাতে হাজারো মানুষ আসে বরফের মধ্যে স্নো বোটিং করতে। কেউ আসে স্নো স্কি খেলতে। বিশাল পর্বতের উচু ভাজ থেকে সাই করে নিচের দিকে......

প্রবাসের ভাবনা- পারভীন বানু

প্রবাসের ভাবনা- পারভীন বানু

প্রবাসে এই রঙের খেলা,

গ্রীস্মে বসে কত মেলা।

শত শত সংগঠন,

কি করে হয় দেশ গঠন।

স্বেচ্ছাচারের নিয়মনীতি

নেই পরোয়া নেইকো ভীতি।

মুখোশ পড়ে হয়ে বাহির,

করছে কেহ নেতা জাহির।

পদটি নিয়েই কাড়াকাড়ি,

সভার মাঝেই মারামারি।

ধর্ম বলো রাজনীতি,

কোথায় আছে সুনীতি।

হাজার হাজার বিভক্তি,

নেই সুজনের আসক্তি।

হিংসা কিংবা বিদ্বেষে,

সময় কাটে পরদেশে। 

...

উন্নয়নের মহাসড়কে অভিবাসীরা দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিক যে কারনে

উন্নয়নের মহাসড়কে অভিবাসীরা দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিক যে কারনে

মাঈনুল ইসলাম নাসিম : নাগরিকদের কোন শ্রেণীবিন্যাসের সুযোগ আইনগতভাবে না থাকলেও এক কোটি প্রবাসী বাংলাদেশীরা বাস্তবে অনেক আগে থেকেই গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিকের ট্রিটমেন্ট পাচ্ছেন, সেটা আজ নতুন করে বলার নয়। তারপরও তা বলতে হচ্ছে ১৮ ডিসেম্বর ২০১৬ ঢাকায় সরকারীভাবে উদযাপিত আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসে ব্যবহৃত একটি ‘বানোয়াট ও ভিত্তিহীন’ প্রতিপাদ্য বিষয়ের পরিপ্রেক্ষিতে। “উন্নয়নের মহাসড়কে অভিবাসীরা সবার আগে” এমন ডাহা মিথ্যাচার করে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে প্রবাসীদের ধিক্কার কুড়িয়েছে। উন্নয়নের......

সত্যি একদিন হাসবে একাত্তরের বিজয়ের পতাকা = জাহাঙ্গীর বাবু

সত্যি একদিন হাসবে একাত্তরের বিজয়ের পতাকা = জাহাঙ্গীর বাবু

বিজয় দিবসে যখন শুনি ভিনদেশী গীত
লজ্জিত হয় স্বাধীনতা ,লজ্জিত জাতীয় সংগীত।

সে কি সন্মান,হাতের মুঠোয় ফুল ,ফুলের ডালিতে
খানিক পরেই ,ফুলের শ্রদ্ধার অর্ঘ্য লুটায় মাটিতে!

ক্যামেরার ফ্লাসে , ক্লিক ,ক্লিক, আলোকিত চারদিক
সংবাদ কর্মীর পাদুকার আঘাতে ,শহীদের আত্মা ছুটে কি দিগ্বিদিক ?

মানুষের উপর মানুষের ঢল ,শহীদ বেদীতে দেখায় বল
কার পূর্বে কে দেবে ফুল,হুড় মুড় ,লেগে যায় গন্ডগোল !

সে কি প্রতিযোগিতা,লক্ষ, কোটি ব্যায়ে ,ফুলের ডালি,সভা,সেমিনার ,
কে নেয় খবর  কেমন আছে ,কেমন থাকে শহীদ পরিবার?

মুক্তি যোদ্ধার সার্টিফিকেট নিয়ে প্রশ্ন বিদ্ধ করে স্বাধীনতা!
দেশপ্রেম দেখায়......

সর্বাধিক পঠিত